গাজার দীর্ঘতম সুড়ঙ্গ ধ্বংস করল ইসরায়েল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫৬ এএম, ১৬ এপ্রিল ২০১৮

জঙ্গিদের তৈরি গাজার দীর্ঘতম একটি সুড়ঙ্গ ধ্বংস করেছে ইসরায়েল। গাজা থেকে ইসরায়েল পর্যন্ত অবস্থিত এই সুরঙ্গ ব্যবহার করতো জঙ্গিরা। সরকারি কর্মকর্তাদের বরাদ দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি।

ইসরায়েলের প্রতিরক্ষামন্ত্রী আভিগদর লিবারম্যান জানিয়েছেন, ফিলিস্তিনিদের তৈরি এ পর্যন্ত যত সুড়ঙ্গ ইসরায়েল আবিষ্কার করেছে এটি তার মধ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ ও গভীর।

এক সামরিক মুখপাত্র জানিয়েছেন, গাজার সাথে যুদ্ধ চলাকালীন ২০১৪ সালে সুরঙ্গটি তৈরি করা হয়। সে সময় ইসরায়েল ত্রিশটিরও বেশি ফিলিস্তিনিদের তৈরি সুড়ঙ্গ ধ্বংস করেছিল। আক্রমণ চালাতে এসব সুরঙ্গ ব্যবহৃত হতো বলে সামরিক ওই মুখপাত্র জানান।

ফিলিস্তিনি জঙ্গিদের নির্মিত এসব সুড়ঙ্গ ধ্বংসের জন্য ইসরায়েল অত্যাধুনিক পদ্ধতি ব্যবহার করছে। ইসরায়েলের সামরিক মুখপাত্র লে. কর্নেল জোনাথন কনরিকাস জানিয়েছেন, এই সুড়ঙ্গটি হামাস নির্মাণ করেছে এবং গাজার উত্তর দিকে অবস্থিত জাবালিয়া এলাকা থেকে শুরু হয়েছে। তিনি বলেন, এটি নাহাল ওজ থেকে ইসরায়েলের ভেতরের বেশ কয়েক মিটার এলাকা পর্যন্ত প্রবেশ করেছে। তবে এর কোনো বহির্গমন পথ ছিল না বলে জানান তিনি।

এটি গাজার অনেক দূর পর্যন্ত বিস্তৃত এবং অন্যান্য সুড়ঙ্গগুলোর সাথে সংযুক্ত যাতে করে এগুলো দিয়ে সহজেই আক্রমণ করা যায়। সামরিক বাহিনীর তথ্য মতে, এটি গত সপ্তাহের শেষের দিকে অকেজো করে দেওয়া হয়েছে।

কনরিকাস বলেন, আমরা সুড়ঙ্গটি বিভিন্ন পদার্থ দিয়ে ভরাট করে দিয়েছি যাতে করে এটি বহুদিন পর্যন্ত ব্যবহারের অনুপযোগী থাকে। গত কয়েক মাসে ধ্বংস করা সুড়ঙ্গগুলোর মধ্যে এটি পঞ্চম সুরঙ্গ।

এসব সুড়ঙ্গে কিছু ফিলিস্তিন জঙ্গি গ্রুপ ইসলামী জিহাদ নির্মাণ করেছে এবং বাকিগুলো গাজা নিয়ন্ত্রণকারী হামাস নির্মাণ করেছে। গত কয়েক বছর ধরে ইসরায়েল এসব সুড়ঙ্গগুলোর উপস্থিতি জানতে এবং নতুন করে সুড়ঙ্গ তৈরি বন্ধ করতে গাজা সীমান্তে বিভিন্ন ধরনের সরঞ্জাম ব্যবহার করছে এবং মাটির নিচে ও উপরে উচ্চ প্রযুক্তি সম্পন্ন প্রতিবন্ধক নির্মাণ করছে।

এসআর/টিটিএন/আরআইপি

আপনার মতামত লিখুন :