করোনা: সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে ২০২২ সাল পর্যন্ত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:৫৭ পিএম, ১৫ এপ্রিল ২০২০

শুধুমাত্র একবার লকডাউনের মাধ্যমেই করোনার প্রকোপ ঠেকানো সম্ভব নয়। এমনকি অল্প কিছুদিন সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে না। আরও কয়েক বছর হয়তো আমাদের এসব মেনে চলতে হবে।

হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞানীরা বলছেন, এক একটি দেশে যেভাবে লকডাউন করা হচ্ছে শুধুমাত্র এভাবে একবার লকডাউনের মাধ্যমেই নভেল করোনার প্রকোপ থামানো যাবে না। এমনকি সামাজিক দূরত্বও হয়তো আগামী ২০২২ সাল পর্যন্ত বজায় রাখা জরুরি বলে মনে করছেন তারা।

আগামী কয়েক বছর এভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা গেলে হাসপাতালগুলোতে রোগীর সংখ্যা অনেক কমবে বলে মনে করছেন তারা। কারণ এতে করে সংক্রমণ খুব বেশি ছড়িয়ে পড়তে পারবে না।

বর্তমানে বিশ্বের ২১০টি দেশ ও অঞ্চলে করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে। এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা অন্যান্য দেশের তুলনায় যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি। একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ডেও সব দেশকে ছাড়িয়ে গেছে যুক্তরাষ্ট্র।

শক্তিধর এই দেশটি যখন করোনা নিয়ে এমন বিপর্যস্ত পরিস্থিতিতে পড়েছে ঠিক এমন সময়ই নতুন এই গবেষণা সামনে এলো। দেশটির ৫০টি অঙ্গরাজ্যেই করোনা হানা দিলেও এখনও সব অঙ্গরাজ্য লকডাউন ঘোষণা করা হয়নি।

scl-2

এদিকে, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন এই গবেষণা বলছে, করোনাভাইরাস হয়তো অন্যান্য কিছু রোগের মতো মৌসুমভিত্তিক হয়ে পড়তে পারে। অর্থাৎ শীতের দিনগুলোতে এই ভাইরাসের প্রকোপ বেড়ে যেতে পারে। শীতের মৌসুমে এই ভাইরাসের সংক্রমণ বাড়তে পারে।

করোনা নিয়ে গবেষণা করা হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই গবেষক দলটির প্রধান স্টিফেন কিসলার বলেন, আমরা এটা খুঁজে বের করতে সক্ষম হয়েছি যে, এককালীন সামাজিক দূরত্ব করোনা প্রতিরোধে যথেষ্ট নয়। বরং দীর্ঘ সময় ধরেই তা মেনে চলা জরুরি।

তবে তার মতে এই ভাইরাসের ওষুধ এবং প্রতিষেধক সহজলভ্য হলে লকডাউনের সময়সীমা এবং কড়াকড়ি শিথিল করা যেতে পারে। কিন্তু যতক্ষণ পর্যন্ত এগুলো আমাদের হাতে আসছে না ততদিন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখলে হাসপাতালগুলো গুরুতর রোগীদের সেবাদানে বেশি সময় পাবে বলে মনে করেন তিনি।

বিভিন্ন জনসমাগম কমিয়ে আনা ও সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কারণে সরাসরি করোনায় সংক্রমণের ঘটনা কমিয়ে আনা সম্ভব হচ্ছে। সে কারণেই এখন করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে বিভিন্ন দেশে লোকজনকে বাড়িতেই থাকার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। প্রয়োজন ছাড়া এখন কেউ ঘর থেকে বের হতে পারছে না।

টিটিএন/পিআর

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

৬৮,০৬,০০৯
আক্রান্ত

৩,৯৬,৭৯৭
মৃত

৩৩,১০,৪১০
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ৬০,৩৯১ ৮১১ ১২,৮০৪
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ১৯,৫১,০০১ ১,১১,২৬৪ ৭,১৮,২৩৯
ব্রাজিল ৬,৩০,৭০৮ ৩৪,৬২৫ ২,৮৮,৬৫২
রাশিয়া ৪,৪৯,৮৩৪ ৫,৫২৮ ২,১২,৬৮০
স্পেন ২,৮৮,০৫৮ ২৮,৭৫২ ১,৯৬,৯৫৮
যুক্তরাজ্য ২,৮৩,৩১১ ৪০,২৬১ ৩৪৪
ভারত ২,৩৬,১৮৪ ৬,৬৪৯ ১,১৩,২৩১
ইতালি ২,৩৪,৫৩১ ৩৩,৭৭৪ ১,৬৩,৭৮১
ফ্রান্স ১,৮৯,২২০ ২৯,১১১ ৭০,৫০৪
১০ পেরু ১,৮৭,৪০০ ৫,১৬২ ৭৯,২১৪
১১ জার্মানি ১,৮৫,৪১৪ ৮,৭৬৩ ১,৬৮,৫০০
১২ তুরস্ক ১,৬৮,৩৪০ ৪,৬৪৮ ১,৩৩,৪০০
১৩ ইরান ১,৬৭,১৫৬ ৮,১৩৪ ১,২৯,৭৪১
১৪ চিলি ১,২২,৪৯৯ ১,৪৪৮ ৯৫,৬৩১
১৫ মেক্সিকো ১,০৫,৬৮০ ১২,৫৪৫ ৭৫,৪৪৮
১৬ সৌদি আরব ৯৫,৭৪৮ ৬৪২ ৭০,৬১৬
১৭ কানাডা ৯৪,৩২৫ ৭,৭০২ ৫২,৫৪৫
১৮ পাকিস্তান ৮৯,২৪৯ ১,৮৩৮ ৩১,১৯৮
১৯ চীন ৮৩,০২৭ ৪,৬৩৪ ৭৮,৩২৭
২০ কাতার ৬৫,৪৯৫ ৪৯ ৪০,৯৩৫
২১ বেলজিয়াম ৫৮,৯০৭ ৯,৫৬৬ ১৬,১১২
২২ নেদারল্যান্ডস ৪৭,১৫২ ৬,০০৫ ২৫০
২৩ বেলারুশ ৪৬,৮৬৮ ২৫৯ ২২,০৬৬
২৪ দক্ষিণ আফ্রিকা ৪৩,৪৩৪ ৯০৮ ২৩,০৮৮
২৫ সুইডেন ৪২,৯৩৯ ৪,৬৩৯ ৪,৯৭১
২৬ ইকুয়েডর ৪১,৫৭৫ ৩,৫৩৪ ২০,৫৬৮
২৭ সংযুক্ত আরব আমিরাত ৩৭,৬৪২ ২৭৪ ২০,৩৩৭
২৮ সিঙ্গাপুর ৩৭,১৮৩ ২৪ ২৪,২০৯
২৯ কলম্বিয়া ৩৫,১২০ ১,০৮৭ ১২,৯২১
৩০ পর্তুগাল ৩৩,৯৬৯ ১,৪৬৫ ২০,৫২৬
৩১ মিসর ৩১,১১৫ ১,১৬৬ ৮,১৫৮
৩২ সুইজারল্যান্ড ৩০,৯৩৬ ১,৯২১ ২৮,৬০০
৩৩ কুয়েত ৩০,৬৪৪ ২৪৪ ১৮,২৭৭
৩৪ ইন্দোনেশিয়া ২৯,৫২১ ১,৭৭০ ৯,৪৪৩
৩৫ ইউক্রেন ২৫,৯৬৪ ৭৬২ ১১,৩৭২
৩৬ পোল্যান্ড ২৫,৪১০ ১,১৩৭ ১২,৪১০
৩৭ আয়ারল্যান্ড ২৫,১৬৩ ১,৬৭০ ২২,৬৯৮
৩৮ ফিলিপাইন ২০,৬২৬ ৯৮৭ ৪,৩৩০
৩৯ আর্জেন্টিনা ২০,১৯৭ ৬১৫ ৬,০৮৮
৪০ রোমানিয়া ২০,১০৩ ১,৩১৬ ১৪,১৪৫
৪১ আফগানিস্তান ১৮,৯৬৯ ৩০৯ ১,৭৬২
৪২ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ১৮,৭০৮ ৫২৫ ১১,৭৩৬
৪৩ ইসরায়েল ১৭,৫৬২ ২৯১ ১৫,০২৬
৪৪ জাপান ১৭,০১৮ ৯০৩ ১৪,৮৬৭
৪৫ অস্ট্রিয়া ১৬,৮৪৩ ৬৭২ ১৫,৭৪২
৪৬ ওমান ১৫,০৮৬ ৭২ ৩,৪৫১
৪৭ পানামা ১৫,০৪৪ ৩৬৩ ৯,৬১৯
৪৮ বাহরাইন ১৩,৮৩৫ ২২ ৮,৫৮৫
৪৯ কাজাখস্তান ১২,৩১২ ৪৮৯ ৬,৯০৩
৫০ বলিভিয়া ১২,২৪৫ ৪১৫ ১,৬৫৮
৫১ ডেনমার্ক ১১,৮৭৫ ৫৮৬ ১০,৬৫৩
৫২ আর্মেনিয়া ১১,৮১৭ ১৮৩ ৩,৫১৩
৫৩ দক্ষিণ কোরিয়া ১১,৬৬৮ ২৭৩ ১০,৫০৬
৫৪ সার্বিয়া ১১,৬৬৭ ২৪৭ ৬,৯৩১
৫৫ নাইজেরিয়া ১১,৫১৬ ৩২৩ ৩,৫৩৫
৫৬ আলজেরিয়া ৯,৯৩৫ ৬৯০ ৬,৪৫৩
৫৭ ইরাক ৯,৮৪৬ ২৮৫ ৪,৫৭৩
৫৮ চেক প্রজাতন্ত্র ৯,৫২০ ৩২৭ ৬,৮৮০
৫৯ মলদোভা ৯,২৪৭ ৩২৩ ৫,২৪০
৬০ ঘানা ৯,১৬৮ ৪২ ৩,৪৫৭
৬১ নরওয়ে ৮,৫১০ ২৩৮ ৮,১৩৮
৬২ মালয়েশিয়া ৮,২৬৬ ১১৬ ৬,৬১০
৬৩ মরক্কো ৮,০৭১ ২০৮ ৭,২৬৮
৬৪ ক্যামেরুন ৭,৩৯২ ২০৫ ৪,৫৭৫
৬৫ অস্ট্রেলিয়া ৭,২৫১ ১০৩ ৬,৬৮৩
৬৬ ফিনল্যাণ্ড ৬,৯৪১ ৩২২ ৫,৮০০
৬৭ আজারবাইজান ৬,৮৬০ ৮২ ৩,৮৭১
৬৮ গুয়াতেমালা ৬,১৫৪ ১৫৮ ৯৭৯
৬৯ হন্ডুরাস ৫,৮৮০ ২৪৩ ৬৪৮
৭০ সুদান ৫,৮৬৫ ৩৪৭ ১,৯২৪
৭১ তাজিকিস্তান ৪,৩৭০ ৪৮ ২,৪৯১
৭২ সেনেগাল ৪,১৫৫ ৪৫ ২,২৭৬
৭৩ জিবুতি ৪,১২৩ ২৬ ১,৭০৭
৭৪ গিনি ৪,০৬০ ২৩ ২,৬৬৭
৭৫ লুক্সেমবার্গ ৪,০৩২ ১১০ ৩,৮৮৫
৭৬ উজবেকিস্তান ৪,০০৭ ১৬ ৩,২৪৭
৭৭ হাঙ্গেরি ৩,৯৭০ ৫৪২ ২,২৪৫
৭৮ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ৩,৭৬৪ ৮১ ৫১২
৭৯ আইভরি কোস্ট ৩,৪৩১ ৩৬ ১,৬০৪
৮০ থাইল্যান্ড ৩,১০২ ৫৮ ২,৯৭১
৮১ গ্রীস ২,৯৬৭ ১৮০ ১,৩৭৪
৮২ গ্যাবন ২,৯৫৫ ২১ ৮১৮
৮৩ নেপাল ২,৯১২ ১১ ৩৩৩
৮৪ এল সালভাদর ২,৮৪৯ ৫৩ ১,২৪৯
৮৫ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ২,৭৯০ ১৪৯ ১,৬৩২
৮৬ হাইতি ২,৭৪০ ৫০ ২৯
৮৭ বুলগেরিয়া ২,৬২৭ ১৫৯ ১,৩৯০
৮৮ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ২,৬০৬ ১৫৯ ১,৯৬৮
৮৯ কেনিয়া ২,৪৭৪ ৭৯ ৬৪৩
৯০ ক্রোয়েশিয়া ২,২৪৭ ১০৩ ২,১১৩
৯১ সোমালিয়া ২,২০৪ ৭৯ ৪১৮
৯২ কিউবা ২,১৩৩ ৮৩ ১,৮৪৮
৯৩ ভেনেজুয়েলা ২,০৮৭ ২০ ৩৩৪
৯৪ মায়োত্তে ২,০৭৯ ২৫ ১,৫২৩
৯৫ কিরগিজস্তান ১,৯৩৬ ২২ ১,৩৪০
৯৬ এস্তোনিয়া ১,৯১০ ৬৯ ১,৬৬৭
৯৭ মালদ্বীপ ১,৮৮৩ ৭১৭
৯৮ আইসল্যান্ড ১,৮০৬ ১০ ১,৭৯৪
৯৯ ইথিওপিয়া ১,৮০৫ ১৯ ২৬২
১০০ শ্রীলংকা ১,৮০১ ১১ ৮৫৮
১০১ লিথুনিয়া ১,৬৯৪ ৭১ ১,৩০২
১০২ স্লোভাকিয়া ১,৫২৬ ২৮ ১,৩৭৯
১০৩ নিউজিল্যান্ড ১,৫০৪ ২২ ১,৪৮১
১০৪ মালি ১,৪৮৫ ৮৭ ৮১৬
১০৫ স্লোভেনিয়া ১,৪৭৯ ১০৯ ১,৩৫৯
১০৬ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ১,৪৫১ ২৯
১০৭ গিনি বিসাউ ১,৩৩৯ ৫৩
১০৮ লেবানন ১,৩১২ ২৮ ৭৬৮
১০৯ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ১,৩০৬ ১২ ২০০
১১০ কোস্টারিকা ১,২২৮ ১০ ৬৯৫
১১১ আলবেনিয়া ১,২১২ ৩৩ ৯১০
১১২ নিকারাগুয়া ১,১১৮ ৪৬ ৩৭০
১১৩ হংকং ১,১০৩ ১,০৪৫
১১৪ জাম্বিয়া ১,০৮৯ ৯১২
১১৫ তিউনিশিয়া ১,০৮৭ ৪৯ ৯৬৯
১১৬ প্যারাগুয়ে ১,০৮৭ ১১ ৫১৬
১১৭ লাটভিয়া ১,০৮৫ ২৫ ৭৮১
১১৮ দক্ষিণ সুদান ৯৯৪ ১০
১১৯ মাদাগাস্কার ৯৭৫ ২০১
১২০ নাইজার ৯৬৬ ৬৫ ৮৬৩
১২১ সাইপ্রাস ৯৬০ ১৭ ৮০৭
১২২ সিয়েরা লিওন ৯২৯ ৪৭ ৫৮০
১২৩ বুর্কিনা ফাঁসো ৮৮৮ ৫৩ ৭৬০
১২৪ উরুগুয়ে ৮৮৭ ২৩ ৭০৯
১২৫ মৌরিতানিয়া ৮৮৩ ৪৩ ৬৯
১২৬ এনডোরা ৮৫২ ৫১ ৭৪১
১২৭ চাদ ৮৩৬ ৬৮ ৬৫৭
১২৮ জর্জিয়া ৮০৫ ১৩ ৬৫০
১২৯ জর্ডান ৭৮৪ ৫৮৬
১৩০ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১৩ ৬৫১
১৩১ সান ম্যারিনো ৬৮০ ৪২ ৪২৮
১৩২ কঙ্গো ৬৩৫ ২০ ১৮২
১৩৩ মালটা ৬২৫ ৫৮৩
১৩৪ জ্যামাইকা ৫৯১ ১০ ৩৬৮
১৩৫ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ৫৮৯ ৩২১
১৩৬ ফিলিস্তিন ৫৭৭ ৩৭৭
১৩৭ চ্যানেল আইল্যান্ড ৫৬১ ৪৬ ৫২৮
১৩৮ উগান্ডা ৫৫৭ ৮২
১৩৯ কেপ ভার্দে ৫৩৬ ২৩৯
১৪০ তানজানিয়া ৫০৯ ২১ ১৮৩
১৪১ টোগো ৪৮৫ ১৩ ২৪০
১৪২ রিইউনিয়ন ৪৮০ ৪১১
১৪৩ ইয়েমেন ৪৬৯ ১১১ ২৩
১৪৪ তাইওয়ান ৪৪৩ ৪২৯
১৪৫ রুয়ান্ডা ৪২০ ২৮২
১৪৬ মালাউই ৪০৯ ৫৫
১৪৭ মোজাম্বিক ৩৫৪ ১১৯
১৪৮ বেনিন ৩৩৯ ১৫১
১৪৯ মরিশাস ৩৩৭ ১০ ৩২৪
১৫০ আইল অফ ম্যান ৩৩৬ ২৪ ৩১২
১৫১ লাইবেরিয়া ৩৩৪ ৩০ ১৭৬
১৫২ ভিয়েতনাম ৩২৮ ৩০৭
১৫৩ মন্টিনিগ্রো ৩২৪ ৩১৫
১৫৪ ইসওয়াতিনি ৩০৫ ২২১
১৫৫ জিম্বাবুয়ে ২৩৭ ৩১
১৫৬ মায়ানমার ২৩৬ ১৫১
১৫৭ লিবিয়া ২০৯ ৫২
১৫৮ মার্টিনিক ২০২ ১৪ ৯৮
১৫৯ মঙ্গোলিয়া ১৯১ ৭০
১৬০ ফারে আইল্যান্ড ১৮৭ ১৮৭
১৬১ জিব্রাল্টার ১৭৪ ১৫৩
১৬২ গুয়াদেলৌপ ১৬৪ ১৪ ১৪৪
১৬৩ কেম্যান আইল্যান্ড ১৬৪ ৯৩
১৬৪ গায়ানা ১৫৩ ১২ ৭৭
১৬৫ ব্রুনাই ১৪১ ১৩৮
১৬৬ বারমুডা ১৪১ ১১৩
১৬৭ কমোরস ১৩২ ৫৫
১৬৮ কম্বোডিয়া ১২৫ ১২৩
১৬৯ সিরিয়া ১২৪ ৫৩
১৭০ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ১১৭ ১০৮
১৭১ বাহামা ১০২ ১১ ৫৫
১৭২ আরুবা ১০১ ৯৮
১৭৩ মোনাকো ৯৯ ৯২
১৭৪ বার্বাডোস ৯২ ৮১
১৭৫ সুরিনাম ৯০
১৭৬ অ্যাঙ্গোলা ৮৬ ২১
১৭৭ লিচেনস্টেইন ৮২ ৫৫
১৭৮ সিন্ট মার্টেন ৭৭ ১৫ ৬১
১৭৯ বুরুন্ডি ৬৩ ৩৩
১৮০ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ৬০ ৬০
১৮১ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ৫৪
১৮২ ভুটান ৪৮ ১১
১৮৩ ম্যাকাও ৪৫ ৪৫
১৮৪ সেন্ট মার্টিন ৪১ ৩৩
১৮৫ বতসোয়ানা ৪০ ২৩
১৮৬ ইরিত্রিয়া ৩৯ ৩৯
১৮৭ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ২৬ ২০
১৮৮ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড ২৬ ১৫
১৮৯ গাম্বিয়া ২৬ ২০
১৯০ নামিবিয়া ২৫ ১৬
১৯১ পূর্ব তিমুর ২৪ ২৪
১৯২ গ্রেনাডা ২৩ ২২
১৯৩ কিউরাসাও ২১ ১৫
১৯৪ নিউ ক্যালেডোনিয়া ২০ ১৮
১৯৫ সেন্ট লুসিয়া ১৯ ১৮
১৯৬ লাওস ১৯ ১৮
১৯৭ ডোমিনিকা ১৮ ১৬
১৯৮ ফিজি ১৮ ১৮
১৯৯ বেলিজ ১৮ ১৬
২০০ সেন্ট কিটস ও নেভিস ১৫ ১৫
২০১ গ্রীনল্যাণ্ড ১৩ ১৩
২০২ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড ১৩ ১৩
২০৩ ভ্যাটিকান সিটি ১২
২০৪ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড ১২ ১১
২০৫ সিসিলি ১১ ১১
২০৬ মন্টসেরাট ১১ ১০
২০৭ জান্ডাম (জাহাজ)
২০৮ পশ্চিম সাহারা
২০৯ পাপুয়া নিউ গিনি
২১০ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস
২১১ সেন্ট বারথেলিমি
২১২ লেসোথো
২১৩ এ্যাঙ্গুইলা
২১৪ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।

টাইমলাইন