মক্কা-মদিনায় জুমআ পড়াবেন শায়খ সালেহ ও থুবাইতি

ধর্ম ডেস্ক
ধর্ম ডেস্ক ধর্ম ডেস্ক
প্রকাশিত: ০৮:১৯ এএম, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১

মহামারি করোনার দ্বিতীয় ধাপের প্রাদুর্ভাবের মাঝে আজও পবিত্র নগরী মক্কার মসজিদে হারাম তথা কাবা শরিফ ও মদিনার মসজিদে নববিতে জুমআ অনুষ্ঠিত হবে। হারামাইন কর্তৃপক্ষ খুতবা প্রদান ও জুমআর জন্য দুই জন ইমাম নির্ধারণ করেছেন।

খুতবাহ শোনা থেকে নামাজ শেষ হওয়া পর্যন্ত প্রতিটি পর্যায়ে থাকবে সুনির্দিষ্ট দিকনিদের্শনা ও সর্বোচ্চ স্বাস্থ্য সতর্কতা এবং যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

মুসল্লিরা নিজ নিজ মুসাল্লা নিয়ে জামাআতের কিছুক্ষণ আগে মসজিদে উপস্থিত হবেন। ফেসমাস্ক ব্যবহার করে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখেই তাদের মসজিদে অবস্থান করতে হবে। যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনেই মুসল্লিরা খুতবাহ শুনবেন এবং নামাজ আদায় করবেন।

আজ ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২১ মোতাবেক ১৪ রজব কাবা শরিফ ও মদিনায় খুতবাহ ও জুমআর নামাজ পড়ানোর জন্য হারামাইন কর্তৃপক্ষ যে দুইজন প্রসিদ্ধ ইমাম ও খতিব নির্বাচিত করেছেন। তারা হলেন-

> কাবা শরিফ
প্রখ্যাত ইসলামিক স্কলার ও প্রবীণ ইমাম ও খতিব শায়খ ড. সালেহ বিন হুমাইদ।

> মসজিদে নববি
বিশিষ্ট ইসলামিক স্কলার, প্রবীণ ইমাম ও খতিব শায়খ ড. আব্দুল বারি থুবাইতি।

গত ১ মাস আগে মুসল্লিদের ভিড় কমাতে এবং নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে নামাজ পড়া ও স্বাস্থ্যবিধি মানার সুবিধার্থে মসজিদে নববির ছাদ খুলে দেয়া হয়েছে। সেখানে প্রায় ১০ হাজার মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারবে।

উল্লেখ্য, সৌদি আরবের সব মসজিদে নামাজ পড়ার সময় ও দিকনির্দেশনা জারি করা হয়েছে। দেশটির ইসলামিক দাওয়াহ ও দিকনির্দেশনা মন্ত্রণালয় গত ২ সপ্তাহ আগে নতুন এই নির্দেশনা জারি করে। তাতে জানানো হয়-
- মসজিদে আজান দেয়ার ১০ মিনিটের মধ্যে জামাআত শুরু করতে হবে।
- আজান ও জামাআতের মধ্যে ১০ মিনিটের বেশি বিরতি না দেয়া। তবে ফজরের নামাজের জন্য আজান ও জামাআতের মধ্যবর্তী সময়ের বিরতি হবে ২০ মিনিট।
- সরকারি নির্দেশনায় আরও বলা হয়েছে- মসজিদসমূহ আজানের পর খোলা হবে এবং নামাজের ১০ মিনিট পর বন্ধ করে দেয়া হয়।

জুমআর ক্ষেত্রে-
- জুমআর নামাজের ক্ষেত্রে জামে মসজিদগুলো আজানের ৩০ মিনিট আগে খোলা হবে। আর নামাজের ১০ মিনিট পর বন্ধ করে দেয়া হবে।
- আগের মতো জুমআর খুতবাহ ও জামাআত ১৫ মিনিটের বেশি হতে পারবে না। এ মর্মে সব খতিবকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

এমএমএস/এমএস

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]