ইচ্ছা মতো দাম নেয়ায় মাদারস কেয়ারকে জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:২০ পিএম, ০১ জুন ২০১৯

বেশি দামে পণ্য বিক্রি, বিদেশি পণ্যে আমদানিকারকের স্টিকার না থাকা ও অবৈধ নকল কসমেটিক্স বিক্রির অপরাধে রাজধানীর বেইলি রোডের মাদারস কেয়ারসহ ১০ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদফতর।

শনিবার ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন-২০০৯ এর বিভিন্ন ধারায় এসব প্রতিষ্ঠানকে ৭ লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

অধিদফতরের ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ারের সার্বিক তত্ত্বাবধানে অভিযান পরিচালনা করেন সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মণ্ডল ও মো. মাসুম আরিফিন।

vocta-(2)

উপ-পরিচালক মনজুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার জাগো নিউজকে বলেন, বেইলি রোডের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালানো হয়। এ সময় মাদারস কেয়ারে অভিযানকালে দেখা যায় বিদেশি পণ্য বিক্রি করতে কিন্তু আমদানিকারকের কোনো স্টিকার নেই। নিজেরা ইচ্ছা মতো সব পণ্যে অতিরিক্ত দাম নিচ্ছে। যার কোনো যৌক্তিক কারণ দেখাতে পারেননি প্রতিষ্ঠানটির দায়িত্বরত কর্মীরা। অধিদফতরের পক্ষ থেকে তাদের এর আগে একাধিকবার সতর্ক করা হয়েছিল কিন্তু তারা তা আমলে নেননি। এ অপরাধে প্রতিষ্ঠানটিকে তিন লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

অভিযানে বিভিন্ন নামিদামি ব্র্যান্ডের বিদেশি কসমেটিক্সের গায়ে আমদানিকারকের নাম-ঠিকানা সম্বলিত স্টিকার না থাকা এবং সর্বোচ্চ খুচরা বিক্রয় মূল্য না থাকার অপরাধে স্টার ওয়ার্ল্ডকে ৫০ হাজার টাকা, ল্যানডিংকে ৫০ হাজার, ওয়েস্টার্ন গ্লামারকে ৫০ হাজার, স্টার ডাস্টকে ৫০ হাজার, এনওয়াইসিকে ৩০ হাজার, স্টোন গ্যালারিকে ৩০ হাজার, দেলোয়ার কসমেটিক্সকে ৫০ হাজার, নিউ ইয়ার কালেকশনকে ৩০ হাজার, গাঙ্গা শাড়িকে এক লাখ টাকাসহ ১০ প্রতিষ্ঠানকে ৭ লাখ ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

vocta

এছাড়া অভিযানের খবর শুনে ডয়েট নামক প্রতিষ্ঠানটি দোকান বন্ধ করে পালিয়ে যাওয়ার অপরাধে সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়।

অভিযানে সার্বিক সহায়তা করেন রমনা থানা পুলিশ সদস্যরা।

এসআই/জেএইচ/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]