বাংলাদেশকে ৪০০ রানের টার্গেট দিতে চায় ক্যারিবীয়রা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ক্রীড়া প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ০৮:০৩ পিএম, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১

চট্টগ্রাম টেস্টে অবিস্মরণীয় জয়ের পর ঢাকায়ও এখন পর্যন্ত বেশ এগিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দল। তৃতীয় দিনের শেষ বিকেলে ৩ উইকেট হারালেও, প্রথম ইনিংসে পাওয়া ১১৩ রানের লিডের সুবাদে এখন ১৫৪ রানে এগিয়ে রয়েছে ক্যারিবীয়রা।

চতুর্থ দিন এর সঙ্গে আরও আড়াইশ রান যোগ করতে চায় সফরকারীরা। অর্থাৎ বাংলাদেশকে ৪০০ রানের টার্গেট দেয়াটা নিরাপদ মনে করছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। আর এটির জন্য রোববার সকালের সেশনের ওপর জোর দিচ্ছে তারা। শনিবারের খেলা শেষে সংবাদমাধ্যমে এ কথা জানিয়েছেন দলের অফ স্পিনার রাকিম কর্নওয়াল।

তবে সরাসরি ৪০০ রানের কথা বলতে চাননি তিনি। বরং চতুর্থ দিনের প্রথম সেশনেই বারবার জোর দেন। কর্নওয়াল বলেন, ‘এখনই বলা যাচ্ছে না (কত লক্ষ্য দিতে চাই)। আমাদের সেটি সকালে পর্যবেক্ষণ করতে হবে। আমি যে রকম বললাম, লাঞ্চে আমরা ভালো অবস্থানে থাকলে আমরা একটি সুবিধাজনক টার্গেট দিতে পারব।’

পরে তিনি আরও বলেন, ‘আমার মনে হয় ৪০০-এর উপরে যে কোনো টার্গেটই আমাদের জন্য সুবিধাজনক হবে। আমাদের শুধু কালকে সকালে ভালো ব্যাটিং করতে হবে এবং পরে আমরা বাংলাদেশকে আক্রমণ করতে পারব।’

কর্নওয়ালের মতে ঢাকা টেস্টে এখন ওয়েস্ট ইন্ডিজই এগিয়ে, ‘আমার মনে হয় আমরা একটু এগিয়ে চালকের আসনে আছি। কালকের দিনটি গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের কালকের প্রথম ঘন্টায় ভালো ব্যাটিং করতে হবে এবং লাঞ্চে আমরা পর্যবেক্ষণ করতে পারব আমরা বাংলাদেশকে কত রানের টার্গেট দিতে পারি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজকে এগিয়ে দেয়ার বড় কৃতিত্ব রাকিম কর্নওয়ালেরই। বাংলাদেশকে প্রথম ইনিংসে ২৯৬ রানে অলআউট করার পথে ক্যারিয়ার দ্বিতীয়বারের মতো পাঁচ উইকেট নিয়েছেন কর্নওয়াল। তার বলেই আউট হয়েছেন রানের দেখা পাওয়া মুশফিকুর রহীম, লিটন দাসরা।

নিজের বোলিংয়ের ব্যাপারে তার মূল্যায়ন, ‘পাঁচ উইকেট পাওয়ার অনুভূতি সবসময়ই বিশেষ। আমি দলকে জেতার অবস্থায় যেতে সাহায্য করেছি। পরিকল্পনা ছিল বিষয়টা স্বাভাবিক রাখার, ধৈর্য্য ধরে সঠিক জায়গায় বল ফেলার। আগেরদিন ব্যাটসম্যানরা যেভাবে ম্যাচটা সাজিয়েছে, আমরা জানতাম যে বোলারদের আজ অনেক কিছু করতে হবে।’

এসএএস/আইএইচএস/এমকেএইচ

করোনা ভাইরাসের কারণে বদলে গেছে আমাদের জীবন। আনন্দ-বেদনায়, সংকটে, উৎকণ্ঠায় কাটছে সময়। আপনার সময় কাটছে কিভাবে? লিখতে পারেন জাগো নিউজে। আজই পাঠিয়ে দিন - [email protected]