খারকিভে ‘জয়ী’ হয়েছে ইউক্রেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
আন্তর্জাতিক ডেস্ক আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৩:৩৫ পিএম, ১৪ মে ২০২২

ইউক্রেনের খারকিভ শহরে লড়াইয়ে দেশটির সৈন্যরা জয়ী হয়েছে বলে মনে করছে যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক থিঙ্ক ট্যাঙ্ক দ্য ইনস্টিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব ওয়ার (আইওডব্লিউ)। সংস্থাটি বলছে, বিভিন্ন তথ্য প্রমাণ থেকে মনে হচ্ছে ইউক্রেন ওই অঞ্চলে জয়লাভ করেছে।

রাশিয়া ওই অঞ্চল থেকে পুরোপুরি সৈন্য প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলেও ধারণা করা হচ্ছে। ওই অঞ্চলে ইউক্রেনীয় সৈন্যদের তীব্র প্রতিরোধের মুখে পিছু হটতে বাধ্য হয়েছে রুশ সেনারা। সেখানে রুশ সেনারা শক্ত অবস্থান নিতে ব্যর্থ হয়েছে।

সর্বশেষ মূল্যায়নে আইওডব্লিউ বলছে, রাশিয়া হয়তো সুশৃঙ্খলভাবেই সৈন্য প্রত্যাহার করছে এবং রুশ নাগরিকদের দেশে ফেরানোর বিষয়টিকেই অগ্রাধিকার দিচ্ছে।

ইউক্রেনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত খারকিভ শহরটি দূর্গের শহর হিসেবে পরিচিত। মূলত ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলার পরই ওই অঞ্চলের এমন নামকরণ করা হয়েছে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে আকস্মিক হামলা চালায় মস্কো। তারপর থেকেই এটি রুশ বাহিনীর কাছে কৌশলগত গুরুত্বপূর্ণ শহর হয়ে ওঠে।

কিন্তু দুই মাসেরও বেশি সময় পরেও তারা ওই শহরের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নিতে ব্যর্থ হয়েছে। আইওডব্লিউ-এর মতে, তারা এখন হয়তো এই প্রচেষ্টাও ত্যাগ করছে।

এদিকে যুদ্ধ-সংঘাতে নিহত রুশ সেনাদের মরদেহ সংগ্রহ করা শুরু করেছে ইউক্রেন। খবর পাওয়া গেছে, ইউক্রেনে নিহত রাশিয়ান সৈন্যদের মৃতদেহ কিয়েভের বাইরে একটি রেল ইয়ার্ডে আনা হচ্ছে এবং একটি রেফ্রিজারেটেড ট্রেনে রাখা হচ্ছে। রুশ সেনাদের মরদেহ নিজ দেশে তাদের স্বজনদের কাছে ফেরত পাঠাবে ইউক্রেন সরকার।

ইউক্রেনের প্রধান বেসামরিক ও সামরিক যোগাযোগবিষয়ক কর্মকর্তা ভলোদিমির লিয়ামজিন বলেছেন, রুশ সেনাদের বেশিরভাগ মরদেহ পাওয়া গেছে কিয়েভ অঞ্চলে। এ ছাড়া চেরনিহিভসহ আরও কয়েকটি অঞ্চলেও পাওয়া গেছে তাদের মরদেহ।

তিনি আরও বলেন, ইউক্রেনের অন্যান্য অঞ্চলে অবস্থান করা রেফ্রিজারেটেড ট্রেনগুলো একই কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে।

টিটিএন/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]