শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির মাধ্যমেই সরকার পতন : ফারুক

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৫:২৭ পিএম, ০৩ এপ্রিল ২০১৮ | আপডেট: ০৫:৩৩ পিএম, ০৩ এপ্রিল ২০১৮

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ জয়নুল আবদিন ফারুক বলেছেন, দেশের স্বাধীনতাকে অক্ষুণ্ন রাখতে, গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠিত রূপ দিতে বেগম খালেদা জিয়ার খুবই দরকার। তাই সবাই তার মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছি। তবে যে দল একদিনে, এক মিনিটে গণতন্ত্র হত্যা করে বাকশাল গঠন করে সেই দলের কাছে আন্দোলন ছাড়া গণতন্ত্রকে মুক্ত করা কঠিন।

তাই আন্দোলনকে বেগমান করে ঐক্যবদ্ধভাবে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচির মাধ্যমেই এ সরকারের পতন ঘটানো হবে।

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে আয়োজিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, নির্বাহী কমিটির সদস্য আজিজুল বারী হেলালসহ সব রাজবন্দির মুক্তির দাবিতে এ মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়। মানবন্ধনের আয়োজন করে দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন নামের একটি সংগঠন।

জয়নুল আবদিন ফারুক বলেন, রাজপথে দাঁড়িয়ে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করতে চাই। কিন্তু সে আন্দোলনকে বিপথে নিতে সরকার বার বার চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, গত কয়েকদিন ধরে আমরা উদ্বিগ্ন। বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া স্যাত স্যাতে কারাগারে অসুস্থ। গতকাল মহাসচিব অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। ১২৫ কোটি টাকার দায়ে আট নেতার বিরুদ্ধে দুদক তল্লাশি চালাচ্ছে। এছাড়া বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে দেশের ৭৮ হাজার মামলা রয়েছে। যার আসামি সংখ্যা ১৮ লাখ। তবে বিএনপি মামলাকে ভয় পায় না। ভয় একটাই যেন খালেদা জিয়ার কিছু না হয়।

সংগঠনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, হাবিবুর রহমান রহমান হাবিব, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য শাহ মো. আবু জাফর, জাগপার সাধারণ খন্দকার লুৎফর রহমান, ন্যাপের মহাসচিব এম গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া, লেবার পার্টির একাংশের মহাসচিব হামদুল্লাহ আল মেহেদী প্রমুখ।

কেএইচ/এএইচ/পিআর