সমকামী সম্পর্কে বাধা দেয়ায় স্ত্রীকে হত্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৭:২৮ পিএম, ০৫ ডিসেম্বর ২০১৮

যুক্তরাজ্যের নর্থ ইয়র্কশায়ারের মিডলসব্রোতে চলতি বছরের মে মাসে সন্দেহজনকভাবে খুন হয়েছিলেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত জেসিকা পাটেল। তিনি পেশায় ছিলেন ফার্মাসিস্ট। সেই খুনের ঘটনায় মঙ্গলবার স্থানীয় এক আদালত জেসিকার স্বামী মিতেশ পটেলকে দোষী সাব্যস্ত করেন। তদন্তে জানা যায়, অস্ট্রেলিয়ায় নিজের পুরুষসঙ্গীর সঙ্গে ঘর বাধার জন্য স্ত্রী জেসিকাকে পরিকল্পিতভাবে খুন করেন তিনি।

মিডলসব্রোর শহরতলি এলাকায় চলতি বছরের ১৪ মে মৃত অবস্থায় উদ্ধার হয় ৩৪ বছর বয়সী জেসিকার মরদেহ। প্রথম থেকেই স্ত্রীকে খুনের অভিযোগ অস্বীকার করেন তার স্বামী ৩৭ বছরের মিতেশ। কিন্তু, তদন্তকারীদের উপস্থাপন করা তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আদালত জানায়, মিতেশ নিজের ব্যক্তিগত স্বার্থ চরিতার্থ করতে স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছেন। বিচারক জেমস গস জুরি বোর্ডের কাছে মিতেশের মৃত্যুদণ্ড অথবা যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের প্রস্তাব দিয়েছেন।

তদন্তকারী কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সামাজিক মাধ্যমের একটি ডেটিং অ্যাপে অস্ট্রেলিয়াবাসী অমিত প্যাটেলের সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয় মিতেশের। এরপর তিনি পরিকল্পনা করেন, স্ত্রীকে খুন করে তার বীমার টাকা নিয়ে চিরদিনের জন্য চলে যাবেন অস্ট্রেলিয়া। সেখানে পুরুষসঙ্গী অমিতের সঙ্গে পাকাপাকিভাবে সংসার করার পরিকল্পনা করেন তিনি। তদন্তকারীদের হাতে আসা তথ্য-প্রমাণ অনুযায়ী, মিতেশ সমকামী সম্পর্কে স্থাপন করার জন্য নিজের স্ত্রীকে খুন করেছেন তিনি।

সমকামী ওই সঙ্গীর কাছে স্ত্রী জেসিকাকে খুনের পরিকল্পনার কথা বলেন মিতেশ। এ সংক্রান্ত তথ্য-প্রমাণ পেয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তারা। অমিতের সঙ্গে করা চ্যাটে বিভিন্ন সময়ে তিনি ‘স্ত্রীকে খুন করতে হবে’, ‘ইনসুলিন ওভারডোজ’, ‘স্ত্রীকে হত্যার পরিকল্পনা করতে একজন ষড়যন্ত্রকারী প্রয়োজন’, ‘যুক্তরাজ্যের কোনো হত্যাকারীকে ভাড়া করব’ এমন সব কথা লিখেছিলেন।

এসএ/এমএস

আপনার মতামত লিখুন :