পাতানো ফুটবল নিয়ে সতর্ক ক্রীড়া মন্ত্রণালয়

রফিকুল ইসলাম
রফিকুল ইসলাম , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ১০:৪৬ এএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

ঘরোয়া ফুটবলে পাতানো খেলা যেন ছাইচাপা আগুন। মনে হয় নিভে গেছে। কিন্তু হঠাৎ ধপ করে জ্বলে উঠে। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে হরহামেসাই ওঠে পাতানো খেলার অভিযোগ। কয়েক বছর আগে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ও রহমতগঞ্জের বড় ধরণের শাস্তি পাওয়ার পর পরের কয়েকটি মৌসুম পাতানো খেলার তেমন অভিযোগ ওঠেনি। তবে প্রতি মৌসুমেই নিচের লিগগুলোর অনেক ম্যাচ নিয়ে প্রশ্ন উঠে। হঠাৎ করে এবার আবার শীর্ষ পর্যায়ের প্রতিযোগিতায় উঠেছে পাতানো খেলার অভিযোগ।

প্রিমিয়ার লিগের দুটি ম্যাচ নিয়ে বড় ধরনের অভিযোগই উঠেছে। সেখানেও আছে আগে শাস্তি পাওয়া শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাব ও রহমতগঞ্জ। তাদের সঙ্গে উঠেছে প্রিমিয়ার লিগের নবাগত দল সাইফ স্পোর্টিং ক্লাব আর পুরনো ঢাকার আরেক দল ফরাশগঞ্জের নাম। এমন কী স্বাধীনতা কাপেও শেখ জামাল ও রহমতগঞ্জের ম্যাচ নিয়ে উঠেছে পাতানো খেলার অভিযোগ। এ অভিযোগগুলো আমলে নিয়ে তদন্তও শুরু করেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন।

ক্লাব পর্যায়ের পাতানো খেলার বিষবাস্প যাতে তৃণমূলে ছড়িয়ে না যায় সে জন্য সতর্ক দেশের খেলাধুলার অভিভাবক যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। তারা স্কুল ফুটবল নিয়ে যে নীতিমালা তৈরি করেছে সেখানে পাতানো খেলা রোখার উপরও জোর দিয়েছে। নীতিমালায় স্পষ্ট করে পাতানো খেলামুক্ত স্কুল ফুটবল আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছে মন্ত্রণালয়। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে-কোনো দলের বিরুদ্ধে পাতানো খেলার অভিযোগ উঠলে তা শৃঙ্খলা উপ-কমিটি তদন্ত করবে। পাতানো খেলা প্রমাণিত হলে সে স্কুলকে কমপক্ষে ২ বছরের জন্য টুর্নামেন্ট থেকে বহিষ্কার করা হবে।

এক সময়ের দেশব্যাপি জনপ্রিয় ছিল স্কুল ফুটবল। এখান থেকেই ক্যারিয়ার শুরু হয়েছে অনেক নামকরা ফুটবলারের। ভালো মানের ফুটবলার হতে না পারুক, অনেকেই জীবনে ফুটবলে প্রথম লাথি মেরেছেন এই প্রতিযোগিতা থেকেই। খেলাধুলার সূচি থেকে হারিয়ে যাওয়া সেই টুর্নামেন্ট আবার চালু করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সঙ্গে টুর্নামেন্টে মাদরাসাও সম্পৃক্ত করা হবে। মাধ্যমিক এ ফুটবল টুর্নামেন্ট হতে পারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নামে। প্রধানমন্ত্রীর উদ্যোগেই এ টুর্নামেন্ট আয়োজনের মহা পরিকল্পনা নিয়ে যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়। নাম অনুমোদন হয়নি বলে জায়গাটা ফাঁকা রেখে লেখা হয়েছে- ‘......মাধ্যমিক ফুটবল টুর্নামেন্ট।’

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে দেশব্যাপি প্রাথমিক বিদ্যালয় নিয়ে যে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবল টুর্নামেন্ট হয়ে আসছে, সে আদলেই মাধ্যমিক ফুটবল টুর্নামেন্ট আয়োজনের পরিকল্পনা যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের। টুর্নামেন্টের মূল উদ্যোক্তা যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় হলেও আয়োজনে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ও সম্পৃক্ত থাকবে।

আরআই/এমআর/জেআইএম

আপনার মতামত লিখুন :