ইউপি নির্বাচনের আগে অস্ত্র উদ্ধারের আহ্বান কাদের মির্জার

জেলা প্রতিনিধি
জেলা প্রতিনিধি জেলা প্রতিনিধি নোয়াখালী
প্রকাশিত: ০৪:২৪ এএম, ১৯ জানুয়ারি ২০২২

আগামী ৭ ফেব্রুয়ারির ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনের আগে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও কথিত ভাগিনাদের লাগাম না টানলে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন নোয়াখালীর বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা।

মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) রাত ৮টায় নিজের ফেসবুক লাইভে এসে এ মন্তব্য করেন তিনি।

কাদের মির্জা বলেন, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর এলাকার মতো আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এলাকা কোম্পানীগঞ্জেও দলীয় মনোনয়ন ছাড়া ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কিন্তু এ নির্বাচনকে অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ করতে হলে আগে অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে হবে।

তিনি দাবি করেন, গত ৯ মার্চ আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে বসুরহাট পৌরসভার কার্যালয় লক্ষ্য করে প্রায় দুই হাজার গুলি ছোঁড়ে সন্ত্রাসীরা। ওই অস্ত্র বাইরে রেখে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। এছাড়া বহিরাগত সন্ত্রাসী এলাকায় প্রবেশ রোধ করা না হলে নির্বাচনের পরিবেশ হবে অশান্ত।

কাদের মির্জা বলেন, ওবায়দুল কাদের স্বজনপ্রীতির রাজনীতি করে না। কিন্তু তার নাম বিক্রি করে কয়েকজন ভাগিনা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা নির্বাচনী মাঠে আধিপত্য বিস্তার, মানুষকে হুমকি-ধামকি ও প্রশাসনকে চাপে রাখার চেষ্টা করছেন। প্রশাসনকে এ কথিত ভাগিনাদের লাগাম টেনে ধরতে হবে।

নির্বাচন কমিশনার অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শাহাদাত হোসেন চৌধুরী কোম্পানীগঞ্জের কৃতিসন্তান। তিনি নোয়াখালীতে ভালো একটি নির্বাচন উপহার দিয়েছেন। আমরা আশাবাদী আদর্শ বাবার সুযোগ্য সন্তান নিজ উপজেলায় অবাধ-সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নির্বাচনের দৃষ্টান্ত স্থাপন করবেন। কিন্তু দুঃখ লাগে, যখন কেউ কেউ শাহাদাত সাহেবের আত্মীয় পরিচয় দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করতে চায়।

প্রশাসনের উদ্দেশ্যে কাদের মির্জা বলেন, ‘নোয়াখালীর ডিসি (জেলা প্রশাসক) সাহেব নতুন যোগদান করেছেন। এসপি (পুলিশ সুপার) সাহেব এরই মধ্যে জেলায় আইনশৃঙ্খলার উন্নতিতে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছেন। নোয়াখালীতে নির্বাচনগুলো অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করেছেন। তাই আমরা বিশ্বাস করি, ডিসি-এসপি সাহেবের নেতৃত্বে কোম্পানীগঞ্জে অবাধ-সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ ও অহিংস নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।’

তিনি হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘আমার স্পষ্ট ঘোষণা, নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু নিরপেক্ষ ও অহিংস না হলে কোম্পানীগঞ্জে নারী-পুরুষ সবাই সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে রাস্তায় বের হয়ে সমোচীন জবাব দেবে।

আগামী সাত ফেব্রুয়ারি নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের আট ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।আওয়ামী লীগের বিবাদমান দুই গ্রুপের সহিংসতা জের ধরে এখানে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক কাউকে দেওয়া হয়নি।

ইকবাল হোসেন মজনু/এমএএইচ/

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]