৪২৯ কোটি টাকার চার ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:১৩ পিএম, ২৮ অক্টোবর ২০২০

৪২৮ কোটি ৯৮ লাখ ৯৪ হাজার ২১২ টাকার চারটি ক্রয় প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি।

বুধবার (২৮ অক্টোবর) ভার্চুয়াল অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি এবং সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভা শেষে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ তথ্য জানান। অর্থমন্ত্রী সভায় সভাপতিত্ব করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির সভায় অনুমোদনের জন্য চারটি প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে। এরমধ্যে স্থানীয় সরকার বিভাগের দুটি এবং পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের একটি করে প্রস্তাবনা রয়েছে।’

অনুমোদিত চারটি প্রস্তাবে মোট অর্থের পরিমাণ ৪২৮ কোটি ৯৮ লাখ ৯৪ হাজার ২১২ টাকা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘মোট অর্থায়নের মধ্যে জিওবি (সরকারি তহবিল) থেকে ব্যয় হবে ১৭৬ কোটি ১৪ লাখ ৫৯ হাজার ২৮৫ টাকা এবং এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক থেকে ঋণের পরিমাণ ২৫২ কোটি ৮৪ লাখ ৩৪ হাজার ৯২৭ টাকা।’

পরে অনলাইনেই সভার বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব আবু সালেহ্ মোস্তফা কামাল।

অর্থনৈতিক বিষয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির অনুমোদনের জন্য একটি প্রস্তাব ছিল জানিয়ে অতিরিক্ত সচিব বলেন, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের অধীন ‘পায়রা বন্দরের রাবনাবাদ চ্যানেলের (ইনার ও আউটার চ্যানেলে) জরুরি রক্ষণাবেক্ষণ ড্রেজিং’ প্রকল্পটি পাবলিক প্রকিউরমেন্ট আইন এবং পাবলিক প্রকিউরমেন্ট বিধিমালা অনুযায়ী রাষ্ট্রীয় জরুরি প্রয়োজনে বেলজিয়ামভিত্তিক ড্রেজিং কোম্পানি জান ডি নুলের মাধ্যমে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতিতে (ডিপিএম) বাস্তবায়নের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

ক্রয় কমিটির অনুমোদন দেয়া প্রস্তাবের বিষয়ে মোস্তফা কামাল বলেন, ঢাকা ওয়াসার অধীন ‘ঢাকা ওয়াটার সাপ্লাই নেটওয়ার্ক ইমপ্রুভমেন্ট’ প্রকল্পের আওতায় একটি প্যাকেজের কাজের জন্য সর্বনিম্ন দরদাতা জার্মানির প্রতিষ্ঠান লুডুউইং পিফিফার হোচোন্দ টাইফবু জিএমবিএইচকে নিয়োগের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে ব্যয় হবে ১৬৪ কোটি ৯ লাখ ৪ হাজার ৪১৯ টাকা।

প্যাকেজের আওতায় দরদাতা প্রতিষ্ঠান মডস জোন-৭ এলাকায় মোট ১৬৩ দমমিক ৯৫ কি. মি. পানির লাইন পুনর্বাসন করে সাতটি ডিস্ট্রিক্ট মিটার্ড এরিয়া (ডিএমএ) কমিশনিংসহ এক বছর পর্যন্ত নেটওয়ার্ক অপারেশন এবং রক্ষণাবেক্ষণ কাজ করবে বলেও জানান তিনি।

অতিরিক্ত সচিব বলেন, ‘স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের (এলজিইডি) আওতাধীন পল্লী এলাকার সড়ক যোগাযোগ উন্নয়নে নেয়া রুরাল কানেকটিভিটি ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট বাস্তবায়নে পরামর্শক হিসেবে যৌথভাবে চারটি প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগের অনুমোদন দিয়েছে কমিটি। প্রতিষ্ঠান চারটি হচ্ছে- ডেভেলপমেন্ট ডিজাইন কনসালটেন্ট লি. (বাংলাদেশ), জিআইটিইসি-আইজিআইপি (জার্মানি), দেব কনসালটেন্ট লি. (বাংলাদেশ) ও সিসোর্স প্ল্যানিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট কনসালটেন্টস (প্রা.) লি. (বাংলাদেশ)। এতে ব্যয় হবে ৮৮ কোটি ৭৫ লাখ ৩০ হাজার ৫০৮ টাকা।’

‘বুড়িগঙ্গা নদী পুনরুদ্ধার (নিউ ধলেশ্বরী-পুংলী-বংশাই-তুরাগ-বুড়িগঙ্গা রিভার সিস্টেম) (২য় সংশোধিত) প্রকল্পের একটি প্যাকেজের পূর্ত কাজ সম্পাদনে ৫০ কোটি ৬২ লাখ ৪৬ হাজার ৩৩০ টাকায় যৌথভাবে এলএ এবং টিটিএলএ-কে ঠিকাদার নিয়োগের প্রস্তাব অনুমোদন দেয়া হয়।’

এছাড়া ‘পালবাড়ী-দড়াটানা-মনিহার-মুড়ালী জাতীয় মহাসড়কের মনিহার হতে মুড়ালী পর্যন্ত ৪-লেনে উন্নীতকরণ’ প্রকল্পের একটি প্যাকেজের পূর্ত কাজ সম্পাদনে যৌথভাবে সর্বনিম্ন দরদাতা প্রতিষ্ঠান আতাউর রহমান খান লি. এবং মাহবুব ব্রাদার্স লিমিটেডকে ১২৫ কোটি ৫২ লাখ ১২ হাজার ৯৫৫ টাকায় নিয়োগ দেয়া হয় বলেও জানান আবু সালেহ্ মোস্তফা কামাল।

তিনি জানান, এই প্যাকেজের আওতায় সড়ক বাঁধ, ফুটপাত, ধীরে চলা যানবাহনের জন্য লেন, বাস-বে, আরসিসি ড্রেন কাম ফুটপাত, আরসিসি ক্রস ড্রেন, নিউ জার্সি ব্যারিয়ার, সড়ক ডিভাইডার, সাইন, সিগন্যাল, গাইড পোস্ট, রোড মার্কিং ইত্যাদি নির্মাণ করা হবে।

আরএমএম/এএইচ/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]