সৈকত ধারার পাঁচটি কবিতা

সাহিত্য ডেস্ক সাহিত্য ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৫:৫৪ পিএম, ১২ জানুয়ারি ২০২০

ভেদ-অভেদ
আলিফে আল্লাহ, মীমে মুহাম্মদ;
মাঝখানে লামের পর্দার ভেদ জানে জিবরিল।
আশিক জানে, মাশুকে কেমনে লীন হয় মন ও শরীল।

জন্ম
জন্ম কি হয় ক্রমান্বয়…?
জ্ঞানীরা বলেন:
এক জনমে পুরোপুরি জন্মায় না সব মানুষ!
সাধু-কথা, অনবধানতা মানি কী করে?
মৃত্যু অবধি মানুষের জন্ম হয় ক্রমান্বয়ে...

বীজ
এক তব্দা-খাওয়া বীজ
শিমুল তুলার সাথে উড়ল কিছুকাল...
তারপর মাটিতে পড়লেই সে হয়তো
পোকার খাদ্য হবে!
এই অবসরে-
একমুঠো ছাই খুঁজে পাওয়া কতটা সাধ্যাতীত?

মাঠ
ইত্যবসরে চারিদিক থেকে নেমে এল শীত!
সদাফল ঝরা প্রপাত, তার আজানুলম্বিত
চিবুকের হাড় গুটিয়ে নিল জলে।
পৃথিবীর লীনাঙ্গিনী নদীটি তবু মৃতরেখায়
উপচে পড়া জলের কসমিক বন হয়ে হাসে।
এ হাসির প্রসন্ন খাদ!
এক ঋতু-ভাদরে সবুজাভ বনেরও বন্যা...
ইত্যবসরে হাসির তোড়ে ফসলের আজানুলম্বিত মাঠ

সুরিয়া
চড়ুইয়ের তড়িৎ প্রবাহ,
রোদমাখা ধুলো অথবা ধুলোমাখা রোদে;
সুরিয়া নদীর পৃথিবীতে।

এসইউ/জেআইএম