যাত্রীর চাপ কমেছে শিমুলিয়াঘাটে

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি মুন্সিগঞ্জ
প্রকাশিত: ০২:৪৮ পিএম, ১০ মে ২০২১

মুন্সিগঞ্জের লৌহজং শিমুলিয়াঘাটে যাত্রী চাপ অনেকাংশে কমে এসেছে। সোমবার (১০ মে) দুপুর ১টার দিকে চাপ একেবারেই কমে আসে ফেরিঘাটে।

সকাল থেকে ফেরি বন্ধের নির্দেশনা থাকলেও তিনটি ফেরিতে জরুরি লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স পারাপারের সঙ্গে ঘাটে আসা অধিকাংশ যাত্রীদের নদী পার হতে দেখা যায়। এতে দুপুর দিকে যাত্রীর চাপ কমে আসে ঘাটে।

jagonews24

তবে ঘাটে এখনো সাড়ে চার শতাধিক যানবাহন গাড়ি পারাপারের জন্য অপেক্ষায় রয়েছে।

সকাল থেকে ঘাটে গিয়ে সরজমিনে দেখা যায়, ঢাকা-মাওয়া এক্সপ্রেসওয়েসহ শিমুলিয়াঘাটের বেশ কয়েকটি প্রবেশমুখে বিজিবি-পুলিশের একাধিক চেকপোস্ট রয়েছে। কোনো ধরনের ব্যক্তিগত গাড়ি ঘাটে প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

jagonews24

তবে এরমধ্যে যাত্রীরা পায়ে হেটে এসে জড়ো হতে থাকেন ঘাটে। এতে সকালে শিমুলিয়া ২ ও ৩নং ফেরিঘাটে তৈরি হয় যাত্রীদের গাদাগাদি ভিড়। ঘাটে জড়ো হওয়া

ঘাট সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ফেরি বন্ধের নির্দেশনা থাকলেও জরুরি গাড়ির আওতায় লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স পারাপারে সকাল সাড়ে ৬টায় একটি ডাম্পফেরি, সকাল ১০টা ১৫মিনিটে ফেরি যমুনা ও বেলা ১২টায় শিমুলিয়া থেকে ছেড়ে যায় ফেরি শাহ পরাণ।

jagonews24

বিআইডাব্লিউটিসি শিমুলিয়াঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) সাফায়েত আহমেদ জাগো নিউজকে জানান, লাশবাহী অ্যাম্বুলেন্স পার করার জন্য ছাড়া হলে ফেরিতে যাত্রীরা উঠে পরে। এমতাবস্থায় যাত্রীদের নিয়েই ফেরিগুলো বাংলাবাজারের দিকে ছেড়ে যায়৷ এরপরই ঘাট এলাকায় যাত্রী চাপ কমে আসে।

মাওয়া ট্রাফিক পুলিশের ইনচার্জ হিলাল আহমেদ জানান, ঘাটে বর্তমানে সাড়ে চারশতাধিক পণ্যবাহী যানবাহন ও কিছু সংখ্যক যাত্রী রয়েছে।

আরাফাত রায়হান সাকিব/এসএমএম/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]