পণের টাকা কম তাই বিয়েতে বসেনি বর, এখন গারদে

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক চট্টগ্রাম
প্রকাশিত: ০৪:৫১ পিএম, ১৪ আগস্ট ২০২০

চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে যৌতুকের ৫ হাজার টাকা কম দেয়ায় বিয়ের পিঁড়িতে বসেনি যিকু শীল নামে এক বর। অভিযোগ পেয়ে বেরসিক পুলিশ সেই বরকে ঢুকিয়েছে গারদে। সঙ্গে আটক করা হয়েছে বরের বাবা বাবুল শীল ও বিয়ের ঘটক মদন শীলকেও।

আটক বর যিকু স্থানীয় সেলুন কর্মচারী। সে কড়লডেঙ্গা ইউনিয়নের উত্তরভূর্ষি গ্রামের বাবুল শীলের ছেলে। ১৩ আগস্ট উপজেলার মেধস মুনির আশ্রমে এমন ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, চন্দনাইশ উপজেলার দশম শ্রেণি পড়ুয়া এক কিশোরীর সঙ্গে বোয়ালখালী উপজেলার কড়লডেঙ্গা ইউনিয়নের উত্তরভূর্ষি গ্রামের বাবুল শীলের ছেলে যিকু শীলের বিয়ের কথা ছিল। তবে ছেলে পক্ষের দাবিকৃত পনের টাকার মধ্যে ৫ হাজার টাকা কনে পক্ষ দিতে অপারগতা জানালে বিয়ের পিঁড়িতে বসতে রাজি হয়নি লোভী বর।

কনের মা অভিযোগ করে বলেন, পাত্রপক্ষের দাবি ছিল নগদ ৬০ হাজার টাকা ও ১ ভরি স্বর্ণালংকার। এছাড়া ছেলের ঘর ফার্নিচার দিয়ে সাজিয়ে দিতে হবে।

ছেলের দাবী অনুযায়ী ধার্য তারিখ বৃহস্পতিবার মেধস আশ্রমে বিয়ের আয়োজন করা হয়। বাকি সবকিছু দিলেও নগদ ৬০ হাজার টাকার মধ্যে ৫ হাজার টাকা কম থাকায় পাত্র বিয়ের পিঁড়িতে বসতে অস্বীকার করেন। এ নিয়ে দেন দরবারে তিনটি লগ্ন পেরিয়ে যায়। পরে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়।

বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আবদুল করিম বলেন, ‘অভিযোগ পেয়ে থানাপুলিশ পাত্রসহ তিনজনকে আটক করার পর বরপক্ষ বিয়েতে রাজি হলেও কনে এ বিয়েতে আর রাজি হচ্ছে না। তারা বলছেন, ‘পাত্রপক্ষের চাপে পড়ে রাজি হলেও পরবর্তীতে সমস্যার সৃষ্টি হবে। মাত্র ৫ হাজার টাকার জন্য যে বিয়ে করেনি, তাকে কার ভরসায় মেয়ে তুলে দেব। এ ব্যাপারে এখন আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে’।

এমআরএম/জেআইএম

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]