যেভাবে ৮৭ কেজি ওজন কমালো কিশোর

ফিচার ডেস্ক
ফিচার ডেস্ক ফিচার ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:১২ পিএম, ২৭ জানুয়ারি ২০২০

কিশোরের নাম আর্য পারমানা। ইন্দোনেশিয়ার এই কিশোরের বয়স এখন ১৪ বছর। ৪ বছর আগে ওই কিশোরের ওজন ছিল ১৫০ কেজি। কিন্তু অবাক করা বিষয় হলো- গত ৪ বছরে সে ৮৭ কেজি ওজন কমাতে পেরেছে। বর্তমানে আর্য সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবন যাপন করছে।

জানা যায়, ৮ বছর বয়স থেকেই দ্রুত বাড়তে থাকে আর্যর শরীরের ওজন। যা ২ বছরের মধ্যে ১৫০ কেজিতে পৌঁছায়। ২০১৬ সালে তার ওজন নিয়ে পুরো বিশ্ব অবাক হয়। কিন্তু ৪ বছর পর তার ওজন দেখে আরও অবাক সবাই। এ চার বছরে সে ৮৭ কেজি ওজন কমিয়েছে।

সোশ্যাল মিডিয়ার কারণে আর্যর সঙ্গে পরিচিত হয়েছেন অনেকেই। তার শরীরের ছবি ছড়িয়ে পড়েছিল ইন্টারনেটে। তবে এবার সামনে এসেছে তার বর্তমান চেহারা। যা একেবারে অবিশ্বাস্য। কারণ এতটা ওজন কমানো মোটেই সহজ নয়। শুধু নির্দিষ্ট ডায়েট আর শরীরচর্চা করে সে এমন অসাধ্য সাধন করেছে।

fat-in

পরিবার সূত্রে জানা যায়, ৮ বছর বয়স থেকে হঠাৎ লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকে ওজন। ১০ বছর বয়সে চেহারা একেবারে অস্বাভাবিক হয়ে যায়। তারপর ইন্দোনেশিয়া সরকার তার চিকিৎসার দায়িত্ব নেয়। প্রথমে ওঠা-বসা আর পাঞ্চিং দিয়ে শুরু হয় শরীরচর্চা। এরপর ব্যায়াম করতে থাকে। এখন সে লোহাও তুলতে পারে।

আর্যর প্রশিক্ষক জানান, ওজন কমানোর কৃতিত্বটা আসলে আর্যর। ওর মানসিক শক্তিই ওজন কমাতে সাহায্য করেছে। তিনি শুধু পাশে থেকে নির্দেশনা দিয়েছেন। অতিরিক্ত ওজনের কারণে শিশুদের সঙ্গে খেলতে পারত না সে। তবে এখন বন্ধুদের সঙ্গে ফুটবলও খেলতে পারে।

ওজন কমালেও অতিরিক্ত মেদের ভাঁজ তো রয়েই যায়। ফলে সেসব শরীর থেকে অস্ত্রোপচার করে সরিয়েছেন চিকিৎসকরা। তবে আসল কথা হচ্ছে- আর্য নিজেকে বদলাতে পেরেছে। ১৪ বছরের এই কিশোর সবাইকে দেখিয়ে দিলো, মনের জোরে সবই সম্ভব।

এসইউ/এমকেএইচ