সামরিক অভ্যুত্থান: সুদানকে অর্থ দেওয়া বন্ধ করলো বিশ্বব্যাংক

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:২০ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২১
ছবি: সংগৃহীত

সামরিক বাহিনী ক্ষমতা দখলের জেরে সুদানের জন্য বরাদ্দ সবধরনের আর্থিক সহায়তা স্থগিত করেছে বিশ্বব্যাংক। এর আগে, একই কারণে সুদানের সদস্যপদ স্থগিত করেছে আফ্রিকান ইউনিয়ন (এইউ)। আফ্রিকান দেশটির প্রায় ৭০০ মিলিয়ন ডলারের ত্রাণ সহায়তা আটকে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রও। এর ফলে কয়েক দশক পর কিছুটা অর্থনৈতিক উন্নয়নের মুখ দেখা সুদানের ভব্যিষ্যৎ আবারও গভীর অন্ধকারে ডুবতে বসেছে। খবর বিবিসির।

প্রায় দু’বছর ধরে সামরিক-বেসামরিক নেতাদের মধ্যে ক্ষমতা ভাগাভাগি করে চলছিল সুদানের শাসনব্যবস্থা। কিন্তু গত সোমবার (২৫ অক্টোবর) দেশটির শীর্ষ রাজনৈতিক নেতাদের বন্দি করে ক্ষমতা দখল করেন জেনারেল ফাত্তাহ আল-বুরহাম। প্রধানমন্ত্রী আব্দাল্লাহ হামদককে গৃহবন্দি ও বেশ কয়েকজন মন্ত্রীকে গ্রেফতারের পাশাপাশি দেশব্যাপী জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেন তিনি।

এর পরপরই সামরিক অভ্যুত্থানের প্রতিবাদে রাস্তায় নেমে আসেন সুদানের হাজার হাজার মানুষ। নিন্দার ঝড় ওঠে আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও। সুদানে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠায় এরই মধ্যে সরব হয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশ ও সংস্থা।

jagonews24

ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বব্যাংকের প্রেসিডেন্ট ডেভিড মালপাস এক বিবৃতিতে বলেছেন, সুদানের সাম্প্রতিক ঘটনাবলিতে আমি খুবই উদ্বিগ্ন। দেশটির সামাজিক ও অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধার এবং উন্নয়নে এর নাটকীয় প্রভাব পড়বে বলে আশঙ্কা করছি।

প্রায় ৩০ বছরের মধ্যে গত মার্চে প্রথমবারের মতো বিশ্বব্যাংক থেকে কোটি কোটি ডলারের সহায়তা পাওয়া শুরু করেছিল সুদান। সেসময় মালপাস বলেছিলেন, বহু বছর চরম সংকটে থাকা দেশটি কিছুটা অর্থনৈতিক উন্নতির পথে হাঁটছে।

ক্ষমতাচ্যুত সুদানিজ প্রধানমন্ত্রী হামদকের ভাষ্যমতে, দেশটির কৃষি, পরিবহন, স্বাস্থ্য ও শিক্ষাসহ বিভিন্ন খাতে বিশ্বব্যাংক প্রায় ৩০০ কোটি ডলার সহায়তা দিয়েছে। গত মাসে এক বক্তব্যে তিনি বলেছিলেন, প্রাপ্ত অর্থসহায়তায় পরিবর্তনের সুফল আসতে শুরু করেছে, অর্থনীতি স্থিতিশীল হওয়ার লক্ষণ দেখা যাচ্ছে।

কিন্তু সামরিক অভ্যুত্থানের জেরে সেসব উন্নতি এখন আবার হুমকিতে পড়লো।

কেএএ/এএসএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]