মসজিদে বিস্ফোরণ : তিতাসের ৮ কর্মকর্তা-কর্মচারী জামিনে মুক্ত

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নারায়ণগঞ্জ
প্রকাশিত: ০৫:১৯ পিএম, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

নারায়ণগঞ্জের বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির আট কর্মকর্তা-কর্মচারীর জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত।

সোমবার (২১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে তাদের জামিন মঞ্জুর করেন নারায়ণগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আফতাবুজ্জামান। বিকেলে তারা জামিনে মুক্ত হন। নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, দুদিনের রিমান্ড শেষে তিতাসের আট কর্মকর্তা-কর্মচারীকে আদালতে হাজির করে সিআইডি। আদালতে আসামি পক্ষের আইনজীবী জামিন আবেদন করলে পরবর্তী শুনানির দিন পর্যন্ত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন বিচারক। এ মামলায় পরবর্তী শুনানির তারিখ আগামী ২৮ অক্টোবর।

জামিনপ্রাপ্তরা হলেন- তিতাসের ফতুল্লা অঞ্চলের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মো. সিরাজুল ইসলাম, উপব্যবস্থাপক মাহামুদুর রহমান রাব্বী, সহকারী প্রকৌশলী এসএম হাসান শাহরিয়ার, সহকারী প্রকৌশলী মানিক মিয়া, সিনিয়র সুপারভাইজার মো. মুনিবুর রহমান চৌধুরী, সিনিয়র উন্নয়নকারী মো. আইউব আলী, হেলপার মো. হানিফ মিয়া ও কর্মচারী মো. ইসমাইল প্রধান।

১৯ সেপ্টেম্বর মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় ফতুল্লার বিভিন্ন এলাকা থেকে তিতাসের আট কর্মকর্তা-কর্মচারীকে গ্রেফতার করে সিআইডি। ওইদিন বিকেলে তাদের পাঁচদিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে হাজির করা হলে দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন বিচারক। সোমবার তাদের আদালতে হাজির করা হয়।

৪ সেপ্টেম্বর রাতে সদর উপজেলার পশ্চিম তল্লা এলাকায় বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, শিক্ষার্থী, সাংবাদিক ও শিশুসহ ৪০ জন দগ্ধ হন। তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শেখ হাসিনা প্লাস্টিক সার্জারি ও বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। এ পর্যন্ত ৩৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় ৫ সেপ্টেম্বর ফতুল্লা থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) হুমায়ুন কবির বাদী হয়ে অজ্ঞাতদের আসামি করে ফতুল্লা থানায় মামলা করেন। পরে মামলার তদন্তের দায়িত্ব সিআইডিকে দেয়া হয়।

শাহাদাত হোসেন/এএম/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]