লক্ষ্মীপুরে হত্যা মামলার প্রধান আসামির ঢামেকে মৃত্যু

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি লক্ষ্মীপুর
প্রকাশিত: ০৮:২৯ পিএম, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ইউপি নির্বাচনে নৌকার এজেন্ট ছাত্রলীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন সজিব হত্যা মামলার প্রধান আসামি মাসুদ আলম মারা গেছেন।

বৃহস্পতিবার (৯ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় লক্ষ্মীপুর কারাগারের জেলার সাখাওয়াত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এর আগে ভোরে তিনি ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

মাসুদ উপজেলার ইছাপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আমির হোসেন খানের সমর্থক ও স্থানীয় যুবলীগের রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন।

সাখাওয়াত হোসেন জানান, হত্যা মামলার আসামি মাসুদকে ৩০ নভেম্বর আদালত থেকে কারাগারে পাঠানো হয়। তখন তিনি আহত ছিলেন। ১ ডিসেম্বর তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অবস্থার অবনতি হলে ওই রাতেই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়। ৮দিন পর ঢামেক হাসপাতালেই তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

ইছাপুর ইউনিয়নের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান আমির হোসেন খান বলেন, ভোটের দিন কেন্দ্রের বাইরে একটি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় আমি ও মাসুদ জড়িত ছিলাম না। উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে আমাদের মামলায় জড়ানো হয়েছে। গ্রেফতার মাসুদকে কী জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং কীভাবে সে মারা গেছে সেটি রহস্যজনক।

রামগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, মাসুদ ছাত্রলীগ নেতা সজিব হত্যা মামলার প্রধান আসামি। তাকে গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, তৃতীয় ধাপে উপজেলার ইছাপুর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের (নৌকা) প্রার্থী ছিলেন শাহনাজ আক্তার ও প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের বহিষ্কৃত সহ-সভাপতি আমির হোসেন খান (আনারস)। ২৮ নভেম্বর ভোটের দিন সকাল থেকেই ইউনিয়নের নয়নপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ ভোটগ্রহণ চলছিল। কেন্দ্রে নৌকার এজেন্ট ছিল ছাত্রলীগ নেতা সজিব। দুপুরে প্রতিপক্ষ আনারসের লোকজন সঙ্গে তার বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে তাকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করা হয়। এতে রক্তাক্ত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে ঢাকায় নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

পরদিন তার বোন সোনিয়া আক্তার বাদী হয়ে মাসুদকে প্রধান ও নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান আমির হোসেনসহ ৩২ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। ওই রাতেই রাজধানীর সদরঘাট থেকে মাসুদকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

কাজল কায়েস/আরএইচ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]