মোংলায় ডুবে যাওয়া কয়লাবোঝাই জাহাজ উদ্ধারে কাজ শুরু

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি বাগেরহাট
প্রকাশিত: ০৭:৪৯ পিএম, ২১ এপ্রিল ২০১৮

সুন্দরবনের হাড়বাড়িয়ায় ৭৭৫ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ডুবে যাওয়া এমভি বিলাস নামের লাইটার জাহজটি উদ্ধারে কাজ শুরু হয়েছে। ডুবে থাকা জাহাজটি উদ্ধারের জন্য প্রথমে এর ভেতরের কয়লা তোলা হবে। শনিবার সকাল থেকে কয়লা তোলার কাজ শুরু হয়েছে।

গত ১৪ এপ্রিল শনিবার দিবাগত রাতে মোংলা সমুদ্রবন্দরের পশুর চ্যানেলের হাড়বাড়িয়ার ৫ নম্বর অ্যাকাংরের কাছে ডুব চরে আটকে কাত হয়ে জাহাজটি ডুবে যায়। সুন্দরবনের মাঝ দিয়ে প্রবাহিত পশুর নদে জাহাজ ডুবির ঘটনায় উদ্বিগ্ন বন বিভাগ ও পরিবেশবদী সংগঠনগুলো। ঘটনার পর জাহজটি উদ্ধারে কয়লার আমদানিকারক ও জাহাজের মালিক পক্ষকে ১৫ দিন সময় বেধে দিয়ে চিঠি দেয় মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ।

কয়লা আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স সাহারা এন্টারপ্রাইজের ব্যবস্থাপক (অপারেশন) মো. লালন হাওলাদার বলেন, শনিবার সকালে পশুর নদে ভাটার সময় থেকে পুরো দমে কয়লা তোলার কাজ শুরু হয়েছে। ‘হোসেন স্যালভেজ’ নামের একটি প্রতিষ্ঠান এই কাজ করছে। গত কয়েকদিন ধরে নদে পানির চাপ অনেক বেশি। গত দু-তিনদিন ধরে ভাটাতেও জাহাজটি পুরোপুরি ডুবে থাকছে। পানির চাপ বেশি থাকার কারণে জোয়ারের সময় উদ্ধার কাজ চালাতে বেগ পেতে হচ্ছে।

জাহাজটির উদ্ধার প্রক্রিয়া সম্পর্কে তিনি বলেন, ডুবে থাকা জাহাজের ভেতর থেকে ড্রেজারের মতো বিশেষ যন্ত্র ও পাইপের সাহায্যে কয়লা তুলে ভলগেটে রাখা হবে। এভাবে কয়লা তোলার মাধ্যমে জাহাজটি হালকা করে দুপাশে দুটি খালি (ফাঁকা) ভলগেট রেখে লোহার বিশেষ ধরণের রশির সাহায্যে ডুবে যাওয়া জাহাজটিকে নিচ থেকে টেনে তোলা হবে।

হোসেন স্যালভেজের স্বত্বাধিকারী মো. সোহরাব হোসেন বলেন, সকালে ভাটার সময় থেকে কয়লা উত্তোলন শুরু হয়েছে। এ কাজে আমাদের ১১ জন ডুবুরি এবং ২০ জন শ্রমিক নিয়োজিত রয়েছে।

তিনি জানান, অমাবস্যার পূর্ণ জোয়ারের কারণে নদীতে প্রচণ্ড স্রোত ও ঢেউয়ে উদ্ধার কাজ কিছুটা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। পানি বেশি থাকায় ভাটার সময়ও জাহাজটি দেখা যাচ্ছে না, সব সময়ই ডুবে থাকছে। জোয়ারের সময় কয়লা তোলা বন্ধ রাখতে হচ্ছে। দুই-একদিন পর পানির চাপ কমতে পারে। তখন পুরো সময়ই উদ্ধার কাজ করা যাবে। ৭ থেকে ১০দিনের মাঝেই জাহাজের সব কয়লা তোলা সম্ভব হবে বলে।

সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের চাঁদপাই রেঞ্জের সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মো. শাহিন কবির বলেন, শনিবার সকাল থেকে কয়লা তোলার কাজ শুরু করেছে জাহাজের মালিক পক্ষের ভাড়া করা প্রতিষ্ঠানের লোকজন। কয়লা তোলা শেষ হলে ডুবে যাওয়া জাহাজটি উদ্ধারে কাজ শুরু হবে বলে তারা জানিয়েছেন।

লাইবেরিয়ার পতাকাবাহী এমভি অবজারভেটর নামের একটি মাদার ভ্যাসেলে থেকে ৭৭৫ মেট্রিক টন কয়লা নিয়ে ঢাকার মিরপুরে যাবার পথে গত ১৪ এপ্রিল এমভি বিলাস নামে লাইটার জাহাজটি ডুবে যায়। ওই কয়লা ইন্দোনেশিয়া থেকে আমদানিকৃত।

ডুবে যাওয়ার পর গত সোমবার ওই এলাকার নদের পানি পরীক্ষা করে পরিবেশ অধিদফতর বলেছিল পানির গুণগতমান স্বাভাবিক রয়েছে। তখন কয়লা জাহাজের মাঝে আবদ্ধ অবস্থায় ছিল।

তবে জাহাজ থেকে কয়লা তোলার সময় নদের পানির সঙ্গে মিশে জলজ পরিবেশের কোনো ক্ষতি হচ্ছে কি-না তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মো. ইমদাদুল হক।

শওকত বাবু/আরএআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :