ফ্রান্সে ‘ইয়েলো ভেস্ট’ ঠেকাতে ‘রেড স্কার্ফ’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০:৪৩ এএম, ২৯ জানুয়ারি ২০১৯

 

ফ্রান্স সরকারের বিরুদ্ধে গত ১১ সপ্তাহ ধরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করছেন ‘ইয়েলো ভেস্ট’ আন্দোলনকারীরা। এবার তাদের সহিংসতার বিরোধিতা করতে ‘রেড স্কার্ফ’ পরে মাঠে নেমেছিলেন দশ হাজারেরও বেশি মানুষ।

রোববার দেশটির রাজধানী প্যারিসের বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করেন লাল স্কার্ফ পরা বিক্ষোভকারীরা। এ সময় তারা সহিংসতার বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়।

উল্লেখ্য, জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির কারণে গত ১৭ নভেম্বর থেকে ব্যাপক গণ-আন্দোলনের মুখে পড়েছে ফ্রান্সের ইমানুয়েল ম্যক্রোঁর সরকার। সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোতে আয়োজিত এসব বিক্ষোভ কর্মসূচিতে বিক্ষোভকারীরা ট্যাক্সি চালকদের ব্যবহৃত ইয়েলো ভেস্ট পরে আন্দোলন করছে বলে এটা ‘ইয়োলো ভেস্ট’ আন্দোলন নামে পরিচিতি পেয়েছে।

জ্বালানি কর বাড়ানোর প্রস্তাবের বিরোধিতা করতে এই আন্দোলন শুরু হলেও পরবর্তীতে প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁর কিছু নীতির বিরোধিতার বিষয়টিও সামনে চলে আসে। যেমন- বিক্ষোভকারীদের একাংশ মনে করেন, সরকার ধনীদের পক্ষে কাজ করছেন।

১১ সপ্তাহের আন্দোলনে প্রায় দুই হাজার মানুষ আহত হয়েছেন। এ ছাড়া বিক্ষোভের সময় রাস্তা অবরোধসহ অন্যান্য কারণে প্রাণ হারিয়েছেন ১০ জন।

গত শনিবারও দেশজুড়ে প্রায় ৬৯ হাজার মানুষ বিক্ষোভে অংশ নেয় বলে জানিয়েছে দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তবে আগের চেয়ে এই সংখ্যা কম বলে দাবি করছে তারা।

বিক্ষোভ থামাতে ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ প্রস্তাবিত কর বাতিল করাসহ জাতীয় বিতর্কের আয়োজন করেছেন। সপ্তাহ দুয়েক আগে জাতির উদ্দেশে লেখা এক চিঠিতে সব ধরনের আন্দোলন থামিয়ে বিক্ষোভাকারীদের বিতর্কে অংশগ্রহণের মাধ্যমে ‘ক্ষোভকে সমাধানে’ রূপান্তরিত করার আহ্বান জানান তিনি।

বিতর্ক চলবে ১৫ মার্চ পর্যন্ত। এই সময় প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ বিভিন্ন শহরের টাউন হলে আয়োজিত আলোচনা সভায় অংশ নেবেন। বিতর্কের ফলাফল ১৫ মার্চের পর জানানো হবে বলে চিঠিতে উল্লেখ করেন ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

সূত্র : ডয়েচে ভেলে

এমবিআর/পিআর