যশোরে হত্যা মামলার আসামিকে গুলি করে হত্যা

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি যশোর
প্রকাশিত: ০৫:৩৬ পিএম, ০৯ জুলাই ২০২০
ফাইল ছবি

যশোরের মণিরামপুরে দিনে-দুপুরে রফিকুল ইসলাম রফিক (৫৩) নামে এক ব্যক্তিকে গুলি করে ও গলা কেটে হত্যা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (৯ জুলাই) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার দিগঙ্গা কুচলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পূর্বপাশে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত রফিকুল ইসলাম রফিক উপজেলার মধুপুর গ্রামের মৃত আমারত বিশ্বাসের ছেলে। তিনি উপজেলার হরিদাসকাটি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান প্রকাশ কুমার সাহা হত্যা মামলার আসামি ছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রফিকুল ইসলাম রফিক এক সময় নিষিদ্ধঘোষিত পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির আঞ্চলিক কমান্ডার ছিলেন। পরে তিনি নিষিদ্ধ দল ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফেরেন। মৃত্যুর আগে তিনি ইজিবাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করতেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে তিনি সুন্দলি বাজারে যাত্রী নামিয়ে দিয়ে মণিরামপুরের দিকে ফিরে আসছিলেন। পথিমধ্যে দিগঙ্গা-কুচলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাশে ফাঁকা স্থানে পৌঁছালে দুর্বৃত্তরা তাকে গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যার পর মরদেহ ও ইজিবাইক ফেলে রেখে চলে যায়।

কুচলিয়া এলাকার ইউপি সদস্য প্রণব কুমার বিশ্বাস জানান, গুলির শব্দ শুনে মাঠে থাকা লোকজন এগিয়ে এসে রফিকের মরদেহ ও ইজিবাইকটি পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার দেন। নিহতের বুকের ডান পাশে ও ডান বাহুতে দুটি গুলির চিহ্ন এবং গলায় ধারালো অস্ত্রের কোপের দাগ রয়েছে। খবর পেয়ে মণিরামপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করেছে। একই সঙ্গে মরদেহের পাশে পড়ে থাকা রফিকের ইজিবাইকটিও উদ্ধার করেছে পুলিশ।

মণিরামপুর থানা পুলিশের পরিদর্শক (তদন্ত) শিকদার মতিয়ার রহমান জানান, কারা প্রকাশ্যে রফিককে গুলি করে ও গলা কেটে হত্যা করেছে তা এখনও জানা যায়নি। নিহত রফিকের নামে থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। পুলিশ মরদেহ ও ইজিবাইকটি উদ্ধার করেছে।

মিলন রহমান/আরএআর/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]