ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টয়লেটে ঝুলছিল মাদরাসাছাত্রের মরদেহ

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি ব্রাহ্মণবাড়িয়া
প্রকাশিত: ০৬:৪২ পিএম, ১৪ আগস্ট ২০২২

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টয়লেটে গামছা পেঁচানো মোহাম্মদ আলী (১৩) নামের এক মাদরাসাছাত্রের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার (১৪ আগস্ট) বিকেল সোয়া ৪টার দিকে শহরের কাউতুলী এলাকার ইব্রাহিমিয়া তাহফিজুল কোরআন মাদরাসা থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

মোহাম্মদ আলী ওই এলাকার কাউসার মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় ওই মাদরাসার এক শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়।

মাদরাসার হেফজ বিভাগের শিক্ষক মোহাম্মদ হোসাইন জানান, সকালে সব ছাত্রদের পড়া নেওয়া হয়৷ এসময় মোহাম্মদ আলী পড়া পারেনি। তাই তাকে শাসন করা হয়। দুপুরে নামাজের পর সবাই খেতে বসে। তখন তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পরে টয়লেটের দরজা বন্ধ থাকায় সন্দেহ হয়। শিক্ষার্থীরা ওপর দিয়ে উঠে টয়লেটের ভেতরে মোহাম্মদ আলী মরদেহ দেখতে পান।

মোহাম্মদ আলীর বাবা কাউসার মিয়া জানান, প্রতিদিন দুপুরে মাদরাসা থেকে বাড়িতে খেতে যায় সে। কিন্তু আজ বাড়িতে খেতে আসেনি। মাদরাসায় গেলে শিক্ষকরা আমাকে দেখে অস্থিরতা দেখায়। তা দেখে আমি চিন্তিত হয়ে পড়ি। দীর্ঘক্ষণ আমাকে অফিসে বসিয়ে রাখলে ছেলের খোঁজ করে রাগ দেখাই। তখন টয়লেটের কাছে নিয়ে বলেন আপনার ছেলে এর ভেতরে আছে।

তিনি আরও জানান, দরজা না খোলায় ওপরে উঠে টয়লেটের ভেতর গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় তাকে দেখতে পাই। তার পা মাটিতে দেখা গেছে। পরে দরজা ভেঙে দেখি সে মারা গেছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমরানুল ইসলাম জানান, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ পাঠানো হয়েছে। হেফজ বিভাগের শিক্ষককে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

আবুল হাসনাত মো. রাফি/আরএইচ/এএসএম

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।