কেরানীগঞ্জে আগুনের ঘটনায় ১০ মরদেহ হস্তান্তর

ঢামেক প্রতিবেদক
ঢামেক প্রতিবেদক ঢামেক প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৯:৫৭ পিএম, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া এলাকার প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড কারখানায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় ১০ জনের মরদেহ হস্তান্তর করা হয়েছে। ঢাকা জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে মরদেহগুলো হস্তান্তর করা হয়।

বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা থেকে মরদেহগুলো হস্তান্তর শুরু করেন ঢাকা জেলা প্রশাসকের প্রতিনিধি সিনিয়র সহকারী কমিশনার মো. আব্দুল আওয়াল। রাত সাড়ে ৮টায় হস্তান্তর প্রক্রিয়া শেষ হয়।

তিনি বলেন, নিহতের দাফনের জন্য পরিবারকে আপাতত ২০ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে। আহতদেরও চিকিৎসার জন্য ২০ হাজার টাকা করে দেয়া হয়েছে।

হস্তান্তর করা মরদেহগুলোর মধ্যে রয়েছে- কেরানীগঞ্জের মৃত আব্দুর রশিদের ছেলে আলম (৩৫), পিরোজপুর সদর উপজেলার মৃত নুরুল হকের ছেলে জাহাঙ্গীর হোসেন (৫৫), নরসিংদী সদর উপজেলার মৃত তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে বাবলু (২৬), নড়াইল সদর উপজেলার ইউসুফ বিশ্বাসের ছেলে রায়হান বিশ্বাস (১৬), পটুয়াখালীরর কলাপাড়া উপজেলার আনছার হাওলাদারের ছেলে ইমরান হাওলাদার (১৮), বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার ইব্রাহিম খলিফার ছেলে আব্দুল খালেক (৩৫), মাগুরার সালিথা উপজেলার মোতালেব মোল্লার ছেলে জিনারুল মোল্লা (৩২), জয়পুরহাটের আক্কেলপুর উপজেলার জসিম মিয়ার ছেলে ওমর ফারুক (৩৭), বরিশাল হিজলা উপজেলার খলিল দেওয়ানের ছেলে সুজন দেওয়ান (১৯), মুন্সিগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া উপজেলার হানিফ দেওয়ানের ছেলে ফয়সাল দেওয়ান (২৪)।

সিনিয়র কমিশনার আব্দুল আওয়াল জানান, তিনটি মরদেহের ময়নাতদন্ত না হওয়ায় আগামীকাল হস্তান্তর করা হবে। এর মধ্যে মাহবুব হোসেনের মরদেহ স্বজনরা শুধু হাতের বেসলেট দেখে শনাক্ত করেন। সেটার ডিএনএ নমুনা আগামীকাল নেয়া হবে। ওমর ফারুক (৩৬) ও মেহেদী হাসানের মরদেহ আগামীকাল ময়নাতদন্তের পর হস্তান্তর করা হবে।

উল্লেখ্য, বুধবার (১১ ডিসেম্বর) বিকেল ৪টা ৩৫ মিনিটে কেরানীগঞ্জের ওই প্লাস্টিক কারখানায় আগুন লাগে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ থেকে আগুনের সূত্রপাত।

এ ঘটনায় ৩০ জনকে দগ্ধ অবস্থায় ঢামেক হাসপাতালের বার্ন উইনিটে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত ১৩ জনের মৃত্যুর সংবাদ পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান।

এএইচ/এমকেএইচ

টাইমলাইন