প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের ৩৯ হাজার কোটি টাকার অডিট আপত্তি

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৭:৩৩ পিএম, ১১ মে ২০২২
ফাইল ছবি

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ও আওতাধীন প্রতিষ্ঠানসমূহের ৩৯ হাজার ২৭২ কোটি ৬৬ লাখ ৮ হাজার ২১০ টাকার অডিট আপত্তি রয়েছে। এরমধ্যে মাত্র ৯০ হাজার ৬৭৫ টাকার অডিট আপত্তি মন্ত্রণালয়ের, বাকি পুরোটাই মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দপ্তর/সংস্থার। ১৪ হাজার ৫৮৮টি অডিট আপত্তির মধ্যে মাত্র দুটি রয়েছে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের। অপরদিকে দপ্তর/সংস্থার ১৪ হাজার ৫৮৮টি অডিট আপত্তির সংশ্লেষ অর্থের পরিমাণ ৩৯ হাজার ২৭২ কোটি ৬৬ লাখ ৯৮ হাজার ৮৮৫ টাকা।

বুধবার (১১ মে) সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠক থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে। বৈঠকে অডিট আপত্তি সংক্রান্ত মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন উত্থাপন করা হয়।

কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সুবিদ আলী ভূঁইয়ার সভাপতিত্বে সংসদ ভবনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে কমিটি সদস্য আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, শেখ হেলাল উদ্দীন, মুহাম্মদ ফারুক খান, মো. ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহ, মো. মোতাহার হোসেন, নাজমুল হাসান, মো. নাসির উদ্দিন এবং মো. মহিববুর রহমান অংশ নেন।

প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে জানা গেছে, মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ২৪টি দপ্তর ও সংস্থার মধ্যে ১৮টির অডিট আপত্তি রয়েছে। ডিজিএফআইসহ ৬টি সংস্থা/দপ্তরের কোনো অডিট আপত্তি নেই। অন্যগুলো হলো- সিএও, আইএসএসবি, এমওডিসি, আইএসপিআর ও সাইফার। অডিট আপত্তির সবচেয়ে বেশি সংশ্লেষ অর্থ রয়েছে সামরিক ভূমি ও ক্যান্টনমেন্ট অধিদপ্তরের (সাভূক্যা)। এই দপ্তরের এক হাজার ৯৫টি অডিট আপত্তির সংশ্লেষ অর্থের পরিমাণ ৩১ হাজার ৫৪২ কোটি ৯৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা।

যেসব দপ্তর ও সংস্থার অডিট আপত্তি রয়েছে তার মধ্যে সেনা সদরের দুই হাজার ১৯২টি অডিট আপত্তির সংশ্লেষ অর্থের পরিমাণ এক হাজার ৫১৩ কোটি ৩৩ লাখ ৫৭ হাজার ৪২ টাকা। এছাড়াও নৌ সদরের ৩৪৬টি অডিট আপত্তির সংশ্লেষ অর্থের পরিমাণ ১১২ কোটি ২৯ লাখ ৪৬ হাজার টাকা, বিমান সদরের ৩৬১টি অডিট আপত্তির সংশ্লেষ অর্থের পরিমাণ ৯১ কোটি ৪ লাখ ৬৭ হাজার ৮৬ টাকা, ডিজিএমএস’র ৭৩টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ৫১ কোটি ৯১ লাখ ৫৯ হাজার টাকা, কলেজের ২৫৫টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ৩৪ কোটি ৬৫ লাখ ৩৫ হাজার ৬১০ টাকা, ডিএফডির দুই হাজার ৩১৭টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ৮১৭ কোটি ৬৮ লাখ ৩০ হাজার ৩২ টাকা, ডিএসসিএসসির ৩৭টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ছয় কোটি ৪ লাখ ৩৯ হাজার টাকা, বিএএসবির ৭টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ এক হাজার ৭৪৮ কোটি ৮৩ লাখ ১৭ হাজার টাকা, ই-ইনসি শাখার ২৬টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ২৩ কোটি ১৬ লাখ ৬৩ হাজার টাকা, ডিডব্লিউ (আর্মি) শাখার পাঁচ হাজার ২৫৪টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ দুই হাজার ১৬৪ কোটি ৬৮ লাখ ১০ হাজার টাকা, ডিডব্লিউ (নৌ) শাখার এক হাজার ৯৫টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ১৪৫ কোটি ৮৮ লাখ ৬২ হাজার টাকা, ডিডব্লিউ (বিমান) এক হাজার ১৮৬টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ৩২৮ কোটি ৩৪ লাখ ৭৩ হাজার টাকা, বিওএফ’র ৯৩টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ৪১২ কোটি ৮৩ লাখ ৬১ হাজার, জরিপ অধিপ্তরের ৪৬টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ৩৫ কোটি ৮৭ লাখ ২১ হাজার টাকা, এনডিসির ৯৩টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ২৯ কোটি ৮৯ লাখ ৪০ হাজার টাকা, স্পারসোর ২৫টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ পাঁচ কোটি ৯৬ লাখ ৭৬ হাজার টাকা, বিএনসিসির ৩টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ২০ লাখ টাকা, এমআইএসটির ২৩টি অডিটে সংশ্লেষ অর্থ ২৫ কোটি ৬৪ লাখ দুই হাজার টাকা এবং এএফএসসির ২৫ কোটি ১৯ লাখ ৫ হাজার টাকা।

অডিট আপত্তি সংক্রান্ত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, এগুলোর মধ্যে গত ২০২০-২১ অর্থ বছরে তিন হাজার ১২০টি অডিট আপত্তি নিষ্পত্তি হয়েছে। এর সংশ্লেষ অর্থ ছিল ৩২০ কোটি ৫৯ লাখ ৭৭ হাজার টাকা। বর্তমান অর্থ বছরের এপ্রিল পর্যন্ত ৯৫৩টি অডিট আপত্তি নিষ্পত্তি হয়েছে। এর সঙ্গে জড়িত অর্থ ২০৫ কোটি ৪৪ লাখ ৭৩ হাজার ২৩০ টাকা।

এইচএস/কেএসআর/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।