অ্যাসপিরিন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০২:০৬ পিএম, ১৫ জানুয়ারি ২০২০

অ্যাসপিরিন ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়। মধ্য বয়স্ক লোকজনের হার্টের সুস্থতার জন্য সাধারণ অ্যাসপিরিন দেওয়া হয়। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭ সালের এক গবেষণা অনুযায়ী, ৬০ বছরের বেশি বয়সী লোকজনের প্রায় ৪০ শতাংশকেই প্রতিদিন কম ডোজের অ্যাসপিরিন সেবন করতে বলা হয়। অনেক সময় এ ক্ষেত্রে প্রেসক্রিপশনেরও প্রয়োজন পড়ে না।

বর্তমানে হার্ট অ্যাটাকে আক্রান্ত হয়েছেন, স্ট্রোক করেছেন বা যাদের হার্টের সমস্যার কারণে এ ধরনের ঝুঁকি আছে বা আগে হার্টের সার্জারি হয়েছে এমন রোগীদেরকেই কেবলমাত্র অ্যাসপিরিন খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের (এনএইচএস) চিকিৎসকরা।

গত কয়েক বছরে এটা নিয়ে বিতর্ক চলছেই যে, আরও বেশি মানুষের প্রতিদিন কম ডোজের অ্যাসপিরিন খাওয়া উচিত কিনা। কারণ বেশ কিছু গবেষণা বলছে যে, অ্যাসপিরিন শুধুমাত্র হার্ট অ্যাটাক বা স্ট্রোকের ঝুঁকিই কমায় না বরং বেশ কিছু ক্যান্সারের ঝুঁকিও কমায়।

যুক্তরাষ্ট্রে ৫০ থেকে ৫৯ বছর বয়সীদের মধ্যে অন্তত ১০ শতাংশ ব্যক্তি যাদের হার্টের বিভিন্ন অসুখের ঝুঁকি আছে তাদের এ ধরনের রোগের ঝুঁকি কমাতে কম ডোজে অ্যাসপিরিন সেবনের পরামর্শ দেওয়া হয়।

অপরদিকে, যেসব রোগীদের ক্ষেত্রে হার্টের বিভিন্ন অসুখের ঝুঁকি অনেক বেশি তাদের প্রতিদিন ৭৫মি.গ্রা. অ্যাসপিরিন খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।

গত মাসে জার্নাল অব দ্য আমেরিকান মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশনে প্রকাশিত এক নতুন গবেষণায় বলা হয়েছে, বয়স্ক ব্যক্তিদের মধ্যে যারা দীর্ঘদিন ধরে সপ্তাহে তিন বা তার বেশি সময় অ্যাপসিরিন গ্রহণ করছে তাদের বোল ক্যান্সার বা ব্রেস্ট ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেক কমে যায়।

টিটিএন/এমএস