নারীদের স্তন ক্যান্সার ছাড়িয়ে পুরুষদের প্রোস্টেট ক্যান্সার

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫৭ এএম, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

যুক্তরাজ্যে স্তন ক্যান্সারের কারণে যত নারীর মৃত্যু হচ্ছে, প্রোস্টেট ক্যান্সারের কারণে তার চেয়ে বেশি পুরুষের মৃত্যু হচ্ছে। এক পরিসংখ্যানে যুক্তরাজ্যে প্রথমবারের মতো এমন চিত্র উঠে এসেছে।

বৃদ্ধ মানুষের সংখ্যা আগের চেয়ে বৃদ্ধি পাওয়ায় দেখা যাচ্ছে- আরও বেশি পুরুষ এ রোগে আক্রান্ত হচ্ছে ও মারা যাচ্ছে।

প্রোস্টেট ক্যান্সার ইউকে বলছে, রোগ নির্ণয় ও চিকিৎসায় ভালো করার জন্য স্তন ক্যান্সার থেকে বেঁচে ফিরতে সফলতা এসেছে। প্রোস্টেট ক্যান্সার নিয়ে গবেষণায় তহবিল বাড়ালে সেটিও লাভজনক হবে।

তবে ক্যান্সারগুলোর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রে ফুসফুস ও বোয়েল ক্যান্সারের কারণেই সবেচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়। আর স্তন ক্যান্সারকে সরিয়ে এখন তৃতীয় অবস্থানে উঠে এল প্রোস্টেট ক্যান্সার।

২০১৫ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী- প্রোস্টেট ক্যান্সারের কারণে ওই বছর মৃত্যু হয়েছে ১১ হাজার ৮১৯ জনের। আর স্তন ক্যান্সারের কারণে মৃত্যু হয়েছে ১১ হাজার ৪৪২ জনের।

গত ১০ বছরে যদিও প্রোস্টেট ক্যান্সারে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে, কিন্তু ২০১০ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত সময়ে এ ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর হার কমেছে।

স্তন ক্যান্সারের কারণে মৃত্যুহারে ১০ শতাংশ কমেছে। অর্থাৎ এই ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে নারীদের মৃত্যুর ঘটনা দ্রুত কমছে।

অপারেশনের পর প্রোস্টেট ক্যান্সার থেকে বেঁচে যাওয়া গ্যারি পেটিট নামে ৪৩ বছর বয়সী এক ব্যক্তি বলছেন, পুরুষদের মধ্যে এটা এখনও একটা নিষিদ্ধ বিষয়ের মতো হয়ে আছে। তারা বিষয়টার জন্য লজ্জা পায় ও বিব্রত বোধ করে। কিন্তু দরকার হলে গিয়ে চেক করাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

দাতব্য সংস্থা প্রোস্টেট ক্যান্সার ইউকের প্রধান নির্বাহী অ্যাঞ্জেলা কুলহেন বলছেন, স্তন ক্যান্সার নিয়ে যে পরিমাণ গবেষণা হয়েছে ও তহবিল এসেছে প্রোস্টেট ক্যান্সারের জন্য এসেছে তার অর্ধেক।

রোগটি নির্ণয়ে এখনও সহজ কোনো পদ্ধতি আবিষ্কৃত হয়নি। তবে এ ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার পরও রোগের কোনো উপসর্গ ছাড়া অনেক পুরুষ বহুদিন বেঁচে থাকতে পারেন। কারণ এটা অনেক সময় ধীরে ধীরে বিস্তার লাভ করে।

প্রোস্টেট ক্যান্সারের লক্ষণগুলো কী
প্রাথমিক অবস্থায় প্রোস্টেট ক্যান্সারের কিছু লক্ষণ থাকতে পারে। আর অবস্থানের কারণে এর প্রায় সবগুলোর সঙ্গে প্রস্রাবের যোগ রয়েছে।

• বারবার প্রস্রাব করার দরকার হবে, বিশেষ করে রাতে।
• টয়লেটে দৌড়ে যাওয়ার মতো প্রয়োজন হবে।
• প্রস্রাব শুরু করতে সমস্যা হবে।
• প্রস্রাবের গতি কম থাকবে বা প্রস্রাব করতে বেশি সময় লাগবে।
• প্রস্রাব পুরোপুরি হলো না- এমন একটা অনুভূতি থাকতে পারে।

প্রোস্টেট ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন এমন পুরুষের পুরুষ আত্মীয়, কৃষ্ণাঙ্গ ও পঞ্চাশোর্ধ্ব পুরুষরা এ রোগের ঝুঁকিতে বেশি থাকেন।

সূত্র: বিবিসি।

এনএফ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :