ঢাবি ছাত্রীর বই-ঘড়ি-ইনহেলার পড়েছিল ঝোপের মধ্যে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০২:২৪ পিএম, ০৬ জানুয়ারি ২০২০

রাজধানীর কুর্মিটোলায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনার আলামত সংগ্রহ করেছে পুলিশের এলিট ফোর্স র‍্যাব ও ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। সংশ্লিষ্টদের ভাষ্যে, কুর্মিটোলা গলফ ক্লাবে যাওয়ার পথে ঝোপের মধ্যে পড়েছিল ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর বই, ঘড়ি, চাবির রিং, ইনহেলারসহ কিছু সামগ্রী। এমনকি সেখানে পুরুষের এক জোড়া স্যান্ডেলও পাওয়া যায়।

সোমবার (৬ জানুয়ারি) সকালে ওই ঝোপের মধ্য থেকে এসব আলামত উদ্ধার করে র‍্যাব-ডিবি।

র‍্যাব সদর দফতরের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সারওয়ান বিন কাশেম জাগো নিউজকে বলেন, ‘চাঞ্চল্যকর এ ঘটনায় র‍্যাব ইতোমধ্যে তদন্ত শুরু করেছে। আপাতত তদন্তের স্বার্থে বেশিকিছু বলছি না।’

DU-(1)

আলামত সংগ্রহের ব্যাপারে তদন্ত সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, ঝোপের মধ্য থেকে ওই ছাত্রীর বিশ্ববিদ্যালয়ের বই, বিভাগের প্রসপেক্টাস, চাবির রিং, একটি কালো গ্যাবার্ডিনের প্যান্ট, স্যানিটারি ন্যাপকিন, একজোড়া স্যান্ডেল (পুরুষের), ঘড়ি, ইনহেলার ও স্পাইরাল মেশিন উদ্ধার করা হয়েছে।

অন্যদিকে ডিবি পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন, আলামত সংগ্রহ ও পর্যবেক্ষণ করেছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা।

গত রোববার (৫ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় কুর্মিটোলায় ওই ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক্ষণিকা’ নামের দোতলা বাসে (ঢাবি-টঙ্গী রুট) বাড়ি ফিরছিলেন। কুর্মিটোলায় বাস থেকে নেমে যাওয়ার পর তাকে তুলে নিয়ে ধর্ষণ করা হয়।

DU-(1)

ধর্ষণের শিকার ওই ছাত্রী বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা ক্যান্টনমেন্ট থানায় বাদী হয়ে মামলা করেছেন। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী শাহান হক জাগো নিউজকে বলেন, মামলার এজাহারে মেয়েটিকে একজন ধরে নিয়ে ধর্ষণ করে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অন্যদিকে ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনার প্রতিবাদে এবং ধর্ষকের বিচার দাবিতে উত্তাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। দুপুরে শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

জেইউ/এইচএ/এমকেএইচ

টাইমলাইন  

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]