কারও কথায় ফুটবলে আসিনি, কারও কথায় ছাড়বো না

রফিকুল ইসলাম
রফিকুল ইসলাম রফিকুল ইসলাম , বিশেষ সংবাদদাতা
প্রকাশিত: ০৮:৫৬ পিএম, ১৮ এপ্রিল ২০২২

জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক মামুনুল ইসলাম এ বছর আবাহনী থেকে যোগ দিয়েছিলেন মোহামেডানে। কিন্তু ইনজুরির কারণে খেলতে পারেননি। স্বাধীনতা কাপে খেলেছেন তার প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর হয়ে, ফেডারেশন কাপে খেলা হয়নি।

লিগে মাত্র একটি ম্যাচে নেমেছিলেন। প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় পর্বের জন্য মামুনুলকে আর রাখতে আগ্রহী ছিল না মোহামেডান। যে কারণে তিনি যোগ দিয়েছেন পুরোনো ঢাকার ক্লাব রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটিতে।

বয়স এখন ৩৩ বছর। কিন্তু এখনই খেলা ছাড়তে নারাজ মামুনুল।

জাগো নিউজ: প্রিমিয়ার লিগের দ্বিতীয় পর্বের জন্য রহমতগঞ্জে যোগ দিলেন। এই ক্লাবের জার্সি কি এবারই প্রথম পরা হবে?
মামুনুল: হ্যাঁ। এবারই আমি প্রথম রহমতগঞ্জে যোগ দিলাম। আগে কখনও এই ক্লাবে খেলিনি।

জাগো নিউজ: ২০০৫ সালে ব্রাদার্স ইউনিয়ন দিয়ে আপনার ঢাকা লিগে শুরু। ১৭ বছরে আপনি কতগুলো ক্লাবে খেলেছেন?
মামুনুল: ব্রাদার্স, আবাহনী, মোহামেডান, শেখ জামাল, শেখ রাসেল, মুক্তিযোদ্ধা ও চট্টগ্রাম আবাহনীতে খেলেছি। এবার রহমতগঞ্জে।

জাগো নিউজ: অনেকে বলেন আপনার এখন খেলা ছেড়ে দেওয়ার সময় হয়েছে। কিন্তু আপনি আরও খেলতে চান…
মামুনুল: দেখুন, কে কী বললেন তাতে আমার কিছু যায় আসে না। আমি যখন মনে করবো আমার খেলা ছেড়ে দেওয়ার সময় হয়েছে তখনই ছেড়ে দেবো। কাউকে বলতে হবে না।

জাগো নিউজ: আপনি দীর্ঘ দিন জাতীয় দলে সার্ভিস দিয়েছেন, অধিনায়কত্ব করেছেন...
মামুনুল: হ্যাঁ! আমি ১৪-১৫ বছর এক টানা জাতীয় দলে খেলেছি। কখনও আসা-যাওয়ার মধ্যে ছিলাম না। দুইবার আমি জাতীয় দলে থাকতে পারিনি। একবার ইনজুরির কারণে, আরেকবার পাসপোর্ট সমস্যার কারণে।

জাগো নিউজ: আপনি আসলে আর কত বছর খেলতে চান?
মামুনুল: এ বছর তো খেলছি। এ ছাড়াও এক-দুই বছর খেলবো। আগেই বলেছি, যখন ছাড়ার সময় হবে তখন ছাড়বো। আমি যখন ফুটবল শুরু করেছিলাম তখনো কারও কথায় আসিনি, আবার কারও কথায় ফুটবল ছাড়বোও না।

জাগো নিউজ: এখন আপনার ইনজুরির অবস্থা কী?
মামুনুল: এখন ভালো। রোববার ফুটবল প্রাকটিস করেছি, সোমবার করলাম হাফ। আশা করি, খেলতে পারবো।

জাগো নিউজ: সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে আপনাকে নিয়ে বাঁকা কথা বলেন...
মামুনুল: বললাম তো, আমাকে নিয়ে কাউকে ভাবতে হবে না। আমি ফুটবল পরিবারের মানুষ। যখন মনে করবো ফুটবলকে আর অনুভব করতে পারছি না, থামা উচিত, তখনই আমি খেলা ছেড়ে দেবো। আমি আমার প্রপার্টি, আমার পরিবারের প্রপার্টি।

জাগো নিউজ: ধন্যবাদ।
মামুনুল: আপনাকেও ধন্যবাদ।

আরআই/এসএএস/এমএস

পাঠকপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল জাগোনিউজ২৪.কমে লিখতে পারেন আপনিও। লেখার বিষয় ফিচার, ভ্রমণ, লাইফস্টাইল, ক্যারিয়ার, তথ্যপ্রযুক্তি, কৃষি ও প্রকৃতি। আজই আপনার লেখাটি পাঠিয়ে দিন [email protected] ঠিকানায়।