এসএমই মেলা: বিক্রি ১২ কোটি ক্রয়াদেশ ১৯ কোটি টাকার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২০ পিএম, ০৪ ডিসেম্বর ২০২২

ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প বা এসএমই ফাউন্ডেশন আয়োজিত দশম জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা শেষ হয়েছে। মেলায় এবার নগদ বিক্রি হয়েছে ১২ কোটি টাকার। আর মেলায় অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো ক্রয়াদেশ পেয়েছে আরও ১৯ কোটি টাকার।

শনিবার (৩ ডিসেস্বর) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রে (বিআইসিসি) মেলা শেষে এসএমই ফাউন্ডেশন এ তথ্য জানিয়েছে।

এসএমই ফাউন্ডেশন জানায়, গত ২৪ নভেম্বর বিআইসিসি’তে মেলায় এবছর ৩২৫টি ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পপ্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছিল।

উদ্যোক্তারা জানান, মেলার শেষ দুদিন ছুটির দিন হওয়ায় ভালো বিক্রির হয়েছে। মেলার শুরুতেও শুক্র ও শনিবার থাকায় ক্রেতাদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো।

তবে মাঝের কয়েকদিন খুব বেশি জমজমাট ছিল না বলে জানান তারা। একদিকে মাসের শেষ, তার ওপরে শিক্ষার্থীদের বছর শেষের বিভিন্ন পরীক্ষা থাকায় ক্রেতা দর্শনাথীদের উপস্থিতি কম ছিল। পাশাপাশি নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রভাবও মেলায় পড়েছে বলে জানান তারা।।

উদ্যোক্তারা বলছেন, মেলায় পণ্যের প্রতি গ্রাহকের অনেক আগ্রহ থাকলেও এসব কারণে আগের বছরের তুলনায় বেচাকেনা আশানুরূপ হয়নি।

এবারের মেলায় ৩২৫টি স্টলে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তারা তাদের উৎপাদিত পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি করেছেন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ছিল ফ্যাশনশিল্পের ১৩০টি। এছাড়া খাদ্য ও কৃষি প্রক্রিয়াজাতকরণ পণ্যের ৪৫, হস্ত ও কারু শিল্পের ৩৮, চামড়াজাত পণ্য খাতের ৩৬, পাটজাত পণ্যের ৩৫, তথ্যপ্রযুক্তি পণ্য ও সেবা খাতের ৮, হালকা শিল্প পণ্য খাতের ৬, প্লাস্টিক পণ্যের ৫ ও ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিকস খাতের ৩টি প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশগ্রহণ করে।

এসএমই উদ্যোক্তাদের পণ্যের প্রচার ও প্রসারে ২০১২ সাল থেকে জাতীয় এসএমই পণ্য মেলা আয়োজন করছে এসএমই ফাউন্ডেশন। এখন পর্যন্ত অনুষ্ঠিত ৯টি এসএমই পণ্য মেলায় প্রায় দুই হাজার ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তা অংশ নিয়েছেন। জাতীয় পর্যায়ে মেলার পাশাপাশি বিভাগীয় ও জেলা পর্যায়ে এসএমই পণ্য মেলা আয়োজন করা হয়।

এনএইচ/ইএ/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।