EN
  1. Home/
  2. আন্তর্জাতিক

কত দেশে ছড়িয়ে পড়েছে করোনাভাইরাস?

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | প্রকাশিত: ০৪:০৬ পিএম, ২৮ জানুয়ারি ২০২০

বিশ্বব্যাপী প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। সময়ের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মৃতের সংখ্যা বাড়ছেই। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ১০৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। নতুন করে এক হাজার ৩শ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ফলে এখন পর্যন্ত চার হাজার ১৯৩ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

মূলত চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে গত বছরের ডিসেম্বরে প্রথম এই ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। সামুদ্রিক খাবারের একটি বাজার থেকেই এই ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়েছে বলে ধারণা করা হয়। চীনের বিভিন্ন শহর ছাড়াও থাইল্যান্ড, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, ভিয়েতনাম, সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়া, নেপাল, ফ্রান্স, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, জার্মানি, কম্বোডিয়া, শ্রীলঙ্কা এবং তাইওয়ানে এই ভাইরাসে আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে।

হুবেই প্রদেশের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, সেখানে ২৪ জনের বেশি মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। সোমবার পর্যন্ত সেখানে এক হাজার ২৯১ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। চীনা কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, আক্রান্তদের মধ্যে অধিকাংশই হুবেই প্রদেশের বাসিন্দা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা নতুন এই ভাইরাসের নাম দিয়েছে ২০১৯ নভেল করোনাভাইরাস। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে চীনে সফর করেছেন এমন লোকজনের মাধ্যমেই এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে। সে কারণে অনেক দেশই এই ভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে চীন সফরে নাগরিকদের ওপর নিষেধাজ্ঞা এনেছে।

এই ভাইরাস বিপজ্জনক হয়ে উঠছে কারণ এ বিষয়ে এখনও ভালোভাবে জানা সম্ভব হয়নি। বিশেষ করে এই ভাইরাস কতটা বিপজ্জনক এবং এটা একজন থেকে আরেকজনের শরীরে কীভাবে ছড়িয়ে পড়ছে এ বিষয়গুলো এখনও পরিষ্কার নয়।

এখন পর্যন্ত এটা জানা সম্ভব হয়েছে যে, এই ভাইরাস থেকে নিউমোনিয়া হবার আশঙ্কা রয়েছে। অনেক ক্ষেত্রেই এটা অনেক ভয়াবহ হতে পারে। অপরদিকে, করোনাভাইরাস সংক্রমণের ক্ষমতা আরও প্রবল হচ্ছে এবং সংক্রমণ আরও বাড়তে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছে চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন।

চীনের দক্ষিণ উপকূলের স্বায়ত্তশাসিত মেকাও অঞ্চলে মঙ্গলবার ছয়জনের এই ভাইরাসে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। অপরদিকে হংকংয়ে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে আটজন।

corona-2

চীনে এই ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে ৫৮ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে। চীন ছাড়াও যেসব দেশে এই ভাইরাসের প্রকোপ দেখা দিয়েছে সেগুলো হলো:

অস্ট্রেলিয়া
এখন পর্যন্ত অস্ট্রেলিয়ায় পাঁচজনের করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হবার খবর পাওয়া গেছে। এরা সবাই উহান শহর থেকে দেশে ফিরেছেন। এসব রোগীদের সিডনি এবং মেলবোর্নের হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

কম্বোডিয়া
সোমবার কম্বোডিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই ভাইরাসে একজনের আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। ৬০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি সম্প্রতি উহান থেকে দেশে ফিরেছেন। তাকে একটি আইসোলেশন রুমে রাখা হয়েছিল। তার অবস্থা এখন স্থিতিশীল।

জাপান
দেশটির স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ শনিবার পর্যন্ত চারজনের এই ভাইরাসে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। ওই ব্যক্তির বয়স ৪০ বছর। তিনি সম্প্রতি উহান থেকে জাপানে গিয়েছিলেন। ওই ব্যক্তি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বর্তমানে তার অবস্থা স্থিতিশীল। উহান শহর থেকে আসা আরও দুই পুরুষ এবং এক নারীও এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তারা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

মালয়েশিয়া
রোববার পর্যন্ত চীনে চারজনের করোনাভাইরাসে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে। এরা সবাই চীনা নাগরিক যারা ছুটি কাটাতে উহান থেকে সিঙ্গাপুর হয়ে মালয়েশিয়ায় গিয়েছেন।

নেপাল
নেপাল বলছে, উহান থেকে আসা ৩২ বছর বয়সী একজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। তবে তিনি চিকিৎসা নেওয়ার পর সুস্থ হয়েছেন এবং তাকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

সিঙ্গাপুর
সিঙ্গাপুরে এখন পর্যন্ত পাঁচজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এরা সবাই সম্প্রতি উহান থেকে ফিরেছেন।

দক্ষিণ কোরিয়া
দেশটির গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, সোমবার পর্যন্ত দেশটিতে চারজন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এদের মধ্যে তিন পুরুষ এবং এক নারী। তারা সম্প্রতি উহানে ঘুরতে গিয়েছিলেন। সেখান থেকেই এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন তারা।

শ্রীলঙ্কা
সোমবার এক নারীর করোনাভাইরাসে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করেছে শ্রীলঙ্কা। চীনের হুবেই প্রদেশ থেকে গত সপ্তাহে পর্যটক হিসেবে শ্রীলঙ্কায় এসেছিলেন ৪৩ বছর বয়সী ওই চীনা নারী।

তাইওয়ান
তাইওয়ানে এখন পর্যন্ত পাঁচজন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। গত ২০ জানুয়ারি চীনের উহান থেকে তাইওয়ানে আসা ৫০ বছর বয়সী এক নারী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।

থাইল্যান্ড
এখন পর্যন্ত আটজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে থাইল্যান্ড। এদের মধ্যে তিনজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন এবং পাঁচজনকে চিকিৎসা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

ভিয়েতনাম
ভিয়েতনামে এখন পর্যন্ত দুইজনের এই ভাইরাসে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া গেছে।

কানাডা
সোমবার প্রথমবারের মতো একজনের করোনাভাইরাসে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করে কানাডা। ওই ব্যক্তি সম্প্রতি উহান থেকে কানাডায় ফিরেছেন।

যুক্তরাষ্ট্র
যুক্তরাষ্ট্রে এখন পর্যন্ত পাঁচজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। তারা সবাই সম্প্রতি উহান থেকে যুক্তরাষ্ট্রে গিয়েছেন এদের মধ্যে দু'জন ক্যালিফোর্নিয়ার, একজন আরিজোনার, একজন শিকাগোর এবং একজন ওয়াশিংটন অঙ্গরাজ্যের।

ফ্রান্স
ফ্রান্সে তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন বোরডেক্সের, একজন প্যারিসের। বাকি একজনের বিষয়ে তেমন কিছু জানা যায়নি। এরা সবাই সম্প্রতি চীনে ঘুরতে গিয়েছিলেন।

জার্মানি
মঙ্গলবার জার্মানিতে প্রথমবার একজনের করোনাভাইরাসে আক্রান্তের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। তাকে আইসোলেশন ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তার অবস্থা এখন আগের চেয়ে ভালো বলে জানানো হয়েছে।

টিটিএন/পিআর