আজ বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা গোল্ডকাপের ফাইনাল দেখবেন প্রধানমন্ত্রী

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৩৮ এএম, ০৪ এপ্রিল ২০১৯

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে ‘বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০১৮’ এবং ‘বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট-২০১৮’ ফাইনাল খেলায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিতি থেকে পুরস্কার বিতরণ করবেন। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একটি সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দুপুরে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপের নবম আসরের ফাইনালে মুখোমুখি হবে নীলফামারী সদরের দক্ষিণ কানিয়ালখাতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও সিলেটের জৈন্তাপুরের হরিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়। পরে বঙ্গমাতা গোল্ডকাপের অষ্টম আসরের ফাইনালে লড়বে লালমনিরহাট পাটগ্রামের টেপুরগাড়ী বিকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ময়মনসিংহের নান্দাইলের পাঁচরুখী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন দল তিন লাখ, রানার্সআপ দুই লাখ ও তৃতীয় স্থান অর্জনকারী দল পাবে এক লাখ টাকা করে।

বঙ্গবন্ধু-বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, কলেবর বিবেচনায় এ টুর্নামেন্ট বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফুটবল টুর্নামেন্ট হিসেবে বিবেচিত। সারা দেশের প্রতিটি প্রান্ত থেকে শিশুরা প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে চূড়ান্ত পর্বে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। এবারের বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে ৬৫ হাজার ৭৯৫ টি বিদ্যালয়ের ১১ লাখ ১৮ হাজার ৫১৫ জন ছাত্র এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্টে ৬৫ হাজার ৭০০ টি বিদ্যালয়ের ১১ লাখ ১৬ হাজার ৯০০ জন ছাত্রী অংশ নেয়।

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে বলেন, বর্তমান সরকার দেশের সব ছাত্র-ছাত্রীর মেধা বিকাশ, শারীরিক ও মানসিক বিকাশের জন্য পড়াশোনার পাশাপাশি খেলাধুলা ও সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণের প্রতি গুরুত্ব দিচ্ছে।

তিনি বলেন,‘এর ফলে দেশের পাশাপাশি আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে আমাদের ছেলে-মেয়েরা খেলাধুলায় বিশেষ করে ফুটবলে সাফল্য অর্জন করছে। আমি প্রত্যাশা করি, আজকে যে শিশুরা এ টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করল তাদের থেকেই আগামীর দক্ষ ক্রীড়াবিদ বেরিয়ে আসবে এবং আন্তর্জাতিক ক্রীড়াঙ্গণে বাংলাদেশের মুখ উজ্জ্বল করবে।’

এফএইচএস/জেডএ/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]