পতনের বাজারে ‘পচা’ আরামিট সিমেন্টের চমক

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:১৭ পিএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১

বড় দরপতনের মধ্য দিয়ে গত সপ্তাহ পার করেছে দেশের শেয়ারবাজার। প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক এক শতাংশের ওপরে কমে গেছে। লেনদেন কমেছে ৩৪ শতাংশের ওপরে।

পতনের এই বাজারে সপ্তাহজুড়ে দাম বাড়ার ক্ষেত্রে দাপট দেখিয়েছে পচা ‘জেড’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান আরামিট সিমেন্ট। কোম্পানিটির শেয়ার গত সপ্তাহজুড়ে বিনিয়োগকারীদের কাছে পছন্দের শীর্ষ স্থানে ছিল। এর ফলে দাম বাড়ার শীর্ষ স্থানটি দখল করেছে প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার।

ক্রেতাদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসায় গত সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ারের দাম বেড়েছে ২২ দশমিক ১২ শতাংশ। টাকার অঙ্কে বেড়েছে ৪ টাকা ৬০ পয়সা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দাম দাঁড়িয়েছে ২৫ টাকা ৪০ পয়সা, যা আগের সপ্তাহের শেষে ছিল ২০ টাকা ৮০ পয়সা।

শেয়ারের এমন দাম হলেও ১৯৯৮ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া এই কোম্পানিটির লভ্যাংশের ইতিহাস খুব একটা ভালো না। ২০১৬ সালে বিনিয়োগকারীদের ১২ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দেয়া কোম্পানিটি এরপর আর কোনো লভ্যাংশ দেয়নি। ফলে শেয়ারবাজারের পচা ‘জেড’ গ্রুপে স্থান হয়েছে কোম্পানিটির।

চলমান হিসাব বছরেও কোম্পানিটি খুব একটা ভালো অবস্থানে নেই। ২০২০ সালের অক্টোবর-ডিসেম্বর প্রান্তিকে কোম্পানিটি শেয়ারপ্রতি ১ টাকা ৯ পয়সা মুনাফা দেখালেও, ছয় মাসের (২০২০ সালের জুলাই-ডিসেম্বর) হিসাবে কোম্পানিটি শেয়ারপ্রতি ২৩ পয়সা লোকসানে রয়েছে।

এদিকে গত সপ্তাহে কোম্পানিটির শেয়ার বিনিয়োগকারীদের চাহিদের শীর্ষে চলে আসায় এক শ্রেণির বিনিয়োগকারীরা প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার বিক্রি করতে চাননি। এতে সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন হয়েছে ১ কোটি ৭৩ লাখ ৮৪ হাজার টাকা। আর প্রতি কার্যদিবসে গড়ে লেনদেন হয়েছে ৪৩ লাখ ৪৬ হাজার টাকা।

দাম বাড়ার ক্ষেত্রে আরামিট সিমেন্টের দাপটের মধ্যেই নতুন তালিকাভুক্ত রবি’র শেয়ার দামও বেড়েছে। তালিকাভুক্তির প্রথম বছরেই বিনিয়োগকারীদের লভ্যাংশ থেকে বঞ্চিত করা এই কোম্পানিটির শেয়ারের দাম গত সপ্তাহজুড়ে বেড়েছে ১১ দশমিক ২০ শতাংশ। দাম বাড়ার শীর্ষ তালিকায় কোম্পানিটি রয়েছে দ্বিতীয় স্থানে।

পরের তিনটি স্থানেই রয়েছে ‘এ’ গ্রুপের প্রতিষ্ঠান। এর মধ্যে ওরিয়ন ফার্মার শেয়ার দাম বেড়েছে ১০ দশমিক ৭৭ শতাংশ। ভ্যানগার্ড এএমএল রূপালী ব্যাংক ব্যালেন্স ফান্ডের দাম বেড়েছে ৯ দশমিক ৩০ শতাংশ। আর ওয়ালটনের শেয়ার দাম বেড়েছে ৯ দশমিক ১৭ শতাংশ।

এছাড়া গত সপ্তাহে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের শীর্ষ ১০ প্রতিষ্ঠানের তালিকায় থাকা- সামিট পাওয়ারের ৮ দশমিক ৮০ শতাংশ, বিকন ফার্মাসিউটিক্যালসের ৮ দশমিক ৩৯ শতাংশ, পাওয়ার গ্রিডের ৭ দশমিক ২১ শতাংশ, আলহাজ টেক্সটাইলের ৬ দশমিক ৭৬ শতাংশ এবং এডিএন টেলিকমের ৬ দশমিক ৩১ শতাংশ দাম বেড়েছে।

এমএএস/জেএইচ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]