EN
  1. Home/
  2. আন্তর্জাতিক

চীনের গোপন জীবাণু যুদ্ধাস্ত্র গবেষণাগার থেকে ছড়িয়েছে করোনাভাইরাস!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | প্রকাশিত: ০৭:১৫ পিএম, ২৭ জানুয়ারি ২০২০

চীনের উহান শহরের গোপন জীবাণু যুদ্ধাস্ত্র গবেষণাগার থেকে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বলে দাবি করেছেন ইসরায়েলের সামরিক গোয়েন্দা বাহিনীর সাবেক এক কর্মকর্তা। প্রাণঘাতী চীনা করোনাভাইরাস বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে উহানের গোপন ওই জীবাণু গবেষণাগারের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে বলে চাঞ্চল্যকর দাবি করেছেন তিনি।

মার্কিন প্রভাবশালী দৈনিক ওয়াশিংটন টাইমস ইসরায়েলি ওই সামরিক সাবেক কর্মকর্তার দাবির চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়ে খবর প্রকাশ করেছে।

২০১৫ সালে উহান টেলিভিশনের একটি প্রতিবেদন গত সপ্তাহে প্রচার করেছে রেডিও ফ্রি এশিয়া। উহান টেলিভিশনের এই প্রতিবেদনে বলা হয়, চীনের সবচেয়ে উন্নত ভাইরাস গবেষণাগার উহানে রয়েছে। যা উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজি নামে পরিচিত। চীন ঘোষণা দিয়ে প্রাণঘাতী সব ভাইরাসের গবেষণা একমাত্র এই গবেষণাগারেই করে।

china-virus

ইসরায়েলি সাবেক সামরিক গোয়েন্দা কর্মকর্তা ড্যানি শোহাম চীনের জীবাণু যুদ্ধাস্ত্র নিয়ে অধ্যাপনা করেছেন। তিনি বলেন, চীনের গোপন জীবানু অস্ত্র কর্মসূচির সঙ্গে উহান ইনস্টিটিউট অব ভাইরোলজির সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। এই ইনস্টিটিউটের কিছু ল্যাবরেটরিতে চীনের নতুন নতুন জীবাণু অস্ত্র তৈরি এবং এসব অস্ত্র নিয়ে গোপনে গবেষণা করা হয়।

এক ই-মেইল বার্তায় ওয়াশিংটন টাইমসকে ড্যানি শোহাম বলেন, সামরিক-বেসামরিক গবেষণার অংশ হিসাবে অত্যন্ত গোপনীয়তার সঙ্গে জীবাণু অস্ত্রের ওপর সেখানে কাজ পরিচালিত হয়। মেডিক্যাল মাইক্রোবায়োলজিতে ডক্টরেট করেছেন ইসরায়েলি সাবেক এই সামরিক কর্মকর্তা।

ড্যানি শোহাম ১৯৭০ থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত মধ্যপ্রাচ্য এবং বিশ্বজুড়ে ইসরায়েলের সামরিক গোয়েন্দা শাখার জীবাণু এবং রাসায়নিক অস্ত্রের জ্যেষ্ঠ বিশ্লেষক হিসেবে কাজ করেছেন। ইসরায়েলি সামরিক বাহিনীর লেফটেন্যান্ট কর্নেল পদমর্যাদার কর্মকর্তা ছিলেন।

কোনও ধরনের গোপন জীবাণু অস্ত্র গবেষণাগার থাকার অভিযোগ দীর্ঘদিন ধরে প্রত্যাখ্যান করে আসছে চীন। কিন্তু গত বছর মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের চীনের গোপন জীবাণু যুদ্ধাস্ত্র গবেষণাগারে গবেষণা চলছে বলে জানায়। এ ব্যাপারে মন্তব্য জানতে ই-মেইলে যোগাযোগ করা হলে যুক্তরাষ্ট্রে নিযুক্ত চীনা দূতাবাসের এক কর্মকর্তা কোনও জবাব দেননি।

china-virus

চীনা কর্তৃপক্ষ বলছে, তারা এই করোনাভাইরাসের উৎপত্তি কোথায় থেকে হয়েছে সেব্যাপারে এখনও পরিষ্কারভাবে জানতে পারেনি। চীনে এই ভাইরাসে আড়াই হাজারের বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন এবং সোমবার পর্যন্ত ৮১ জনের প্রাণহানি ঘটেছে।

চীনা রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ সেন্টারের পরিচালক জ্যাও ফু দেশটির সরকারি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, প্রাথমিক তথ্য-উপাত্তে উহানের সামুদ্রিক খাবারের বাজারে বিক্রি হওয়া প্রাণীর দেহ থেকে এই ভাইরাসের বিস্তার ঘটেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

মার্কিন সামরিক বাহিনীর এক কর্মকর্তা বলেছেন, জীবাণু অস্ত্র গবেষণাগার থেকে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার ঘটনাকে আড়াল করতে চীনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এখনও ভুয়া তথ্য ছড়ানো হচ্ছে। এতে বলা হচ্ছে, চীনের বিরুদ্ধে জীবাণু অস্ত্র ছড়িয়ে দেয়ার মিথ্যা ষড়যন্ত্র তত্ত্ব প্রচার করছে যুক্তরাষ্ট্র। উহানের বেসামরিক এবং প্রতিরক্ষা গবেষণাগার থেকে নতুন করোনাভাইরাসের বিস্তার হয়েছে; এই অভিযোগ মোকাবেলার জন্য চীন প্রোপাগাণ্ডা চালানোর প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ওই মার্কিন কর্মকর্তা।

এসআইএস/জেআইএম