সর্বোচ্চ ভোটে জয়ী নায়ক আলেকজান্ডার বো

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০১:৪৬ পিএম, ২৬ অক্টোবর ২০১৯

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন শেষ হলো অবশেষে। ২৫ অক্টোবর দিবাগত রাত দেড়টার দিকে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বিবার্ষিক (২০১৯-২১) নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক ফলাফল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন।

সেখানে বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছে মিশা সওদাগর-জায়েদ খানের পুরো প্যানেল। তারমধ্যে দুই সভাপতি প্রার্থীর মধ্যে ভোটের ব্যবধান দেখা গেছে ১০২! এরমধ্যে মিশা সওদাগর পান ২২৭ ভোট আর মৌসুমী পান মাত্র ১২৫ ভোট।

তবে নির্বাচন শেষে আলোচনায় এসেছেন অভিনেতা আলেকজান্ডার বো। তিনি প্রথমবারের মতো নির্বাচনে অংশ নিলেন এবারই। আর প্রথমবারেই বাজিমাত করে দিয়েছেন সর্বোচ্চ ভোট পেয়ে। কার্যনির্বাহী সদস্য পদে তিনি পেয়েছেন ৩৩৭ ভোট।

অশ্লীল যুগের নায়ক হয়েও শিল্পীদের কাছে এতো জনপ্রিয় আলেকজান্ডার বো সে কথা কে জানতো। যে অপরাধ মাথায় নিয়ে মেহেদী, শাহীন আলম, ময়ূরী, পলি, শাপলা, সোহেল খানরা সিনেমাতে বিলুপ্ত, সেই একই অপরাধে দোষী হয়েও শিল্পীদের ভোটের রায়ে সবার চেয়ে এগিয়ে থাকলেন আলেক। বিষয়টি ভালো-মন্দ মিলিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার জন্ম দিয়েছে চলচ্চিত্রপাড়ায়।

অনেকেই অশ্লীল যুগের নায়কের প্রতি শিল্পীদের এমন আকুণ্ঠ সমর্থ দেখে অবাক হলেও আলেকজান্ডাররের বিজয়কে ইতিবাচক দৃষ্টিতেই দেখছেন। তাদের মতে, একজন শিল্পী যদি তার যোগ্যতায় নিজেকে ফিরিয়ে আনতে পারে নতুন উদ্যমে সেটা ইন্ডাস্ট্রির জন্য মঙ্গলজনক। সিনেমার অভিনেতা হিসেবে আলেকের অনেক কারিশমাই রয়েছে। সেগুলো সিনেমাতে উপস্থাপন করা গেলে সিনেমারই লাভ।

আলেকজান্ডার বো ১৯৯৫ সালে শহীদুল ইসলাম খোকন পরিচালিত ‘লম্পট’ সিনেমায় অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্রে যাত্রা করেন। সেসময় বেশ কিছু চমৎকার গল্পে তিনি কাজ করে আলোচনায় আসেন।

বিশেষ করে মার্শাল আর্ট ভিত্তিক অভিনয় তাকে জনপ্রিয়তা এনে দিয়েছিলো। পাশাপাশি তার বলিষ্ঠ কণ্ঠও তাকে দর্শকের কাছে অ্যাকশন হিরো হিসেবে পরিচিত করে তুলেছিলো।

নায়ক রুবেল ও পরিচালক শহীদুল ইসলাম খোকনের জুটি অত্যন্ত সফল ছিল নব্বই দশকের শেষ দিকে। এই জুটি ভেঙ্গে যাওয়ার পর খোকন আলেকজান্ডার বো-কে নিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ করতে শুরু করেন। সিমলার বিপরীতে ‘ম্যাডাম ফুলি’ চলচ্চিত্রটি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করলে অভিনেতা হিসেবে সকলের দৃষ্টি কাড়েন আলেক।

মার্শাল আর্টে চারবার ব্ল্যাকবেল্ট জয়ী এই অভিনেতা বাংলাদেশী চলচ্চিত্রে ফুটবল কারাতে উপস্থাপন করে বেশ আলোচিত হয়েছিলেন।

তবে আলেকজান্ডার বো অশ্লীল দৃশ্যের অন্যতম নায়ক হিসেবে অত্যন্ত সমালোচিত। সেই সময়কার অশ্লীল দৃশ্যে পারদর্শি সব নায়িকাদের বিপরীতে কাজ করতেন তিনি। অশ্লীল চলচ্চিত্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ শুরু হলে অন্যান্য অভিনেতাদের মত তিনিও কর্মশূন্য হয়ে পড়েন। শোনা যায়, সে সময় তার অভিনীত প্রায় সতেরোটি চলচ্চিত্রের শুটিং বন্ধ হয়ে যায়।

অবশেষে বেশ লম্বা বিরতির পর ২০১৩ সালে ‘৭১ এর গেরিলা’ চলচ্চিত্র দিয়ে কামব্যাক করেন এই নায়ক। মাঝে আবারও বিরতি শেষে সম্প্রতি বেশ কিছু চলচ্চিত্রে কাজ করেছেন। তবে বর্তমানে তিনি নিজের ইমেজ উদ্ধারের চেষ্টা করছেন। শিল্পীদের সঙ্গে তৈরি করেছেন ভালো সম্পর্ক।

বিশেষ করে সদ্য শেষ হওয়া শিল্পী সমিতির নির্বাচনকে দারুণভাবে প্রভাবিত করা ফাইটিং অ্যাসোসিয়েশন ও নৃত্য পরিচালক সমিতির নেতা-সদস্যদের সঙ্গে তার দারুণ সখ্যতা। সেই সখ্যতারই সুফল ঘরে তুললেন আলেকজান্ডার বো। মৌসুমী, মিশা, রোজিনা, অঞ্জনা, অরুণা, ডিপজল, রুবেলের মতো একঝাঁক জনপ্রিয় তারকাকে পেছনে ফেলে সর্বোচ্চ ভোট দখল করে নিলেন আলেকজান্ডার বো।

এলএ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]