স্থগিত মেডিকেলে শিক্ষার্থী ভর্তির দায় নেবে না স্বাস্থ্য অধিদফতর

মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল
মনিরুজ্জামান উজ্জ্বল , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৫:৪৮ এএম, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৭
স্থগিত মেডিকেলে শিক্ষার্থী ভর্তির দায় নেবে না স্বাস্থ্য অধিদফতর
ফাইল ছবি

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক স্থগিত ঘোষিত একাধিক বেসরকারি মেডিকেল কলেজে অবৈধভাবে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হচ্ছে। ঢাকা ও ঢাকার বাইরে স্থগিত করা সাতটি মেডিকেল কলেজ বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে বিজ্ঞাপন দিয়ে ছাত্রছাত্রী ভর্তি করছে বলে অভিযোগ ওঠেছে।

স্থগিত ঘোষিত কলেজগুলো হলো রাজধানীর ধানমন্ডির নর্দান মেডিকেল কলেজ, খিলক্ষেতের আশিয়ান মেডিকেল কলেজ, মোহাম্মদপুরের কেয়ার মেডিকেল কলেজ, রংপুরের নর্দান মেডিকেল কলেজ, শাহাবুদ্দিন মেডিকেল কলেজ, আইচি মেডিকেল কলেজ ও নাইটিঙ্গেল মেডিকেল কলেজ। এসব কলেজে প্রকাশ্যে ও গোপনে শিক্ষার্থী ভর্তি চলছে বলে অভিযোগ ওঠেছে!

স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরিচালক (চিকিৎসা, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য জনশক্তি উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো.আবদুর রশীদ বলেন, বিভিন্ন জাতীয় দৈনিকে বিজ্ঞাপন দিয়ে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে আবেদন গ্রহণের বিষয়টি আমাদের নজরে এসেছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক স্থগিত করা মেডিকেল কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তির কোনো সুযোগ নেই।

তিনি শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের সাবধান হওয়ার পরামর্শ দিয়ে বলেন, কেউ ভর্তি হলে তাকে নিজ দায়িত্বে ভর্তি হতে হবে। ভবিষ্যতে কোনো সমস্যা হলে এর দায় স্বাস্থ্য অধিদফতর নেবে না।

asian

বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল (বিএমডিসি) এর একজন শীর্ষ কর্মকর্তা মঙ্গলবার জাগো নিউজকে বলেন, এ সব মেডিকেল কলেজে শিক্ষার্থী ভর্তি হলে তারা বিএমডিসির রেজিস্ট্রেশন পাবে না। লাখ লাখ টাকা খরচ করে ভর্তি হয়ে শেষ পর্যন্ত বিপাকে পড়বে এসব শিক্ষার্থী।

জানা গেছে, প্রয়োজনীয় অবকাঠামো, শিক্ষার্থীদের পাঠদানের জন্য ছাত্রী-ছাত্রীর সংখ্যানুপাতে শিক্ষক, শিক্ষা উপকরণ, ল্যাবরেটরিসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধার ঘাটতির কারণে সম্প্রতি সাতটি প্রতিষ্ঠানে চলতি শিক্ষাবর্ষে (২০১৭-২০১৮) নতুন শিক্ষার্থী ভর্তির ওপর স্থগিতাদেশ প্রদান করা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্থগিত ঘোষিত কলেজ কর্তৃপক্ষ ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদেরকে ভর্তিতে কোনো সমস্যা নেই জানিয়ে বলছেন, তারা স্বাস্থ্যমন্ত্রী, স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী, সচিব, বিএমএ ও স্বাচিপ নেতাদের ম্যানেজ করে খুব শিগগিরই স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করিয়ে নিবেন। ফলে এখন ভর্তি হলেও সমস্যা নেই। তাদের প্রলোভনে সাড়া দিয়ে অনেক শিক্ষার্থী ভর্তি হচ্ছে বলে জানা গেছে।

এমইউ/এআরএস/জেআইএম