মহিলা লীগ নেত্রী বললেন ‘এই নৌকা বিএনপি-জামায়াতের’

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি যশোর
প্রকাশিত: ০৯:০৪ পিএম, ০২ ডিসেম্বর ২০২০

‘বাঘারপাড়ার উপনির্বাচনে আমাদের কোনো প্রতীকের প্রয়োজন নেই। আমাদের দরকার বেপ্রতীক। আমরা ব্যক্তি দেখে ভোট দেব। এই নির্বাচনে সরকার পরিবর্তন হচ্ছে না। আমরা সবাই আনারসে ভোট দেব। এই নৌকা বিএনপি-জামায়াতের নৌকা, এই নৌকা আমাদের নৌকা না। এই ভোট এমপি রণজিৎ কাকার অস্তিত্বের লড়াই। তিনি ভালো থাকলে আমরা ভালো থাকব। তাকে ভালো রাখতে আমাদের আনারসে ভোট দিতে হবে।’

ঠিক এভাবেই বক্তব্য দিয়েছেন যশোরের বাঘারপাড়া উপজেলা আওয়ামী যুব মহিলা লীগের আহ্বায়ক সালমা খাতুন। তার এমন বক্তব্য এখন বাঘারপাড়ার সর্বত্রই সমালোচনায় ঝড় বইছে।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান পদের উপনির্বাচন উপলক্ষে দেয়া এই বক্তব্য নিয়ে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভের সৃষ্টি হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই বক্তব্য ছড়িয়ে পড়ায় বিষয়টি টক অব দ্য বাঘারপাড়ায় রূপ নিয়েছে। সম্প্রতি সালমা খাতুন আনারস প্রতীকের এক উঠান বৈঠকে এমন বক্তব্য দিয়েছেন। উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুর রউফের বাড়ির উঠানে অনুষ্ঠিত বৈঠকের এ বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে তা ভাইরাল হয়ে যায়।

সালমা বেগমের এ বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তার বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি আতিয়ার রহমান সরদার, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক প্রভাষক নজরুল ইসলাম, বাঘারপাড়া মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার খন্দকার শহিদুল্লাহ, বন্দবিলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হামিদ ডাকু, দোহাকুলা ইউপি চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা আবু মোতালেব তরফদার, নারিকেলবাড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও বাঘারপাড়া উপজেলা তাঁতী লীগের আহ্বায়ক আবু তাহের আবুল সরদার প্রমুখ।

মিলন রহমান/এএম/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]