ঢাকায় কল্যাণপুর পাইকপাড়ায় মশার প্রজনন বেশি

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১০:৪৮ এএম, ১৪ আগস্ট ২০২০

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) বিভিন্ন এলাকার মধ্যে কল্যাণপুর, পাইকপাড়া ও মধ্যপাড়া এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) এলাকায় মীরহাজারীবাগ, ধোলাইপাড় ও গেন্ডারিয়ায় মশার প্রজনন বেশি। ঢাকা উত্তরের এসব এলাকায় মশার প্রজনন (বিআই) ৪৩ দশমিক ৩ এবং ঢাকা দক্ষিণের এলাকাগুলোতে ৪০।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক জরিপ প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ান্স অ্যান্ড সার্জনসের (বিসিপিএস) অডিটোরিয়ামে গতকাল (বৃহস্পতিবার) ডিসসেমিনেশন অন মনসুন এডিস সার্ভে র্শীষক এক সভায় এ তথ্য প্রকাশ করা হয়।

১৯ জুলাই থেকে ২৮ জুলাই পর্যন্ত স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগ নিয়ন্ত্রণ শাখার আওতাধীন জাতীয় ম্যালেরিয়া নির্মূল ও এডিসবাহিত রোগ নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচির কীটতাত্তিক দলের অংশগ্রহণে মোট ১০০টি এলাকার ২ হাজার ৯৯৯টি বাড়িতে ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া ও জিকা ভাইরাসের ভেক্টরের ওপর জরিপ চালিয়ে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

মশার প্রজনন হার সবচেয়ে বেশি ৪৩.৩ পাওয়া গেছে কল্যাণপুর, পাইকপাড়া ও মধ্য পাইকপাড়া এলাকায় এবং বিআই ৪০ পাওয়া গেছে খিলখেত, কুড়িল ও নিকুঞ্জ এলাকায়। এছাড়া মীরহাজারীবাগ, ধোলাইপাড় ও গেন্ডারিয়া এলাকাতেও বিআই ৪০ পাওয়া গেছে।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জুয়েনা আজিজ, মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি), প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক ডা. শাহনীলা ফেরদৌসী, পরিচালক, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও লাইন ডাইরেক্টর, সিডিসি।

জরিপের ফলাফলে দেখা যাচ্ছে এডিস মশার প্রজনন স্থানের শতকরা হার বহুতল ভবনে ৫১.৩৪%, নির্মাণাধীন ভবনে ২০.৩২%,বস্তি এলাকায় ১২.৮৩%, একক ভবনগুলোতে ১২.৫৭% এবং পরিত্যক্ত জমিতে ২.৯৪%।

এমইউ/এনএফ/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]