পূজা-বুবলী এগিয়ে ব্যবসায়

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:১৪ পিএম, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮

এই বছর মুক্তি পেয়েছে মোট ৫৬টি চলচ্চিত্র। এরমধ্যে যৌথ প্রযোজনার রয়েছে চারটি। আর আমদানি করা ৮টি। মোট দেশি ছবির সংখ্যা ৪৮টি।

এই ছবিগুলোর মধ্যে হাতেগোনা অল্প কিছু ছবি ভালো ব্যবসা করেছে। চলচ্চিত্রের মন্দার এই বছরে ব্যবসায়িক সাফল্যে এগিয়ে ছিলেন বুবলী ও পূজা চেরী। তবে আরও অনেক নায়িকাই উপহার দিয়েছেন ব্যবসা সফল ও আলোচিত সিনেমা। তাদের নিয়ে এই প্রতিবেদন-

পূজা চেরী
বছরের সবচেয়ে ব্যবসা সফল ও আলোচিত দুই ছবির নায়িকা পূজা চেরী। তার ‘পোড়ামন-২’ ছবিটিকে বছরের সেরা সফল ছবি বলা হচ্ছে। বুবলীর ‘সুপার হিরো’র পর তৃতীয় অবস্থানে থাকা ‘দহন’ ছবিরও নায়িকা তিনি। এ সত্যি যেন এক রুপকথা!

একজন নবাগতার দখলে ঢাকাই সিনেমার রাজত্ব। অভিষেকের বছরেই ব্যবসার সাফল্যে ছাড়িয়ে গেছেন তার সকল সিনিয়র নায়িকাদের।

পূজার দুটো ছবিতেই তার বিপরীতে ছিলেন সিয়াম। জাজ মাল্টিমিডিয়া প্রযোজিত এই ছবিগুলোতে অভিনয় দিয়েও প্রশংসিত হয়েছেন পূজা। তাকে নিয়ে চিত্রনায়িকা শাবনূরের মন্তব্য, ‘পূজা একজন গুণী অভিনেত্রী হয়ে ইন্ডাস্ট্রি মাতাবে। ওর অভিনয় দেখতে দেখতে আমি নিজেকেই খুঁজে পেলাম’।

বুবলী
ব্যবসা সফল নায়িকাদের তালিকায় শীর্ষ আরেকটি নাম শবনম ইয়াসমীন বুবলী। ২০১৮ সালে শাকিব খানের বিপরীতে তার তিনটি ছবি মুক্তি পেয়েছে। সেগুলো হলো ‘সুপার হিরো’, ‘ক্যাপ্টেন খান’ ও ‘চিটাগাইঙ্গা পোয়া নোয়াখাইল্যা মাইয়া’।

এই তিন ছবির মধ্যে ব্যবসায়িক সাফল্য পেয়েছেন বুবলী ‘সুপার হিরো’ ও ‘ক্যাপ্টেন খান’ ছবিতে।

জয়া আহসান
ঢাকা-কলকাতা করে এই বছরটা বেশ ব্যস্তই কাটিয়েছেন জয়া আহসান। দুই বাংলাতেই মুক্তি পেয়েছে তার ছবি। সেগুলো প্রশংসায় ভেসেছে, আলোচনায় এসেছে। ব্যবসায়ের বাজারেও জাগিয়েছে আশা।

তবে চলতি বছরে জয়াও চমক ছিলো প্রযোজক হিসেবে। হুমায়ুন আহমেদের উপন্যাস অবলম্বনে ‘দেবী’ সিনেমাটি প্রযোজনা করেছিলেন জয়া। এটি মন ভরিয়েছে দর্শকের।

মন্দার বাজারে বাজিয়েছে সাফল্যের বাঁশি। বিশেষ করে সিনেপ্লেক্সগুলোতে রুচিশীল ও খানিকটা ভিন্ন ভাবনার চলচ্চিত্রের দর্শক টেনেছে ‘দেবী’।

এই ছবিতে মিসির আলীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী ও রানু চরিত্রে অভিনয় করেছেন জয়া আহসান। এই বছরের সেরা ছবির মধ্যে এগিয়ে আছে ‘দেবী’। জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারেও অনেক সাফল্য নিয়ে আসবে ছবিটি এমনটাই প্রত্যাশা করছেন চলচ্চিত্রবোদ্ধারা।

মাহি
এই বছর মাহিয়া মাহি অভিনীত মুক্তি পাওয়া ছবিগুলোর মধ্যে আছে ‘পলকে পলকে তোমাকে চাই’, ‘জান্নাত’ এবং ‘মনে রেখ’। এই ছবিগুলোতে মাহির নায়ক ছিলেন বাপ্পি চৌধুরী, সাইমন সাদিক ও কলকাতার বনি।

তিন ছবির মধ্যে মাহি সেরা সাফল্যটা পেয়েছেন ঈদুল আজহা মাতানো ‘জান্নাত’ সিনেমা দিয়ে। এই ছবিতে মাহির নায়ক ছিলেন সাইমন। মোস্তাফিজুর রহমান মানিক পরিচালিত ছবিটি দর্শক হলে টেনেছিলো।

আর ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পাওয়া ‘পলকে পলকে তোমাকে চাই’ ছবিটিও ব্যবসায়িক দিক থেকে সফল বলে দাবি করেছেন ছবিটির প্রযোজক। সেদিক থেকে চলতি বছরে দুই ছবির সফল নায়িকা মাহি তার ক্যারিয়ার চাঙ্গা রেখেছেন।

পরীমনি
ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় নায়িকা পরীমনির একটি মাত্র সিনেমা মুক্তি পেয়েছে এবার। সে ছবির নাম ‘স্বপ্নজাল’। এটি মুক্তি পেয়েছে ২৭ এপ্রিল। এই ছবিটি দিয়ে প্রায় ৯ বছর পর সিনেমা নির্মাণে ফিরেন ‘মনপুরা’খ্যাত গিয়াস উদ্দিন সেলিম।

‘স্বপ্নজাল’ সিনেমার প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন পরীমনি। ব্যাবসায়িক সাফল্যে খুব একটা ‘সাবাশি’ না পেলেও এই ছবিটি পরীমনির ক্যারিয়ারে ভিন্নমাত্রা যোগ করেছে। দর্শক ও চলচ্চিত্রের মানুষেরা পরীর অভিনয় দক্ষতার প্রশংসায় হয়েছিলেন পঞ্চমুখ।

অধরা খান
এই বছরই ‘নায়ক’ ছবির মাধ্যমে ঢাকাই চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় নতুন নায়িকা অধরা খানের। এ ছবিতে তার নায়ক ছিলেন বাপ্পি চৌধুরী।

অন্যদিকে ২৬ অক্টোবর মুক্তি পায় তার দ্বিতীয় ছবি শাহীন সুমন পরিচালিত ‘মাতাল’। এখানে তিনি সাইমন সাদিকের বিপরীতে অভিনয় করেছেন।

নতুন নায়িকা হয়েও পরপর দুই সপ্তাহে দুটি ছবি দিয়ে ঢাকাই সিনেমার আলোচিত নাম অধরা। দুটি ছবির ব্যবসায়িক পরিসংখ্যানও ইতিবাচক। ছবির সংশ্লিষ্টরা দাবি করেছেন, তাদের ছবি দেখতে হলে গিয়ে সাড়া দিয়েছেন দর্শক।

সেই সাফল্য মাথায় নিয়ে অধরার হাতে এখন আরও নতুন দুই সিনেমা। সেগুলো হলো ‘বখাটে’ ও ‘ড্রিম গার্ল’।

মিম
এই সময়ের জনপ্রিয় নায়িকা বিদ্যা সিনহা মিম। এই বছর ফেব্রুয়ারিতে মুক্তি পায় তার ‘আমি নেতা হব’ সিনেমাটি। এতে মিমের নায়ক ছিলেন শাকিব খান। বেশ বড় পরিসরে মুক্তি পেয়েছিল ছবিটি। কিন্তু নির্মাণ ও গল্পের দুর্বলতা ছবিটিকে ভুগিয়েছে।

দর্শক খরায় ভুগতে হয়েছে দুই তারকা শাকিব ও মিমকে। তবে এই ছবির ‘চুম্মা’ ও ‘লাল লিপস্টিক’ শিরোনামের দুটি গান লুফে নিয়েছেন দর্শক। ইউটিউবে সেগুলো এখনো বিনোদিত করে যাচ্ছে দুই বাংলার গানপ্রেমীদের।

এরপর চলতি বছরের মাঝামাঝিতে মুক্তি পায় মিমের ‘সুলতান’ ছবিটি। কলকাতার সুপারস্টার জিতের বিপরীতে এই ছবি দিয়ে খানিকটা সাফল্যের দেখা পেয়েছেন মিম। তবে ছবিতে নায়িকার চরিত্রের ব্যাপ্তি নিয়ে আক্ষেপ প্রকাশ করেছেন তার অনেক ভক্তরাই। মিমকে নতুন বছরে আরও দুর্দান্ত সাফল্যে দেখার অপেক্ষায় তারা।

ববি
গত ১৩ এপ্রিল ‘বিজলী’ বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়। এর নায়িকা ববি। ছবিতে সুপার ওম্যানের চরিত্রে দেখা গেছে তাকে। গ্ল্যামার আর অ্যাকশান দিয়ে মাতিয়েছেন তিনি।

প্রত্যাশা অনুযায়ী ছবিটি ব্যবসা করতে না পারলেও নারী প্রধান চলচ্চিত্রের অনুপ্রেরণা হিসেবে ‘বিজলী’র নাম থাকবে অনেকদিন।

মজার ব্যাপার হলো ছবিতে অভিনয়ের পাশাপাশি এর প্রযোজনাও করেছেন ববি। এই ছবি দিয়েই অভিষেক ঘটলো প্রযোজক ববির।

ছবিতে ববির নায়ক কলকাতার রণবীর। আরও অভিনয় করেছেন ইলিয়াস কাঞ্চন, মিশা সওদাগর, আহমেদ শরীফ, মিজু আহমেদ কলকাতার শতাব্দী রায় প্রমুখ।

এমএবি/এলএ/জেআইএম

বিনোদন, লাইফস্টাইল, তথ্যপ্রযুক্তি, ভ্রমণ, তারুণ্য, ক্যাম্পাস নিয়ে লিখতে পারেন আপনিও - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :