শীতে এক উপাদানেই সারবে সর্দি-কাশি ও গলাব্যথা

লাইফস্টাইল ডেস্ক
লাইফস্টাইল ডেস্ক লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ১১:২৩ এএম, ২৪ নভেম্বর ২০২১

শীতে বিভিন্ন রোগ ব্যাধির ঝুঁকি অনেকটাই বেড়ে যায়। বিশেষ করে এ সময়ের ঠান্ডা আবহাওয়ায় ছোট-বড় সবাই ভোগেন জ্বর-সর্দি-কাশিতে। ঋতু পরিবর্তনের ফলে শীতে হাঁচি, কাশি ইত্যাদি লেগেই থাকে। তাই সবারই এ সময় সাবধান থাকা জরুরি।

অন্যদিকে সামান্য অসুস্থ হলেই অনেকে মুঠো মুঠো ওষুধ খান। যা মোটেও ঠিক নয়। যে কোনো অসুখ হলেই তা প্রাকৃতিকভাবে সারিয়ে তোলার চেষ্টা করতে হবে। ঠিক তেমনই শীত আসতেই ভরসা রাখুন মধুতে।

শুধু সর্দি, কাশি থেকে বাঁচাতেই নয় বরং অ্যান্টিসেপ্টিক হিসেবেও কাজ করে এই উপাদানটি। শীতে মধুর উপকারিতা অনেক। তবে এ উপাদানের সবচেয়ে বড় গুণ হলো সর্দি-কাশি নিরাময় করে। একইসঙ্গে গলা ব্যথাও দ্রুত সারায় মধু।

hani1

আপনি যদি প্রতিদিন সকালে নিয়ম করে তুলসি ও মধু খান, তাহলে আপনার ঠান্ডা লাগবেই না। আবার পুরোনো কাশিও সেরে যাবে। এ ছাড়াও ঠান্ডা লেগে গলা খুসখুস করলে বা দীর্ঘদিনের কাশি থাকলেও ভরসা রাখতে পারেন মধুতে।

এক্ষেত্রেও মধু দিয়ে পাঁচন তৈরি করে খেয়ে নিন। গরম পানীয় গলার কাছে জমে থাকা কফ বের করে দেয়। গলার খুসখুসে ভাবও কমিয়ে দেয় মধু। নিয়মিত মধু খেলে আপনার কাশি ঠিক হয়ে যাবে।

এমনকি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতেও মধু অনেক কার্যকরী। মধুতে থাকা অ্যান্টি অক্সিডেন্টস শরীরের ইমিউন সিস্টেমকে ঠিক রাখে।

এমনকি স্মৃতিশক্তি ঠিক রাখতেও সাহায্য করে মধু। এর শক্তিশালী অ্যান্টি অক্সিডেন্টস মস্তিষ্ককে সুরক্ষিত রাখে। ফলে স্মৃতিশক্তি ঠিক থাকে।

একইসঙ্গে অ্যালঝাইমার্স অসুখের সম্ভাবনাও অনেকটা কমিয়ে দেয়। তাই শীতে অবশ্যই মধু রাখুন সঙ্গে।

সূত্র: পিঙ্কভিলা

জেএমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]