শুধু ব্যথাই সারায় না, পুরুষদের অন্য উপকারেও আসে ‘অ্যাসপিরিন’

জাগো নিউজ ডেস্ক
জাগো নিউজ ডেস্ক জাগো নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:৩৩ এএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮

‘অ্যাসপিরিন’ সাধারণত ব্যথা বা জ্বর কমানোর ওষুধ হিসেবেই পরিচিত। তবে ‘অ্যাসপিরিন’ নিয়ে বিজ্ঞানীদের এক সমীক্ষায় জানা গেছে অন্য তথ্য। সম্প্রতি এক সমীক্ষায় বিজ্ঞানীরা জানতে পারেন, ‘অ্যাসপিরিন’ হৃদপিণ্ড ও দাঁতের সমস্যায় উপকার করা ছাড়াও পুরুষদের শারীরিক ক্ষমতা বৃদ্ধিতেও বিশেষ ভূমিকা রাখে।

দাঁতের ক্ষয়রোগে অ্যাসপিরিন
বেলফাস্টের কুইন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের করা এক সমীক্ষা জানান, অ্যাসপিরিন টুথপেস্টের সাথে মিশিয়ে দাঁত ব্রাশ করা হলে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে দাঁতের ক্ষয়ের ছিদ্র বন্ধ হতে সহায়তা করে। অ্যাসেটাইলসালিসাইলিক দাঁতের পুণর্নির্মাণ এবং প্রাকৃতিকভাবে পুণর্জন্মে সাহায্য করে।

দীর্ঘায়ু
প্রতিদিন একটি করে মিনি অ্যাসপিরিন সেবন সম্ভবত দীর্ঘায়ু হতে সাহায্য করে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং অস্ট্রেলিয়ার মোট ১৯ হাজার ১১৪ জন বয়স্ক মানুষকে নিয়ে করা এক সমীক্ষায় এমন তথ্য ওঠে এসেছে। সমীক্ষায় জানা যায়, অ্যাসপিরিন বার্ধক্যের নানা অসুখকে দূরে রাখায় ভূমিকা রাখে। এছাড়া ক্যানসার বা বার্ধক্যজনিত অন্য অসুখে অ্যাসপিরিন কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা শিগগিরই জানা যাবে বলে আাশাবাদী বিজ্ঞানীরা।

ডিপ্রেশন বা বিষণ্ণতা কমায়
ইনফেকশন দমনকারী ট্যাবলেট ‘অ্যাসপিরিন’ বিষন্নতা রোধে ভূমিকা রাখতে পারবে বলে বিজ্ঞানীরা আশা করছেন। তারা মনে করেন, কোনো ক্রনিক সংক্রমণ রোগ থেকে ডিপ্রেশন হলে তা দমন করতে পারবে অ্যাসপিরিন। জার্মানির এসেন শহরের দু’জন গবেষক স্বেচ্ছায় অংশগ্রহণকারীদের খুবই সামাম্য পরিমাণে ব্যাকটেরিয়া দমনকারী ওষুধ দেওয়ায় তাদের শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতার মধ্যে ইতিবাচক পরিবর্তন দেখেছেন বলে জানানো হয়।

ধমনীকে পিচ্ছিল করে
হার্ট অ্যাটাক এবং স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে হলে রক্তের জমাটবাঁধা বন্ধ করা জরুরি। এক্ষেত্রে যেসব ওষুধ দেওয়া হয়, তার প্রায় সবগুলোরই পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। এক্ষেত্রে অনেক বিশেষজ্ঞের পরামর্শ অ্যাসপিরিন। তবে তা যেন কোনোভাবেই মাসে দশ দিনের বেশি না হয়। জার্মানির জনপ্রিয় সাপ্তাহিক ম্যাগাজিন বিল্ড ডেয়ার ফ্রাউকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে জার্মান হার্ট ফাউন্ডেশন বোর্ডের প্রধান প্রফেসার হেলমুট গোলকে এমন তথ্য জানিয়েছেন।

পুরুষত্বহীনতায় বাধা দেয় অ্যাসপিরিন
ইরেকটাইল ডিসফাংশন বা পুরুষের লিঙ্গ উত্থানের অক্ষমতাকে দূর করে অ্যাসপিরিন। শুধুমাত্র দিনে ১০০ মিলিগ্রাম ছয় সপ্তাহ নিয়মিত সেবনের মাধ্যমে অ্যাসপিরিন ভায়াগ্রা থেরাপির মতোই কাজ করে। তুরস্কে ১৮৪ জন পুরুষকে নিয়ে করা সমীক্ষা থেকে পাওয়া এ তথ্য প্রকাশ পেয়েছে রেনাল অ্যান্ড ইউরোলজি নিউজ।

মাথা ব্যথা কমানো
বিভিন্ন ব্যথায় নানা ধরনের ট্যাবলেট নিয়ে করা গবেষণার ফলাফলে জানা গেছে, মাথা ব্যথা সারাতে এক নম্বরে রয়েছে অ্যাসপিরিন। তবে বিশেষজ্ঞদের মতে, দাঁতের ব্যথায় অ্যাসপিরিন সেবন না করাই শ্রেয়। সূত্র : ডয়েচে ভেলে

[নোট- যেকোনো ওষুধ চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া গ্রহণ করা উচিত নয়। জাগো নিউজও চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ সেবনের পক্ষে নয়।]

আরএস/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :