গণস্বাস্থ্যের কিট কি বাজারে আসবে?

প্রদীপ দাস
প্রদীপ দাস প্রদীপ দাস , নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৬:১৯ পিএম, ১১ আগস্ট ২০২০

মার্চ মাস। দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত। পুরো দেশে আতঙ্ক। দিন যাচ্ছে আতঙ্কও বাড়ছে। প্রবাসীসহ অনেকেই করোনা পরীক্ষা করার জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন। কিটের সঙ্কট। নেই পর্যাপ্ত পরীক্ষার ব্যবস্থা। এমন পরিস্থিতিতে করোনা শনাক্তে স্বল্পমূল্যে এবং দ্রুত টেস্টিং কিট উদ্ভাবনের কথা জানায় দেশীয় প্রতিষ্ঠান গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র। দেশের মানুষের মধ্যে তীব্র আশার সঞ্চার হয়। মহামারি বিবেচনায় দ্রুত কিট বাজারে আনার অনুমোদনের আবেদন জানায় গণস্বাস্থ্য।

শুরু থেকেই দেখা যায় নাটকীয়তা। গণস্বাস্থ্যের কিটের নমুনা হস্তান্তর অনুষ্ঠানে যাননি স্বাস্থ্যমন্ত্রী কিংবা ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরসহ সরকারের কোনো প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি। এরপর সিআরও (কন্ট্রাক্ট রিসার্চ ফার্ম) প্রতিষ্ঠান নিয়ে তৈরি হয় জটিলতা। ওষুধ প্রশাসন ও গণস্বাস্থ্যের সেই দ্বন্দ্বও বেশ আলোচনার জন্ম দেয়। একপর্যায়ে গণস্বাস্থ্যের দাবি মেনে ‘নামসর্বস্ব’ সিআরও প্রতিষ্ঠানের পরিবর্তে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) কিটের সক্ষমতা যাচাই পরীক্ষার পক্ষে মত দেয় ওষুধ প্রশাসন।

এক মাসের বেশি সময় কার্যকারিতা যাচাই শেষে বিএসএমএমইউয়ের ‘কার্যকারিতা যাচাই কমিটি’ জুনের শেষ দিকে জানায়, গণস্বাস্থ্যের কিট কার্যকর নয়। তবে গণস্বাস্থ্য জানায়, বিএসএমএমইউয়ের পরীক্ষায়ই তাদের কিট ৭০ শতাংশ সফল। এই মুহূর্তে এতটুকু সফল কিট বিশ্বের কোথাও নেই।

ওই সময় পর্যন্ত কিটের সক্ষমতা যাচাইয়ে ওষুধ প্রশাসনের কোনো নীতিমালা ছিল না। গণস্বাস্থ্যের কিটের ফল প্রকাশের পর ওষুধ প্রশাসন কিট যাচাইয়ে যুক্তরাষ্ট্র যে নীতিমালা অনুসরণ করে, সেই নীতিমালা প্রণয়ন করে বাংলাদেশের জন্য। গণস্বাস্থ্য দ্বিতীয়বার তাদের কাছে গেলে ওষুধ প্রশাসন বলে, নতুন প্রণীত নীতিমালা অনুযায়ী কিটের সক্ষমতা যাচাই করে আনার জন্য। এ সময় গণস্বাস্থ্যের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘নতুন নীতিমালা অনুযায়ী কিটের সক্ষমতা যাচাই করার মতো পরীক্ষাগার বাংলাদেশে নেই। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় ও ওষুধ প্রশাসনকে জানিয়েও কাজ হচ্ছে না।’

kit.jpg

এরই মধ্যে পেরিয়ে যায় প্রায় পাঁচ মাস। বর্তমানে যে পরিস্থিতি দাঁড়িয়েছে তাতে গণস্বাস্থ্যের কিট আদৌ বাজারে আসার সম্ভাবনা আছে কি-না? জানতে চাইলে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ও ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী জাগো নিউজকে বলেন, ‘সবকিছু বিবেচনায় এটা বাজারে আসার সম্ভাবনা কম; নেই বললেও চলে। তবে আমরা আরেকটু ধৈর্য ধরতে চাই। সরকারের ইচ্ছা থাকলে দিয়ে দিত। এতে আমাদের ক্ষতি হয়েছে প্রায় ১০ কোটি টাকা। কিন্তু সরকারের ক্ষতি হয়েছে হাজার কোটি টাকা। জনগণ বঞ্চিত হয়েছে।’

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘ভ্যাকসিন আসলে ভালো কথা। তবে কিট ও ভ্যাকসিন- দুটোর আলাদা ভূমিকা। কথা হলো, কিট তারা চায়না থেকে বা বাইরে থেকে আমদানি করছে। আমাদেরটা আটকে দিয়েছে। যাতে বাজারে না আসে। আমি তো বলেছি, ঘুষ না দিলে যা হওয়ার, তা-ই হচ্ছে। দেশবাসী বঞ্চিত হচ্ছে। আজ ৪০০ টাকা দিয়ে যেটা হতো, তারা সেটা তিন হাজার টাকা দিয়ে কিনছে, এই আর কি।’

গণস্বাস্থ্যের কিট বাজারে না আসার পেছনে ভিন্ন ব্যাখ্যা দাঁড় করিয়েছেন সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন) সম্পাদক ড. বদিউল আলম মজুমদার। তার মতে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন ঘিরে বিএনপি-গণফোরামসহ কয়েকটি দল নিয়ে যে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠন করা হয়েছিল, তাতে যুক্ত ছিলেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। রাজনৈতিক পরিচয় ও অপরাজনীতির কারণেই গণস্বাস্থ্যের কিট বাজারে আসছে না বলে মনে করছেন বদিউল আলম। তিনি জাগো নিউজকে বলেন, ‘এই কিটের ক্ষেত্রে আমরা যতটুকু ধারণা করতে পারছি দূর থেকে দেখে, এটা অপরাজনীতির শিকার।’

kit.jpg

তিনি বলেন, ‘আমাদের আশঙ্কা, কিটের অনুমোদন না পাওয়ার পেছনে জাফরুল্লাহ চৌধুরীর রাজনৈতিক পরিচিতি, তার মতামত, সমালোচনা, সংস্কারক হিসেবে ভূমিকা— এসব কারণ থাকতে পারে। আমাদের আশঙ্কা, এটাই বড় ভূমিকা রেখেছে। এমনকি তাদের (গণস্বাস্থ্য) কিট যখন মূল্যায়ন করা হয়, তখন আমাদের বিশেষজ্ঞ ও যেসব প্রতিষ্ঠান কিটের মূল্যায়ন করেছে, তারা যেসব কথাবার্তা বলেছে, সেগুলো সম্পূর্ণ অনাকাঙ্ক্ষিত মনে হয়েছে। পুরোটা দলীয়করণ, দলীয় স্বার্থ, দলীয় বিবেচনা, ক্ষুদ্র স্বার্থ— এসব কারণে সবকিছু হচ্ছে বলে আমরা দেখতে পাচ্ছি। ভিন্নমত যারা পোষণ করে, ভিন্নমতে যারা সোচ্চার, তাদের শত্রু হিসেবে আখ্যায়িত করা হচ্ছে। রাষ্ট্রের শত্রু হিসেবে আখ্যায়িত হচ্ছেন তারা।’

এ বিষয়ে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কোভিড-১৯ র‌্যাপিড ডট ব্লট কিট প্রকল্পের সমন্বয়ক ডা. মুহিব উল্লাহ খোন্দকার জাগো নিউজকে বলেন, ‘সরকারের ওষুধ প্রশাসন আমাদের যা যা করতে বলছে, আমরা তা-ই করছি। আজ বলছে, ডাল নিয়ে আসেন, ডাল দিচ্ছি। কাল বলছে, পেঁয়াজ নিয়ে আসেন, পেঁয়াজ দিচ্ছি। পরশু বলছে, হলুদ নিয়ে আসেন, হলুদ দিচ্ছি। এরকম আর কি। সরকার যা যা বলল, তাই তাই করলাম।’

‘সরকার এখন আমাদের যে কাজটা করতে বলছে, সেটা হলো, এভাবে টেস্ট করে নিয়ে আসেন। কিন্তু সেই টেস্টটা বাংলাদেশে হয় না। সেটা করতে গেলে যুক্তরাষ্ট্র ছাড়া কোথাও করার সুযোগ-সুবিধা নেই এবং বিরাট অঙ্কের টাকা-পয়সাও লাগে। বিষয়টি আমরা ওষুধ প্রশাসনকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছি, প্রধানমন্ত্রীর অফিসকেও চিঠি দিয়ে জানিয়েছি যে, আমাদের এই কাজগুলো নতুন করে করতে বলছে; নতুন নিয়ম, কোনো ফ্যাসিলিটিস তো বাংলাদেশে নেই। আমরা এখন কী করব?’

তিনি আরও বলেন, ‘প্রথমত, এই টেস্ট করার সুযোগ-সুবিধা বাংলাদেশে নেই। দ্বিতীয়ত, এটা যদি বাংলাদেশে করতে চাই, তাতে কমপক্ষে ৩০ থেকে ৪০ লাখ টাকা লাগবে। সেই সঙ্গে সবকিছু অনুকূলে থাকলেও নতুন ল্যাব প্রস্তুত করে ৫ থেকে ৬ মাসের আগে যাচাই শেষ করা সম্ভব নয়। এখন এটা অনেকটা অসম্ভবই আর কি।’

jagonews24

মুহিব উল্লাহ খোন্দকার বলেন, ‘মানসম্মতভাবে টিকা তৈরি করতে ১৫ থেকে ২০ বছর সময় লাগে। যেহেতু এখন মহামারি, তাই সব দেশ ছয় মাস অথবা আরও কম সময়ের মধ্যে করার চেষ্টায়। সবাই মিলে জরুরি আইনের আওতায় অল্প সময়ের মধ্যে ভ্যাকসিন বাজারে আনার চেষ্টা করছে। কিন্তু এসব টিকার (ভ্যাকসিন) সর্বোচ্চ সফলতা এখন পর্যন্ত ৫০ শতাংশ। যুক্তরাষ্ট্রের এফডিএ বলল, আমরা যদি ৫০ শতাংশ পাই, তারপরও আমরা টিকা কিনব। এই টিকা কেনার জন্য তারা ইতোমধ্যে বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করছে। তারা এটা মেনে নিয়েছে যে, টিকার সফলতা মাত্র ৫০ শতাংশ। আর আমাদের বাংলাদেশে হচ্ছে উল্টো। আমরা বিএসএমএমইউতে ৭০ শতাংশ সফলতা পেয়েছি। এই মুহূর্তে পৃথিবীতে এটা সর্বোচ্চ রেকর্ড। এর চেয়ে ভালো সেনসিটিভিটি কারও নেই। কিন্তু উনারা অন্য কারণে…। এটা দুঃখজনক আর কি।’

‘স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অবস্থা এখন খুবই খারাপ। কখন কী বলছে, না বলছে, তার ঠিক নাই। পুরো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়টা করোনায় আক্রান্ত হয়ে গেছে। সব উদ্ভট ব্যবহার। প্রধানমন্ত্রী এক নীতির কথা বলেন, আর ওষুধ প্রশাসন আরেক কথা বলে।’

গণস্বাস্থ্যের কিটের বিষয়ে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমানের সঙ্গে মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। পরিচয় দিয়ে তাকে যোগাযোগের উদ্দেশ্য সম্পর্কে মেসেজও করা হয়। কিন্তু কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি।

মহাপরিচালককে না পেয়ে জাগো নিউজের পক্ষ থেকে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের উপ-পরিচালক মো. সালাউদ্দিনের সঙ্গে যোগযোগ করা হয়। তার কাছে গণস্বাস্থ্যের কিটের অনুমোদনের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি এখন আর কিছুই বলতে পারব না। এটা ডিজি মহোদয়ই বলতে পারবেন। এটা তো অনেক পুরোনো ব্যাপার।’

‘এটা (গণস্বাস্থ্যের কিট নিবন্ধন) না পাওয়ার কারণ অনেকবার পত্রিকায় এসেছে। অনেকবারই বলা হয়েছে। আমি এ ব্যাপার বলার এনটাইটেল (যথোপযুক্ত ব্যক্তি) নই। এটা ডিজি মহোদয়…।’

পিডি/এইচএ/এমএআর/এমএস

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

২৩,১৮,৬১,২৭৬
আক্রান্ত

৪৭,৫০,৪৫২
মৃত

২০,৮৪,৪৭,৮৭৬
সুস্থ

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ
বাংলাদেশ ১৫,৪৯,৫৫৩ ২৭,৩৬৮ ১৫,০৯,২০২
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ৪,৩৬,৬৫,৯১৬ ৭,০৫,২৩৭ ৩,৩১,০৬,১৪১
ভারত ৩,৩৬,২৩,০৭২ ৪,৪৬,৬৯০ ৩,২৮,৬৮,৭৭২
ব্রাজিল ২,১৩,২৭,৬১৬ ৫,৯৩,৬৯৮ ২,০৩,২৬,৪০৮
যুক্তরাজ্য ৭৬,০১,৪৮৭ ১,৩৫,৯৮৩ ৬১,৩১,১৩৭
রাশিয়া ৭৩,৭৬,৩৭৪ ২,০২,২৭৩ ৬৫,৭৪,৬০৮
তুরস্ক ৬৯,৮৭,৪৯৪ ৬২,৭৪৫ ৬৪,৫৩,২০১
ফ্রান্স ৬৯,৮৩,৬০১ ১,১৬,৪২০ ৬৭,০৯,৬৭১
ইরান ৫৫,০৮,৮৮৫ ১,১৮,৭৯২ ৪৮,৯৭,৮৭৬
১০ আর্জেন্টিনা ৫২,৪৮,৮৪৭ ১,১৪,৮২৮ ৫১,০৭,৯১২
১১ কলম্বিয়া ৪৯,৪৮,৫১৩ ১,২৬,০৬৮ ৪৭,৮৮,৫৭৩
১২ স্পেন ৪৯,৪৬,৬০১ ৮৬,২২৯ ৪৭,০৮,১৬৭
১৩ ইতালি ৪৬,৫৩,৬৯৬ ১,৩০,৬০৩ ৪৪,১৯,৫৩৭
১৪ ইন্দোনেশিয়া ৪২,০৪,১১৬ ১,৪১,২৫৮ ৪০,১৭,০৫৫
১৫ জার্মানি ৪১,৯৪,৫৪৯ ৯৩,৯৩৩ ৩৯,৪৩,২০০
১৬ মেক্সিকো ৩৬,০৮,৯৭৬ ২,৭৪,১৩৯ ২৯,৬১,৩৬৩
১৭ পোল্যান্ড ২৯,০১,৬৭৪ ৭৫,৫৫১ ২৬,৬০,৪৩৮
১৮ দক্ষিণ আফ্রিকা ২৮,৯৪,৩৪২ ৮৬,৯৬৭ ২৭,৫৬,৬৯৩
১৯ ফিলিপাইন ২৪,৫৩,৩২৮ ৩৭,৪০৫ ২২,৪০,৫৯৯
২০ ইউক্রেন ২৩,৭৯,৪৮৩ ৫৫,৪২৪ ২২,৪০,৩৮৮
২১ মালয়েশিয়া ২১,৭১,২৩২ ২৪,৯৩১ ১৯,৫০,৪৬৪
২২ পেরু ২১,৭০,৪৭৫ ১,৯৯,১৫৬ ১৭,২০,৬৬৫
২৩ নেদারল্যান্ডস ১৯,৯৩,৩০৯ ১৮,১৪৭ ১৯,০৮,২৮০
২৪ ইরাক ১৯,৯০,৩১৬ ২২,০৩৯ ১৮,৮৭,১০৩
২৫ চেক প্রজাতন্ত্র ১৬,৮৮,৪৫৭ ৩০,৪৫১ ১৬,৫১,৮১২
২৬ জাপান ১৬,৮৭,৪২২ ১৭,৩৭৫ ১৬,২০,৩২৪
২৭ চিলি ১৬,৫০,২৩৮ ৩৭,৪২৩ ১৬,০৫,৯৪৮
২৮ কানাডা ১৫,৯৮,৮০০ ২৭,৬২০ ১৫,২৬,১৫৬
২৯ থাইল্যান্ড ১৫,৩৭,৩১০ ১৬,০১৬ ১৩,৯৩,৯০২
৩০ ইসরায়েল ১২,৫৬,৬০০ ৭,৬১১ ১১,৮৩,৩৯৪
৩১ পাকিস্তান ১২,৩৪,৮২৮ ২৭,৪৮২ ১১,৪৬,৩৯৪
৩২ বেলজিয়াম ১২,৩১,৫২৩ ২৫,৫৪৩ ১১,৪৩,০৭৮
৩৩ রোমানিয়া ১১,৮০,০৯৭ ৩৬,১০৯ ১০,৯৩,১৫১
৩৪ সুইডেন ১১,৪৯,৪০৭ ১৪,৭৮১ ১১,০৭,৩৫৬
৩৫ পর্তুগাল ১০,৬৫,৬৩৩ ১৭,৯৪৭ ১০,১৫,৯২৭
৩৬ মরক্কো ৯,২৭,১২৭ ১৪,১০২ ৮,৯৫,৪৩৪
৩৭ সার্বিয়া ৮,৯৯,৪৮৫ ৭,৯৬৬ ৭,৭১,৭৯৭
৩৮ কাজাখস্তান ৮,৭২,৫৯৬ ১০,৯৫৩ ৮,০৫,৩৪৬
৩৯ কিউবা ৮,৩৯,৯৮১ ৭,১০৪ ৭,৯৬,০২৫
৪০ সুইজারল্যান্ড ৮,৩৩,৩৮৩ ১১,০৫২ ৭,৫৪,১৯২
৪১ হাঙ্গেরি ৮,২০,০৭৮ ৩০,১৫১ ৭,৮১,৭৯৪
৪২ জর্ডান ৮,১৮,৩৫৮ ১০,৬৫৩ ৭,৯৫,৩৫৯
৪৩ নেপাল ৭,৮৯,৮৭২ ১১,০৮১ ৭,৫৮,৫০৪
৪৪ ভিয়েতনাম ৭,৩৬,৯৭২ ১৮,২২০ ৫,০৫,৮৫৯
৪৫ সংযুক্ত আরব আমিরাত ৭,৩৪,২৭৫ ২,০৮৬ ৭,২৬,৪০৮
৪৬ অস্ট্রিয়া ৭,৩২,১৫৭ ১০,৯৫৩ ৭,০০,১৩০
৪৭ তিউনিশিয়া ৭,০৩,০৫৯ ২৪,৬৭৬ ৬,৭১,৮৬৬
৪৮ গ্রীস ৬,৪৩,০৫৫ ১৪,৬৩৯ ৬,০০,৫৫১
৪৯ লেবানন ৬,২১,১৫৫ ৮,২৬৮ ৫,৮৭,২৫৪
৫০ জর্জিয়া ৬,০৩,৭৬৩ ৮,৭৪৯ ৫,৭২,৩৫৩
৫১ সৌদি আরব ৫,৪৬,৮৪৩ ৮,৬৮৮ ৫,৩৫,৮৪২
৫২ গুয়াতেমালা ৫,৪৫,৭৯৬ ১৩,২৮৩ ৪,৯৮,৬০২
৫৩ বেলারুশ ৫,২৬,২৪২ ৪,০৬৬ ৫,১০,৩০৪
৫৪ কোস্টারিকা ৫,২১,১৮২ ৬,১৮৯ ৪,২০,২০৪
৫৫ শ্রীলংকা ৫,১১,৩৭২ ১২,৫৩০ ৪,৫২,৬৯২
৫৬ ইকুয়েডর ৫,০৭,৮৫৮ ৩২,৭২০ ৪,৪৩,৮৮০
৫৭ বলিভিয়া ৪,৯৮,৩৩১ ১৮,৬৮৮ ৪,৫৫,০৬৮
৫৮ বুলগেরিয়া ৪,৯১,৩২৭ ২০,৪২৩ ৪,২৯,০৩০
৫৯ আজারবাইজান ৪,৭৮,৭১৫ ৬,৪১৫ ৪,৪৬,৬৪৩
৬০ পানামা ৪,৬৫,৭৩৬ ৭,১৯৭ ৪,৫৪,৭৭৬
৬১ প্যারাগুয়ে ৪,৫৯,৭৭৯ ১৬,১৪২ ৪,৪২,৫১২
৬২ মায়ানমার ৪,৫৫,০৭৪ ১৭,৪১৩ ৪,০৮,২৯২
৬৩ কুয়েত ৪,১১,৪০৬ ২,৪৪৪ ৪,০৮,২৮৩
৬৪ স্লোভাকিয়া ৪,০৬,৭৬০ ১২,৫৯৪ ৩,৮৫,১৬৭
৬৫ ক্রোয়েশিয়া ৩,৯৭,৭৬১ ৮,৫৬৬ ৩,৮০,৬৭৮
৬৬ ফিলিস্তিন ৩,৯৪,৬৮৩ ৩,৯৯৭ ৩,৬১,৫১৫
৬৭ উরুগুয়ে ৩,৮৮,৩১৩ ৬,০৫১ ৩,৮০,৭৮৯
৬৮ আয়ারল্যান্ড ৩,৮১,৮৮৩ ৫,২০৯ ৩,৩৪,০২৪
৬৯ হন্ডুরাস ৩,৬২,২৮১ ৯,৬৬১ ১,০৮,৮৩২
৭০ ভেনেজুয়েলা ৩,৫৯,৬৩৩ ৪,৩৬৩ ৩,৪৩,০৬৮
৭১ ডোমিনিকান আইল্যান্ড ৩,৫৬,৬৯৪ ৪,০৩৫ ৩,৪৭,৭৬৯
৭২ ডেনমার্ক ৩,৫৬,৩২৬ ২,৬৪০ ৩,৪৯,০১৪
৭৩ ইথিওপিয়া ৩,৩৯,৬৫৮ ৫,৩৩১ ৩,০৬,২৮৮
৭৪ লিবিয়া ৩,৩৫,৯৯১ ৪,৫৮৮ ২,৫৩,৫২৪
৭৫ লিথুনিয়া ৩,২২,৭২০ ৪,৮৮৫ ২,৯৭,০৯৬
৭৬ ওমান ৩,০৩,৫৫১ ৪,০৯৩ ২,৯৫,১৬৮
৭৭ মিসর ৩,০০,২৭৮ ১৭,১১০ ২,৫৩,২৭১
৭৮ দক্ষিণ কোরিয়া ২,৯৫,১৩২ ২,৪৩৪ ২,৬৪,৪৯২
৭৯ মঙ্গোলিয়া ২,৮৯,৯২৯ ১,১৭১ ২,৭৮,৩৭২
৮০ স্লোভেনিয়া ২,৮৮,২১৯ ৪,৫২৬ ২,৭০,০০৭
৮১ মলদোভা ২,৮৭,৭৩০ ৬,৬৬৫ ২,৭১,৬৫২
৮২ বাহরাইন ২,৭৪,৬৭৬ ১,৩৮৯ ২,৭২,৫৫৩
৮৩ আর্মেনিয়া ২,৫৬,৫৫৪ ৫,২১৬ ২,৩৮,৫২৭
৮৪ কেনিয়া ২,৪৮,০৬৯ ৫,০৮২ ২,৩৯,২৯৮
৮৫ কাতার ২,৩৬,১২৩ ৬০৪ ২,৩৩,৯৯৮
৮৬ বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা ২,৩০,৮০১ ১০,৪২২ ১,৯২,২১৮
৮৭ জাম্বিয়া ২,০৮,৭৭৮ ৩,৬৪২ ২,০৪,৫৫৩
৮৮ নাইজেরিয়া ২,০৩,৯৯১ ২,৬৭১ ১,৯২,১৩৯
৮৯ আলজেরিয়া ২,০২,৪৪৯ ৫,৭৫৮ ১,৩৮,৬৩২
৯০ উত্তর ম্যাসেডোনিয়া ১,৮৯,১৫৯ ৬,৫৫৭ ১,৭০,৩৯৫
৯১ নরওয়ে ১,৮৬,০৩৫ ৮৫০ ৮৮,৯৫২
৯২ কিরগিজস্তান ১,৭৮,১২৩ ২,৫৯৭ ১,৭২,৬৫৭
৯৩ বতসোয়ানা ১,৭৬,৪২৭ ২,৩৬০ ১,৭২,০৫১
৯৪ উজবেকিস্তান ১,৭১,০৮০ ১,২১২ ১,৬৫,২৮২
৯৫ আলবেনিয়া ১,৬৬,৬৯০ ২,৬১৯ ১,৫১,৯১৪
৯৬ আফগানিস্তান ১,৫৫,০১৯ ৭,১৯৯ ১,২৩,৫২৭
৯৭ লাটভিয়া ১,৫৩,৪০৩ ২,৬৭৫ ১,৪৩,২৯৪
৯৮ এস্তোনিয়া ১,৫২,৪২৯ ১,৩৪৩ ১,৪১,৪৪৭
৯৯ মোজাম্বিক ১,৫০,৪৩৯ ১,৯০৮ ১,৪৬,৩৭২
১০০ ফিনল্যাণ্ড ১,৩৮,৫৭৮ ১,০৬২ ৪৬,০০০
১০১ জিম্বাবুয়ে ১,২৯,১৩৪ ৪,৬০০ ১,২১,৮৪১
১০২ মন্টিনিগ্রো ১,২৮,৭৯৬ ১,৮৮৪ ১,১৮,৯৬৩
১০৩ নামিবিয়া ১,২৭,০৭১ ৩,৪৮৮ ১,২২,৫৩৯
১০৪ ঘানা ১,২৬,৩১৩ ১,১৪২ ১,২১,৩০৪
১০৫ উগান্ডা ১,২২,৯০৩ ৩,১৪০ ৯৫,৯৭৯
১০৬ সাইপ্রাস ১,১৭,৮৬৮ ৫৫১ ৯০,৭৫৫
১০৭ কম্বোডিয়া ১,০৭,৪৪১ ২,১৯৭ ৯৯,৬২৮
১০৮ এল সালভাদর ১,০২,০২৪ ৩,১৬৪ ৮৯,৩২৬
১০৯ রুয়ান্ডা ৯৬,৫৭০ ১,২৪২ ৪৫,৪৫২
১১০ চীন ৯৫,৯৪৮ ৪,৬৩৬ ৯০,৩০৩
১১১ অস্ট্রেলিয়া ৯৩,৯৫৬ ১,২০৮ ৭১,৬০৮
১১২ ক্যামেরুন ৮৫,৪১৪ ১,৩৬৮ ৮০,৪৩৩
১১৩ সিঙ্গাপুর ৮৪,৫১০ ৭৩ ৭৩,৩৯৫
১১৪ মালদ্বীপ ৮৪,১৬৪ ২৩০ ৮২,৩০৯
১১৫ জ্যামাইকা ৮১,৮২৮ ১,৮২১ ৫১,৫৪৪
১১৬ লুক্সেমবার্গ ৭৭,৭৬২ ৮৩৫ ৭৫,৭৬৫
১১৭ সেনেগাল ৭৩,৭১৯ ১,৮৫৪ ৭১,২১৮
১১৮ মালাউই ৬১,৪৭৫ ২,২৭২ ৫৪,০৬৬
১১৯ আইভরি কোস্ট ৫৯,৬৫৬ ৫৮৯ ৫৭,১৮৭
১২০ ড্যানিশ রিফিউজি কাউন্সিল ৫৬,৬১৭ ১,০৮৩ ৩০,৮৫৮
১২১ অ্যাঙ্গোলা ৫৪,২৮০ ১,৪৭১ ৪৭,১৭৫
১২২ রিইউনিয়ন ৫৩,২৪১ ৩৬৩ ৫২,০১০
১২৩ গুয়াদেলৌপ ৫৩,১৪০ ৬৯০ ২,২৫০
১২৪ ফিজি ৫০,৫৪০ ৫৮৪ ৩৬,৫২৪
১২৫ ত্রিনিদাদ ও টোবাগো ৪৯,৬৮৮ ১,৪৪১ ৪৩,৯৭৭
১২৬ ইসওয়াতিনি ৪৫,৭০১ ১,২১০ ৪৩,৬৯৭
১২৭ মাদাগাস্কার ৪২,৮৯৮ ৯৫৮ ৪২,৫৪৫
১২৮ মার্টিনিক ৪০,৫৪৫ ৫৮২ ১০৪
১২৯ ফ্রেঞ্চ পলিনেশিয়া ৪০,১৭৮ ৬১১ ৩৩,৫০০
১৩০ ফ্রেঞ্চ গায়ানা ৩৯,৭৯০ ২৫৬ ৯,৯৯৫
১৩১ সুরিনাম ৩৯,১৪০ ৮২৮ ২৬,৮৩৮
১৩২ সুদান ৩৮,১৮২ ২,৮৯৪ ৩২,০৩৮
১৩৩ কেপ ভার্দে ৩৭,৩৫৫ ৩৩৪ ৩৬,৩০৪
১৩৪ মালটা ৩৭,০৬১ ৪৫৭ ৩৫,৭৩৭
১৩৫ মৌরিতানিয়া ৩৫,৭৭৭ ৭৬৮ ৩৪,১৪০
১৩৬ সিরিয়া ৩২,১৩৮ ২,১৮৭ ২৩,৩৮৩
১৩৭ গায়ানা ৩০,৬৯৬ ৭৪৯ ২৬,১৩৯
১৩৮ গিনি ৩০,৩৪৩ ৩৭৬ ২৮,৬৩৬
১৩৯ গ্যাবন ২৯,১২৬ ১৭৮ ২৬,৫৪১
১৪০ টোগো ২৫,০৮৩ ২১৯ ২১,৭৫৮
১৪১ বেনিন ২২,৯৫৮ ১৫৪ ১৭,২৯৪
১৪২ হাইতি ২১,৫৪০ ৬১০ ১৯,৩৪৮
১৪৩ সিসিলি ২১,২৫৭ ১১৫ ২০,৬৫৭
১৪৪ লাওস ২১,০৮০ ১৬ ৫,৫৬৮
১৪৫ বাহামা ২০,৬০৩ ৫২২ ১৮,২৬৫
১৪৬ মায়োত্তে ২০,২১৯ ১৭৮ ২,৯৬৪
১৪৭ বেলিজ ১৯,৬০০ ৪০২ ১৭,২৪৭
১৪৮ সোমালিয়া ১৯,৫৮৩ ১,০৯৯ ৯,৩৪৫
১৪৯ পূর্ব তিমুর ১৯,৩০৮ ১১১ ১৮,০৮৯
১৫০ পাপুয়া নিউ গিনি ১৯,২৭৮ ২২৫ ১৮,২৫৪
১৫১ তাজিকিস্তান ১৭,০৮৪ ১২৪ ১৬,৯৬০
১৫২ বুরুন্ডি ১৬,৩৫৬ ৩৮ ৭৭৩
১৫৩ কিউরাসাও ১৬,৩০৩ ১৫৯ ১৫,৬৬২
১৫৪ তাইওয়ান ১৬,১৭৬ ৮৪১ ১৫,১৭২
১৫৫ আরুবা ১৫,৩৭০ ১৬০ ১৪,৯৫২
১৫৬ এনডোরা ১৫,১৬৭ ১৩০ ১৪,৯৬৬
১৫৭ মরিশাস ১৫,১৬১ ৭১ ১,৮৫৪
১৫৮ মালি ১৫,১৩০ ৫৪৭ ১৪,২৫৫
১৫৯ লেসোথো ১৪,৩৯৫ ৪০৩ ৬,৮৩০
১৬০ বুর্কিনা ফাঁসো ১৪,১১৬ ১৭৯ ১৩,৭৮৭
১৬১ কঙ্গো ১৪,১১৩ ১৯১ ১২,৪২১
১৬২ নিকারাগুয়া ১৩,৭৩০ ২০৩ ৪,২২৫
১৬৩ জিবুতি ১২,২৫৩ ১৬২ ১১,৮৩৮
১৬৪ হংকং ১২,১৭৭ ২১৩ ১১,৮৮৮
১৬৫ দক্ষিণ সুদান ১১,৯২৬ ১২৮ ১১,৩৭৫
১৬৬ ইকোয়েটরিয়াল গিনি ১১,৮০৬ ১৪২ ১০,২২৫
১৬৭ আইসল্যান্ড ১১,৬৩২ ৩৩ ১১,২৫১
১৬৮ চ্যানেল আইল্যান্ড ১১,৪৬৬ ৯৭ ১১,০৩৩
১৬৯ সেন্ট্রাল আফ্রিকান রিপাবলিক ১১,৩৭১ ১০০ ৬,৮৫৯
১৭০ সেন্ট লুসিয়া ১০,৯৬১ ১৮১ ৮,৫৯৯
১৭১ গাম্বিয়া ৯,৯১১ ৩৩৫ ৯,৫৪৮
১৭২ ইয়েমেন ৮,৮৬১ ১,৬৭৩ ৫,৪৭০
১৭৩ আইল অফ ম্যান ৭,৩২৪ ৫১ ৬,৭৯০
১৭৪ বার্বাডোস ৭,২৩২ ৬৪ ৬,৩১১
১৭৫ ইরিত্রিয়া ৬,৬৮৫ ৪২ ৬,৬২৮
১৭৬ সিয়েরা লিওন ৬,৩৯৩ ১২১ ৪,৩৭৭
১৭৭ গিনি বিসাউ ৬,০৯৯ ১৩৫ ৫,২৭৫
১৭৮ নাইজার ৫,৯৭৪ ২০১ ৫,৭২৩
১৭৯ ব্রুনাই ৫,৯৬০ ৩৩ ৪,০২২
১৮০ লাইবেরিয়া ৫,৯১৫ ২৮৩ ৫,৪৫৮
১৮১ নিউ ক্যালেডোনিয়া ৫,৮০৫ ৬২ ৫৮
১৮২ জিব্রাল্টার ৫,৫০২ ৯৭ ৫,৩৩৫
১৮৩ সান ম্যারিনো ৫,৪১৯ ৯০ ৫,২৬৯
১৮৪ চাদ ৫,০৩১ ১৭৪ ৪,৮৪৮
১৮৫ বারমুডা ৪,৯৮২ ৫২ ৩,৩১৮
১৮৬ গ্রেনাডা ৪,৬৩৮ ৯৮ ২,৪০৬
১৮৭ সিন্ট মার্টেন ৪,১৯৭ ৬২ ৩,৯৭০
১৮৮ নিউজিল্যান্ড ৪,১৪৪ ২৭ ৩,৮৬১
১৮৯ কমোরস ৪,১১২ ১৪৭ ৩,৯৫৩
১৯০ সেন্ট মার্টিন ৩,৭২৭ ৫৫ ১,৩৯৯
১৯১ লিচেনস্টেইন ৩,৪৩৯ ৬০ ৩,৩৩৬
১৯২ মোনাকো ৩,৩০২ ৩৩ ৩,২৩৮
১৯৩ ডোমিনিকা ৩,১৯৭ ১৩ ২,৬৩৯
১৯৪ সেন্ট ভিনসেন্ট ও গ্রেনাডাইন আইল্যান্ড ৩,১৫৮ ১৭ ২,৩৬৪
১৯৫ টার্কস্ ও কেইকোস আইল্যান্ড ২,৮২৪ ২২ ২,৭০১
১৯৬ অ্যান্টিগুয়া ও বার্বুডা ২,৮১৫ ৬৩ ১,৭৩৭
১৯৭ ব্রিটিশ ভার্জিন দ্বীপপুঞ্জ ২,৬৪২ ৩৭ ২,৫৫৫
১৯৮ ভুটান ২,৫৯৯ ২,৫৯৩
১৯৯ ক্যারিবিয়ান নেদারল্যান্ডস ২,০০৩ ১৮ ৬,৪৪৫
২০০ সেন্ট কিটস ও নেভিস ১,৭৬২ ১০ ৯৭০
২০১ সেন্ট বারথেলিমি ১,৫৬৫ ৪৬২
২০২ তানজানিয়া ১,৩৬৭ ৫০ ১৮৩
২০৩ ফারে আইল্যান্ড ১,০৯৮ ১,০৩৯
২০৪ কেম্যান আইল্যান্ড ৭৯১ ৭৩৫
২০৫ ডায়মন্ড প্রিন্সেস (প্রমোদ তরী) ৭১২ ১৩ ৬৯৯
২০৬ গ্রীনল্যাণ্ড ৫৫৩ ৩৯৮
২০৭ ওয়ালিস ও ফুটুনা ৪৪৫ ৪৩৮
২০৮ এ্যাঙ্গুইলা ৩৬৪ ৩৪৫
২০৯ ফকল্যান্ড আইল্যান্ড ৬৭ ৬৩
২১০ ম্যাকাও ৬৩ ৬৩
২১১ মন্টসেরাট ৩৩ ৩০
২১২ সেন্ট পিয়ের এন্ড মিকেলন ৩১ ৩১
২১৩ ভ্যাটিকান সিটি ২৭ ২৭
২১৪ সলোমান আইল্যান্ড ২০ ২০
২১৫ পশ্চিম সাহারা ১০
২১৬ জান্ডাম (জাহাজ)
২১৭ পালাও
২১৮ মার্শাল আইল্যান্ড
২১৯ ভানুয়াতু
২২০ সামোয়া
২২১ সেন্ট হেলেনা
তথ্যসূত্র: চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (সিএনএইচসি) ও অন্যান্য।
করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]