শিশুদের নিরাপদ-উন্নত জীবন গঠনে কাজ করছে সরকার

নিজস্ব প্রতিবেদক
নিজস্ব প্রতিবেদক নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৩:২৮ পিএম, ০৩ অক্টোবর ২০২২
মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা

শিশুদের জন্য নিরাপদ ও সুরক্ষিত উন্নত জীবন গঠনে সরকার কাজ করছে বলে জানিয়েছেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা। তিনি বলেন, আগামী প্রজন্মকে মেধাবী ও দক্ষ হিসেবে গড়ে তুলতে ৮০ হাজার কোটি টাকার শিশুকেন্দ্রিক বাজেট বাস্তবায়িত হচ্ছে। শিশুর নিরাপত্তা ও সুরক্ষা নিশ্চিত করার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠিত হবে শিশুর অধিকার।

তিনি বলেন, আজকের শিশুরাই আগামী দিনের ভবিষ্যৎ এবং তারাই আগামীতে দেশ গড়ার নেতৃত্ব দেবে। জাতির পিতার আদর্শে নিজেদের জীবন গড়ে তুলছে তারা।

সোমবার (৩ অক্টোবর) বাংলাদেশ শিশু একাডেমির অডিটোরিয়ামে ‘গড়বে শিশু সোনার দেশ, ছড়িয়ে দিয়ে আলোর রেশ’ প্রতিপাদ্যে ‘বিশ্ব শিশু দিবস এবং শিশু অধিকার সপ্তাহ-২০২২’ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে নারী-শিশুর সামগ্রিক উন্নয়নে বাংলাদেশ অভূতপূর্ব সফলতা অর্জন করেছে। মা ও শিশুর পুষ্টিচাহিদা পূরণে ১১ লাখ মাকে মাতৃত্বকালীন ও কর্মজীবী লাকটেটিংমাদার ভাতা প্রদান করা হচ্ছে। সমাজভিত্তিক সমন্বিত শিশুযত্ন কেন্দ্রের মাধ্যমে ৩ লাখ ৬০ হাজার শিশুদের প্রারম্ভিক বিকাশ ও সুরক্ষাসেবা প্রদান করা হচ্ছে। সরকারের ৮ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় এসডিজি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। শিশুদের উন্নয়ন ও সুরক্ষার মাধ্যমে এসডিজি অর্জনে সরকার কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, সরকার শিশুর বিকাশ ও পুষ্টি নিশ্চিতে পাশাপাশি শিশুদের অধিকার ও সুরক্ষায় জাতীয় শিশু নীতি ২০১১, শিশুর প্রারম্ভিক যত্ন ও বিকাশের সমন্বিত নীতি ২০১৩, শিশু আইন ২০১৩, যৌতুক নিরোধ আইন ২০১৮, বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭, বাল্যবিবাহ নিরোধ জাতীয় কর্মপরিকল্পনা ২০১৮-২০৩০ প্রনয়ন, নারী ও শিশু নির্যাতন দমন (সংশোধন) আইন ২০২০ এবং শিশু দিবাযত্ন কেন্দ্র আইন ২০২১ প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করে যাচ্ছে। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরূপ প্রভাব থেকে মুক্ত করে শিশুদের একটি সুন্দর ও উন্নত জীবন নিশ্চিত করা।

jagonews24

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব হাসানুজ্জামান কল্লোলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান লাকী ইনাম এবং ইউনিসেফের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ শেলডন ইয়েট। শিশু একাডেমির মহাপরিচালক মো. শরিফুল ইসলাম এতে স্বাগত বক্তব্য দেন।

ইউনিসেফের কান্ট্রি রিপ্রেজেন্টেটিভ শেলডন ইয়েট বলেন, সবাইকে শিশুদের শিক্ষা ও অধিকার প্রতিষ্ঠায় কাজ করতে হবে। বাংলাদেশ সরকারের শিশু উন্নয়ন কার্যক্রম অত্যন্ত প্রশংসীয়।

হাসানুজ্জামান কল্লোল বলেন, সরকার আগামীর মেধাবী ও আলোকিত শিশু গড়ে তুলতে শিশুবান্ধব বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। গর্ভাবস্থা থেকে শিশুর পুষ্টি নিশ্চিত করতে ১ কোটি ৩০ লাখ মা ও শিশুকে ভাতা প্রদান করা হচ্ছে।

এ সময় শিশু আদিবা তসনিম আরা খান ও অনিন্দ্য আরণ্যক শিশুদের পক্ষে বক্তব্য দেয়।

পরে প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বিশ্ব শিশু দিবস এবং শিশু অধিকার সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় বিজয়ী শিশুদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।

শেষে শিশুদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও সিসিমপুর লাইভ শো পরিবেশিত হয়।

আইএইচআর/ইএ/জিকেএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।