নওগাঁয় মোবাইল চুরির অভিযোগে কিশোরকে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন!

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নওগাঁ
প্রকাশিত: ০৩:০৯ এএম, ৩১ জুলাই ২০২১
মোবাইল চুরির অভিযোগ তুলে নির্যাতনের শিকার কিশোর ও ইনসেটে আটক ব্যক্তি

নওগাঁর মহাদেবপুরে মোবাইল চুরির অভিযোগ তুলে এক কিশোরকে (১৪) হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। ওই কিশোর বর্তমানে মহাদেবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

শুক্রবার (৩০ জুলাই) সকাল ৭টার দিকে উপজেলার ভীমপুর ইউনিয়নের বাগাচারা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই এলাকায় নির্মাণাধীন একটি অটোগ্যাস ফিলিং স্টেশনের নৈশপ্রহরী বকুল হোসেনকে (৫৫) আটক করে পুলিশে দিয়েছে এলাকাবাসী।

আটক ব্যক্তি উপজেলার চেরাগপুর ইউনিয়নের চৌমাশিয়া গ্রামের বাসিন্দা।

স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে ওই কিশোর নওগাঁ-রাজশাহী আঞ্চলিক মহাসড়কের পাশে উপজেলার বাগাচারা এলাকায় নির্মাণাধীন একটি অটোগ্যাস ফিলিং স্টেশন এলাকায় যায়। এ সময় মোবাইল চুরির অভিযোগ তুলে ওই ফিলিং স্টেশনের নৈশপ্রহরী বকুল হোসেন ও কয়েকজন নির্মাণ শ্রমিক তাকে হাত-পা বেঁধে রেখে মারধর করেন। পরে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় নৈশপ্রহরী বকুল ওই কিশোরকে তার কক্ষে আটকে রাখেন।

ঘটনা জানাজানি হলে বেলা ১১টার দিকে কিশোরের পরিবারের লোকজন ও স্থানীয় বাসিন্দারা এসে তাকে উদ্ধার করে। তবে লোকজন আসার আগেই নৈশপ্রহরী বকুল সেখান থেকে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে স্থানীয়রা তাকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়।

নির্যাতিত কিশোরের বাবা খোরশেদ আলম বলেন, ‘ছেলেকে হাত-পা বেঁধে মারধরের ঘটনার ভিডিও এলাকার বিভিন্ন মানুষের মোবাইলে ছড়িয়ে পড়েছে। ভিডিওতে দেখছি ছেলেকে হাত-পা বেঁধে কীভাবে মারধর করা হচ্ছে। মিথ্যা চুরির অপবাদ দিয়ে আমার ছেলেকে অন্যায়ভাবে মারধর করা হয়েছে। আমি এ নির্যাতনের বিচার চাই।’

তবে এ প্রসঙ্গে জানতে চাইলে মহাদেবপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘মোবাইল চুরির ঘটনা ঘটেনি। এটি একটি মিথ্যা ঘটনা। তবে মোবাইলের সিম হারানোর অভিযোগ এনে হাত-পা বেঁধে নির্যাতন করা হয়েছে। এ ঘটনায় ইতোমধ্যে মূল অভিযুক্ত বকুল হোসেনকে এলাকাবাসী আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। বেলা ১১টার দিকে বকুল হোসেনকে আটক করা হয়। ঘটনার সাথে জড়িত অন্যদেরও আটকের চেষ্টা চলছে। এ ঘটনায় কিশোরের বাবা বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘শিশুটি মহাদেবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন। তাকে চিকিৎসাসহ আর্থিকভাবে সহযোগিতা করা হবে।’

আব্বাস আলী/এমআরআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]