আত্মবিশ্বাসের তুঙ্গে রয়েছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স

বিশেষ সংবাদদাতা
বিশেষ সংবাদদাতা বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৬:৩৮ পিএম, ২০ জানুয়ারি ২০১৯

সিলেট সিক্সার্সকে হারিয়ে বিপিএলে শুভ সূচনা হয়েছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের। কিন্তু পরের ম্যাচেই মাশরাফি বিন মর্তুজার রংপুর রাইডার্সের সামনে পড়ে নাকানি-চুবানি খেতে হয়েছিল তামিম ইকবালের দলকে। বিশাল ব্যাটিং লাইনআপ নিয়েও মাত্র ৬৩ রানে অলআউট হতে হয়েছিল এবারের আসরে কাগজে-কলমে সবচেয়ে শক্তিশালী দলকে।

রংপুরের কাছে হারের ক্ষত পরের ম্যাচেই রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে পুষিয়ে নিতে সক্ষম হয় ভিক্টোরিয়ানরা। কিন্তু ধারাবাহিকতা মোটেও রক্ষা করতে পারেনি তামিম-আফ্রিদি-এভিন লুইসরা। কারণ পরের ম্যাচে ১৮৪ রান করেও হারতে হয়েছিল মুশফিকুর রহীমের চিটাগং ভাইকিংসের কাছে।

বিপিএলে এখনও পর্যন্ত খেলা ৬ ম্যাচের মধ্যে এই দুটি ম্যাচেই হোঁচট খেতে হয়েছে ২০১৫ সালের চ্যাম্পিয়নদের। সিলেট সিক্সার্স এবং খুলনা টাইটান্সের বিপক্ষে টানা দুটি জয়ের পর এমনিতেই ফুরফুরে মেজাজে থাকার কথা পুরো দলকে। কুমিল্লার পেস অলরাউন্ডার জিয়াউর রহমানের কথা শুনলে সেটাই বিশ্বাস করতে বাধ্য হবেন আপনি।

সর্বশেষ ম্যাচে খুলনা টাইটান্সের করা ১৮১ রানের বিশাল চ্যালেঞ্জ পাড়ি দিয়ে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স জিতেছে ৩ উইকেটের ব্যবধানে। তামিমের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে উড়ে যেতে বাধ্য হলো মাহমুদউল্লাহর খুলনা।

ইনজুরির কারণে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স থেকে দেশে ফিরে যেতে বাধ্য হয়েছেন অসি তারকা স্টিভেন স্মিথ। জাতীয় দলের সূচির কারণে ফিরে গেছেন শোয়েব মালিকও। তবুও কুমিল্লা শক্তিশালী। ইমরুল কায়েসের নেতৃত্বে ভালোই এগুচ্ছে দল। ৬ ম্যাচে ৪ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে তারা। রান রেট (+০.২২৬)।

আগামীকাল মেহেদী হাসান মিরাজের রাজশাহী কিংসের মুখোমুখি হবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। দিনের প্রথম ম্যাচে রাজশাহীর মুখোমুখি হওযার আগে আজ সকাল সকাল মিরপুরের একাডেমি মাঠে অনুশীলন করতে আসে কুমিল্লার ক্রিকেটাররা। সেখানেই মিডিয়ার মুখোমুখি হন কুমিল্লার ক্রিকেটার জিয়াউর রহমান।

দলের কি অবস্থা জানতে চাইলে জিয়াউর রহমান বলেন, ‘ওভারঅল আমাদের দলটা খুবই ভালো। টিম ম্যানেজমেন্টকে ধন্যবাদ জানাই, এত সুন্দর দল বানানোর জন্য। আমরা দুইটি ম্যাচ হেরে পর পর চারটি (মূলতঃ হবে পরপর দুটি) ম্যাচ জিতেছি। শেষ ম্যাচ জয়ের পর আত্মবিশ্বাস অনেক বেড়ে গেছে। আমাদের যে সমস্যাগুলো ছিল, সেগুলো পূরণ করে আবার খেলার চেষ্টা করব। আশা করি লুইস (এভিন লুইস) আবার ফিট হয়েছে। এখন ভালো পজিশনে আছে।’

প্রতিপক্ষ দলে তো মোস্তাফিজের মত পেসার রয়েছেন। যিনি প্রতিটা ম্যাচেই একটা পার্থক্য গড়ে দিচ্ছেন। জিজ্ঞাসা করলে জিয়াউর রহমানের উত্তর, ‘অবশ্যই মোস্তাফিজ খুবই ভালো বোলার। আমাদের ব্যাটসম্যানরা সবাই কিন্তু ফর্মে আছে। এটা গুরুত্বপূর্ণ জিনিস। আমি আশা করি মোস্তাফিজকে খুব ভালোভাবে সামলাতে পারবে তারা।’

জিয়াউর রহমানের আশা, দলটা পুরোপুরি ফর্মে আছে। এটাই তাদেরকে এগিয়ে রাখবে। তিনি বলেন, ‘আমি আশা করি আমরা অনেক এগিয়ে আছি, কারণ আমাদের ব্যাটসম্যানরা ফর্মে আছে। টিম কম্বিনেশনও অনেক ভালো। যেই দলটা দ্রুত ম্যাচের গতি বুঝতে পারে, তারাই পারফর্ম করবে। কারণ টি-টুয়েন্টি অনেক শর্ট ফরম্যাট।’

এআরবি/আইএইচএস/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :