এনআইডিতে বিয়ে-সংক্রান্ত বিষয় সংশোধন করবেন যেভাবে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:০৭ পিএম, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বিয়ে হয়েছে, কিন্তু জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) অবিবাহিতই রয়ে গেছেন অনেকে। আবার বিচ্ছেদ হয়েছে, কিন্তু স্বামীর নাম রয়ে গেছে এনআইডিতে। জাতীয় পরিচয়পত্রে নিত্যনতুন এ রকম বেশকিছু সমস্যা দেখা দেয়। এসব সমস্যা সমাধান বা সংশোধনে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা রয়েছে নির্বাচন কমিশনের (ইসি)।

ইসির সেই নির্দেশনা অনুযায়ী, জাতীয় পরিচয়পত্রের বিবাহজনিত সমস্যা সমাধানের বিধান রয়েছে। তবে নির্দেশনা অনুযায়ী সেসব কাগজ/দলিল/নিয়ম মানা হলেও অনেক সময় ইসি কর্মকর্তাদের অবহেলা/অনিয়মের কারণে সমস্যার সমাধান হয় না। তারপরও বিবাহসংশ্লিষ্ট এনআইডির সমস্যা সমাধানে ইসির যে নির্দেশনা রয়েছে, তা জাগো নিউজের পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-

এক. আপনি অবিবাহিত। এনআইডিতে পিতা না লিখে স্বামী লেখা হয়েছে। কীভাবে তা সংশোধন করা যাবে?

ইসির জবাব: সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা/জেলা নির্বাচন অফিসে আপনি বিবাহিত নন মর্মে প্রমাণাদিসহ আবেদন করতে হবে।

দুই. বিয়ের পর স্বামীর নাম যুক্ত করার প্রক্রিয়া কী?

ইসির জবাব: নিকাহনামা ও স্বামীর আইডিকার্ডের ফটোকপি সংযুক্ত করে এনআইডি নিবন্ধন শাখা/সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা/জেলা নির্বাচন অফিস বরাবর আবেদন করতে হবে।

তিন. বিবাহবিচ্ছেদ হয়ে গেছে। এনআইডি কার্ড থেকে স্বামীর নাম কীভাবে বাদ দেবেন?

ইসির জবাব: বিবাহবিচ্ছেদ-সংক্রান্ত দলিল (তালাকনামা) সংযুক্ত করে এনআইডি নিবন্ধন শাখা/সংশ্লিষ্ট উপজেলা/থানা/জেলা নির্বাচন অফিসে আবেদন করতে হবে।

চার. বিবাহবিচ্ছেদের পর নতুন বিয়ে করেছেন। এখন আগের স্বামীর নামের জায়গায় বর্তমান স্বামীর নাম কীভাবে যুক্ত করবেন?

ইসির জবাব: প্রথম বিয়ে বিচ্ছেদের তালাকনামা ও পরবর্তী বিয়ে কাবিননামাসহ সংশোধন ফরম পূরণ করে আবেদন করতে হবে।

পিডি/বিএ/এমকেএইচ