প্যাংগংয়ে এখনও রয়েছে চীনা সেনাদের উপস্থিতি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৯:৫৬ এএম, ১২ জুলাই ২০২০

প্যাংগং হ্রদ থেকে এখনও সব সেনা সরিয়ে নেয়নি চীন। লাদাখের ফিঙ্গার ৪ এলাকা থেকে কিছু সেনা সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। প্যাংগং হ্রদ থেকে তাদের কিছু নৌকাও সরে গেছে। তবে প্যাংগং এলাকায় এখনও চীনা সেনাদের আংশিক উপস্থিতি রয়েছে বলে ভারতীয় সেনাবাহিনী সূত্র জানিয়েছে। 

গালওয়ান উপত্যকায় দুপক্ষ যে শর্তে সেনাদের পিছিয়ে নিয়েছে তাতে এক কিলোমিটার অঞ্চল চীনের দখলে চলে গেছে বলে অভিযোগ করেছে ভারত।

ভারত চায় চীন ফিঙ্গার ৮-এ তাদের ছাউনিতে ফিরে যাক। সিরিজাপ ১ ও ২ এ তাদের পাকা ঘাঁটিতে চলে যাক। কিন্তু চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মি ফিঙ্গার-২ পর্যন্ত দখল নিতে চায়।

ফিঙ্গার রিজিয়নের আটটি ফিঙ্গার ভারতের অন্তর্গত বলে বরাবরই দাবি করে আসছে নয়াদিল্লি। এই আট ফিঙ্গার যেখানে শেষ হচ্ছে সেখানেই ভারত-চীন সীমান্তের নিয়ন্ত্রণ রেখা। এ বিষয়ে চিনের দাবি কিছুটা আলাদা।

চীন বলছে, চার নম্বর ফিঙ্গার পর্যন্ত ভারতের এলাকা এবং বাকি চারটি ফিঙ্গার চীন সীমান্তের মধ্যে পড়েছে। চলতি বছরের মে মাসে আট নম্বর ফিঙ্গারের দিকে টহল দিতে যাওয়ার পথে ভারতীয় বাহিনীর পথ আটকে ছিল চীনা সেনারা।

এর আগে স্যাটেলাইট চিত্রে ফিঙ্গার চার অঞ্চলে চীনের বিভিন্ন নির্মাণকাজের ছবি ধরা পড়েছিল।

উল্লেখ্য, লাদাখে প্যাংগং লেকের ধারে আটটি পরপর সরু অঞ্চল রয়েছে। এর মধ্যে ফিঙ্গার চার অঞ্চলে চীনা আগ্রাসন রুখতে গিয়ে চীনের সঙ্গে সংঘাতে কমপক্ষে ২০ জন ভারতীয় সেনা নিহত হয়।

এখন পর্যন্ত দুই দেশের কমান্ডার পর্যায়ে তিনটি বৈঠক হয়েছে। গালওয়ান, হটস্প্রিং এবং গোগরা থেকে চীনা সেনারা সরে গেছে। ভারতীয় সেনাবাহিনী বলছে, প্যাংগংয়ের মোট আটটি ‘ফিঙ্গার’ এলাকা রয়েছে। এর মধ্যে ফিঙ্গার-৪ এ চীনা সেনাদের উপস্থিতি কমে এসেছে ঠিকই। কিন্তু এখনও ফিঙ্গার এলাকায় চীনা সেনাদেরই আধিপত্য রয়েছে। একাধিক ঝর্নার কাছে চীনের তাঁবু এখনও রয়েছে।

টিটিএন/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]