কোথায় ঈদের নামাজ পড়বেন টাইগাররা, জানেন না এখনও

আরিফুর রহমান বাবু
আরিফুর রহমান বাবু আরিফুর রহমান বাবু , বিশেষ সংবাদদাতা লন্ডন থেকে
প্রকাশিত: ০৭:৩৯ পিএম, ০৩ জুন ২০১৯

নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চে আল নূর জামে মসজিদে নারকীয় সন্ত্রাসী হামলার ঘটনার পর পার হয়েছে মাত্র দুই মাস। যে ঘটনায় নিহত হয়েছেন পঞ্চাশেরও বেশি মানুষ। আল্লাহর অশেষ মেহেরবানিতে ওই ঘটনায় আক্রান্ত হওয়া থেকে বেঁচে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা।

নিউজিল্যান্ডের সেই ঘটনার রেশ যাতে বিশ্বকাপে না পড়ে সে জন্য সতর্ক আইসিসি এবং আয়োজক ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। অংশগ্রহণকারী ১০ দলের ক্রিকেটার এবং কর্মকর্তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিতের সর্বোচ্চ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে তারা।

এদিকে বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার পরই সামনে চলে এসেছে পবিত্র ঈদুল ফিতর। বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা নিশ্চিত ঈদের সালাত আদায় করবেন। স্থানীয়দের ধারণা, আগামীকালই (মঙ্গলবার) লন্ডনে ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হতে পারে। কারণ, যুক্তরাজ্যসহ অনেক দেশই সৌদি আরবের সঙ্গে মিল রেখে রোজা পালন এবং ঈদের নামাজ আদায় করে।

সে হিসেবে মঙ্গলবার ঈদুল ফিতর অনুষ্ঠিত হলে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা ঈদের নামাজ আদায় করবেন; কিন্তু সমস্যা দেখা দিয়েছে, মাশরাফি-সাকিব-মুশফিকরা কোথায় ঈদের নামাজ পড়বেন, সেটা এখনও নিশ্চিত নয়। টাইগার ক্রিকেটারদের ঈদের নামাজ আদায়ের সময় নিরাপত্তা নিশ্চিতের ব্যাপারে এখনও কোনো গ্রিন সিগনাল দেয়নি আইসিসি। যদিও জানা গেছে, বাংলাদেশ দলের হাই কমিশন বিষয়টা দেখভাল করছে এবং বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররাও ঈদের নামাজ আদায় করার ব্যাপারে বদ্ধপরিকর।

মূলত নিউজিল্যান্ডের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে সতর্ক লন্ডন পুলিশ এবং আইসিসি। সে কারণেই তারা কোনোভাবেই জানাচ্ছে না যে, কোথায়, কোন মসজিতে ঈদের নামাজ পড়বে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। এমনকি দলের ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন আজ স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা পর্যন্তও বলতে পারেননি কোথায় নামাজ পড়বে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা।

একটি দায়িত্বশীল সূত্র জাগো নিউজকে জানিয়েছে, ঈদের নামাজের ব্যাপারে আইসিসি এখনও কোনো গ্রিন সিগনাল দেয়নি। তবে অবশ্যই বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা ঈদের নামাজ পড়বেন। যদিও কোথায় নামাজ পড়বেন এখনও সে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।’ খালেদ মাহমুদ সুজন নিশ্চিত করছেন, অবশ্যই আমরা নামাজ পড়বো। তবে স্থানীয় প্রশাসন এবং আইসিসি সিকিউরিটি ইউনিটের গ্রিন সিগনাল নিয়েই।

ইস্ট লন্ডনে সবচেয়ে বড় মসজিদ ‘ইস্ট লন্ডন মসজিদ’-এ অনুষ্ঠিত হবে ৫টি ঈদের জামাত। সকাল ৭টা থেকে শুরু করে প্রতি এক ঘণ্টা পরপর ১১টা পর্যন্ত এই ঈদের জামাতগুলো অনুষ্ঠিত হবে। ধারণা করা হচ্ছে, সেখানেই কোনো জামাতে অংশ নিতে পারেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা।

যদিও আইসিসির কাছ থেকে কোথায় কোন মসজিদে নামাজ পড়তে পারবেন বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা, সে সবুজ সংকেত মেলেনি। কারণ আইসিসির সিকিউরিটি প্রটোকলে রয়েছে, বিমানবন্দর থেকে টিম হোটেল, টিম হোটেল থেকে প্র্যাকটিস ভেন্যু, ভেন্যুর যাতায়াত পথ এবং মাঠ থেকে মাঠে যাতায়াত- এই জায়গাগুলোতেই নিরাপত্তা দেবে তারা। এর বাইরে কোথাও যেতে হলে অবশ্যই স্থানীয় প্রশাসন এবং আইসিসির গ্রিন সিগনাল লাগবে।

ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন জাগো নিউজকে জানিয়েছেন, টাইগার ক্রিকেটারদের ঈদের নামাজ পড়ার বিষয়ে যেহেতু নিরাপত্তা ইস্যু রয়েছে, সে কারণে বিষয়টা লন্ডনের বাংলাদেশ হাইকমিশন দেখভাল করছে। স্থানীয় প্রশাসন এবং আইসিসির গ্রিন সিগনাল নিয়েই বাংলাদেশ হাইকমিশন ঈদের নামাজ পড়ার ব্যাপারে একটা সিদ্ধান্ত নেবে।

এআরবি/আইএইচএস/পিআর

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]