বাংলাদেশ ও তুরস্কের শিল্পীদের নিয়ে ‘সুফী এনকাউন্টার’

বিনোদন প্রতিবেদক
বিনোদন প্রতিবেদক বিনোদন প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:১৮ পিএম, ০৭ ডিসেম্বর ২০২১

মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও তুরস্ক দূতাবাস যৌথভাবে আয়োজন করেছে ‘সুফী এনকাউন্টার’। অনুষ্ঠানটি ৬ ডিসেম্বর সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ৩০ মিনিটে একাডেমির এক্সপেরিমেন্টাল থিয়েটার হলে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ঢাকায় নিযুক্ত তুরস্ক দূতাবাসের মান্যবর রাষ্ট্রদূত মোস্তাফা ওসমান তোরান এবং তুরস্ক থেকে আগত শিল্পীবৃন্দ (Ishak Ürün, Hasan Hekimoğlu, Seyit Sercan Çelik, Burak Malçok)।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী।

অনুষ্ঠানের সাংস্কৃতিক পর্বের শুরুতেই ছিলো তুরস্ক থেকে আগত শিল্পীবৃন্দের পরিবেশনা। পরিবেশনায় ছিলো সুফি ঐতিয্যে প্রভাবিত ঐতিহ্যবাহী বাদ্যযন্ত্রের (ney, oud, cumbus) সমসাময়িক বিশ্ব সংগীতের সাথে ঐতিহ্যবাহী ঘুর্ণায়মান নৃত্য (Whirling Dervishe)।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরিবেশনার মধ্যে ছিলো সমবেত বাউলসংগীত - এসো হে দয়াল, দ্বীনের ডংকা বাজে, কয় দমেতে বাজে ঘড়ি, হাওয়া দমে দেখ তারে, মনচোরা পড়েছে ধরা, মানুষ ভজলে সোনার মানুষ হবি।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির বাউল শিল্পীবৃন্দ দেশীয় যন্ত্র সংগীতের সাথে সমবেত সুফী নৃত্য পরিবেশন করেন। এছাড়াও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির নৃত্যশিল্পীবৃন্দ সত্য বল সুপথে চল, ভবে কেউ কারো নয়, ধন্য ধন্য বলি তারে, সময় গেলে সাধন হবে না, আমার ঘরখানায় কে বিরাজ করে, মিলন হবে কতদিনে, গানের সাথে সমবেত নৃত্য পরিবেশন করেন।

এলএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]