যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসীদের পিঠা উৎসব

প্রবাস ডেস্ক
প্রকাশিত: ০১:২৩ পিএম, ২০ ডিসেম্বর ২০১৭

বিজয় দিবস উপলক্ষে বিসিসিডিআই বাংলা স্কুলের বিজয় মেলা ও পৌষ পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার ভার্জিনিয়ার অ্যানানডেল নোভা কলেজ ক্যাম্পাস মিলনায়তনে এ উৎসব আয়োজিত হয়।

বিপুল উৎসাহ, উদ্দীপনা আর মুক্তিযুদ্ধের বিজয় স্মৃতি বুকে লালন করে অনুষ্ঠিত হলো বৃহত্তর মেট্রো ওয়াশিংটন ডিসির এ বছরের প্রথম পৌষ পিঠা উৎসব।
শতরুপা বড়ুয়া ও শামীম চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতেই স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা সম্মিলিতভাবে জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে।

এর আগে ১৯৭১ সালের রক্তক্ষয়ী স্বাধীনতা যুদ্ধে সব বীর বাঙালির স্মরণে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে তাদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এ সময় শ্রদ্ধা নিবেদন করে বাংলাদেশ দূতাবাস, বিসিসিডিআই, বাগডিসি, বাই, আবিয়া, আগামী, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশসহ মেট্রো ওয়াশিংটন এলাকার বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন সমূহ।

অনুষ্ঠানে বাংলা স্কুলের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ‘এসো আঁকি বিজয়ের রঙে’ শীর্ষক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা, দেশাত্মবোধক গান ও নৃত্য প্রদর্শন করা হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পর্বে বাংলা স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীদের পরিবেশনা ছাড়াও অতিথি শিল্পী হিসেবে গান পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী দিলরুবা খানের কন্যা শিমুল খান।

পিঠা ঘর, রকমারি খাবার ঘর, পিঠা ঘর, ভাই ভাবির দোয়ান, ঝাল টক মিষ্টি, পিঠা পল্লী, রসনা বিলাস ইত্যাদি দোকানে শোভা পাচ্ছিল বাংলার ঐতিহ্যবাহী নানান আকৃতি, নানান স্বাদ আর নানা রঙের পিঠা।

বিভিন্ন দোকানে শোভা পাচ্ছিল পাটিসাপ্টা, ভাপাপিঠা এলোগেলো, বুলশা, বিবিখানা, তেলেপিঠা, চিতইপিঠা, চানার সন্দেষ, গজাগজা, পাকুনপিঠা, মাংশেরপিঠা, নারিকেল পুলি, নিমকি, চুপতি পিঠা, ঝালপিঠা, সাবুদানার, ডালপুরি, ডালপাকন, পানতুয়া সহ প্রায় পঞ্চাশ রকমের পিঠা।

১৩তম পৌষপিঠা উৎসব আয়োজন করে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবাসী বাংলাদেশিদের আবারও নজর কেড়েছে, সহস্রাধিক দর্শকদের উস্থিতিতে মনে হচ্ছিল ওয়াশিংটনে ছোট্ট একটা বাংলাদেশ।

এমআরএম/জেআইএম

প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা, ভ্রমণ, গল্প-আড্ডা, আনন্দ-বেদনা, অনুভূতি, স্বদেশের স্মৃতিচারণ, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক লেখা পাঠাতে পারেন। ছবিসহ লেখা পাঠানোর ঠিকানা - jagofeature@gmail.com

আপনার মতামত লিখুন :