ওজন কমিয়ে শরীর ফিট রাখার উপায়

লাইফস্টাইল ডেস্ক
লাইফস্টাইল ডেস্ক লাইফস্টাইল ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৪:৫০ পিএম, ১৮ জানুয়ারি ২০২১

ওজন কমানো যে কতটা কষ্টের, তা শুধু স্বাস্থ্যবান ব্যক্তিই জানেন! বলিউড নায়িকাদের দেখে অনেকেই উৎসাহ পান ওজন কমানোর। তবে সোনাক্ষী সিনহা, আলিয়া ভাট, সোনাম কাপুর, সারা আলী খানদের ছিল অতিরিক্ত ওজন। তারপরও কঠোর অধ্যবসায়ের মাধ্যমে ওজন কমিয়ে বলিউড কুইনের তকমা পেয়েছেন।

বিশেষ করে অভিনয় জগতে আসার পর থেকে ওজন নিয়ে নানা সমালোচনার মুখোমুখি হয়েছেন সোনাক্ষী। পরিশ্রম করে বাড়তি মেদ ঝরিয়ে তিনি মোহময়ী হয়ে উঠেছেন। ফিট থাকাটাই যেন তার মূল লক্ষ্য! বলিউডের এ নায়িকা কীভাবে ৩০ কেজি কমিয়ে শরীর কিভাবে ফিট রেখেছেন, চলুন জেনে নেওয়া যাক-

ফিট দেখানোর জন্য সোনাক্ষী প্রথমে ৩০ কেজি ওজন ঝরান। একদিকে যেমন তিনি জিম শুরু করেন; অন্যদিকে তেমনই মানতেন কড়া ডায়েট। পরিমাণে কম খেয়ে বারবার খাওয়া, দৈনিক শরীরচর্চা, দিনে দু’বার জিমে যাওয়া, কম কার্বোহাইড্রেট ও বেশি প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খেতেন। পাশাপাশি ওজন কমানোর জন্য যোগব্যায়াম, কার্ডিও, জুম্বা, অ্যারোবিকস করেন।

jagonews24

সম্প্রতি ইনস্টাগ্রামে সোনাক্ষী তার শরীরচর্চার একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। যেখানে দেখা যাচ্ছে, তিনি দড়ি লাফাচ্ছেন। আসলেই দ্রুত মেদ ঝরানোর কার্যকরী এক উপায় হলো নিয়ম করে প্রতিদিন দড়ি লাফানো। স্কিপিং করার সময় অবশ্যই দড়িটি লম্বায় ১২ ফুট কি-না দেখে নেবেন। আর প্রথম দিকে এ ধরনের ব্যায়াম দিনে ১৫ মিনিট করবেন। দু’সপ্তাহ পর থেকে ধীরে ধীরে সময় বাড়াতে হবে। প্রত্যেকবার লাফ দেওয়ার মাঝে অন্তত ৩০ সেকেন্ড বিরতি দিতে হবে।

এবার জেনে নিন দড়ি লাফের উপকারিতা-

>> মাত্র ১ মিনিট দড়ি লাফালে ১০ ক্যালোরি বার্ন হয়। হাতে দড়ি না দিয়েও স্কিপিং করা যায়।

jagonews24

>> দড়ি লাফ করার কারণে অল্প সময়েই শরীর দিয়ে ঘাম বের হয়। যার ফলে ত্বকের মধ্য থেকে টক্সিন বের হয়ে যায়। যা মুখের ওপর টানটান ভাব আনবে ও উজ্জ্বল হবে।

>> সম্প্রতি এনসিবিআইয়ের এক নিবন্ধে বলা হয়েছে, শারীরিক কার্যকলাপে সরব না থাকায় মানুষের মনে হতাশা বাড়ছে। জাম্পিং করলে শরীর ও মন দু’টাই ভালো থাকে।

>> দড়ি লাফের ফলে আপনার মাংসপেশী টোনড হবে।

jagonews24

>> গবেষণায় দেখা গেছে, স্কিপিং জয়েন্টে কম চাপ তৈরি করে দৌড়ানোর চেয়ে। তাই দৌড়ানোর চেয়ে স্কিপিং ভালো ব্যায়াম হিসেবে পরিচিত।

>> স্কিপিং করলে হার্ট বিট বেড়ে যায়। তাই এটি আপনাকে আলাদা করে কার্ডিও ভাস্কুলার এক্সারসাইজ করতে হবে না।

জেএমএস/এসইউ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]